১৫ মাস পর আন্দোলনে ইতি টানছেন ভারতের কৃষকেরা - বর্ণমালা টেলিভিশন

সংসদে কৃষি আইন প্রত্যাহারের পরেও একাধিক দাবিতে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছিলেন কৃষকরা। কিন্তু কেন্দ্র দাবি পূরণের আশ্বাস দেওয়ায় ১৫ মাস পরে দিল্লি সীমানা থেকে আন্দোলন তুলে তারা গ্রামে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

আন্দোলনকারী কৃষকদের যৌথ মঞ্চ ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুর ২টায় সিঙ্ঘু সীমানায় আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষক আন্দোলন প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করা হতে পারে।

ভারতের কেন্দ্র সরকার ইতোমধ্যে আন্দোলনকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, মৃত কৃষক পরিবারগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার মতো একাধিক দাবি মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছে। দাবি বাস্তবায়নে তারা লিখিত নিশ্চয়তা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে।

গত সপ্তাহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কৃষকদের দাবিগুলো বিবেচনা করার কথা জানিয়ে ফোন করেছিলেন।

এর পর কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনার জন্য পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’। মঙ্গলবার সেই কমিটির বৈঠকে আন্দোলন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত বছরের নভেম্বর থেকে তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে আন্দোলন শুরু করেন দেশটির কৃষকেরা। তারা দেশটির রাজধানী পর্যন্ত অবরুদ্ধ করেন। কৃষকদের টানা আন্দোলন সত্ত্বেও ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আইন বহাল রাখার পক্ষে অনড় অবস্থান নেয়। সমস্যার সমাধানে কৃষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরকারের দফায় দফায় বৈঠক হয়। কিন্তু কোনো পক্ষ ছাড়া না দেওয়ায় এত দিন কোনো সমাধান আসেনি।

অবশেষে কৃষকদের আন্দোলনের কাছে নতি স্বীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। গত মাসে উত্তর প্রদেশ ও পাঞ্জাবের নির্বাচনের প্রাক্কালে তিনি এই তিন আইন প্রত্যাহারের বিষয়ে

তার সরকারের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন।

সূত্র: আনন্দবাজার, এনডিটিভি

সংসদে কৃষি আইন প্রত্যাহারের পরেও একাধিক দাবিতে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছিলেন কৃষকরা। কিন্তু কেন্দ্র দাবি পূরণের আশ্বাস দেওয়ায় ১৫ মাস পরে দিল্লি সীমানা থেকে আন্দোলন তুলে তারা গ্রামে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

আন্দোলনকারী কৃষকদের যৌথ মঞ্চ ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুর ২টায় সিঙ্ঘু সীমানায় আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষক আন্দোলন প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করা হতে পারে।

ভারতের কেন্দ্র সরকার ইতোমধ্যে আন্দোলনকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, মৃত কৃষক পরিবারগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার মতো একাধিক দাবি মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছে। দাবি বাস্তবায়নে তারা লিখিত নিশ্চয়তা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে।

গত সপ্তাহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কৃষকদের দাবিগুলো বিবেচনা করার কথা জানিয়ে ফোন করেছিলেন।

এর পর কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনার জন্য পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’। মঙ্গলবার সেই কমিটির বৈঠকে আন্দোলন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত বছরের নভেম্বর থেকে তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে আন্দোলন শুরু করেন দেশটির কৃষকেরা। তারা দেশটির রাজধানী পর্যন্ত অবরুদ্ধ করেন। কৃষকদের টানা আন্দোলন সত্ত্বেও ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আইন বহাল রাখার পক্ষে অনড় অবস্থান নেয়। সমস্যার সমাধানে কৃষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরকারের দফায় দফায় বৈঠক হয়। কিন্তু কোনো পক্ষ ছাড়া না দেওয়ায় এত দিন কোনো সমাধান আসেনি।

অবশেষে কৃষকদের আন্দোলনের কাছে নতি স্বীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। গত মাসে উত্তর প্রদেশ ও পাঞ্জাবের নির্বাচনের প্রাক্কালে তিনি এই তিন আইন প্রত্যাহারের বিষয়ে

তার সরকারের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন।

সূত্র: আনন্দবাজার, এনডিটিভি

১৫ মাস পর আন্দোলনে ইতি টানছেন ভারতের কৃষকেরা

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৭:৫২ 64 ভিউ
সংসদে কৃষি আইন প্রত্যাহারের পরেও একাধিক দাবিতে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছিলেন কৃষকরা। কিন্তু কেন্দ্র দাবি পূরণের আশ্বাস দেওয়ায় ১৫ মাস পরে দিল্লি সীমানা থেকে আন্দোলন তুলে তারা গ্রামে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন। আন্দোলনকারী কৃষকদের যৌথ মঞ্চ ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুর ২টায় সিঙ্ঘু সীমানায় আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষক আন্দোলন প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করা হতে পারে। ভারতের কেন্দ্র সরকার ইতোমধ্যে আন্দোলনকারী কৃষকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, মৃত কৃষক পরিবারগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার মতো একাধিক দাবি মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছে। দাবি বাস্তবায়নে তারা লিখিত নিশ্চয়তা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে। গত সপ্তাহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কৃষকদের দাবিগুলো বিবেচনা করার কথা জানিয়ে ফোন করেছিলেন।

এর পর কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনার জন্য পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করে ‘সংযুক্ত কিসান মোর্চা’। মঙ্গলবার সেই কমিটির বৈঠকে আন্দোলন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গত বছরের নভেম্বর থেকে তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতজুড়ে আন্দোলন শুরু করেন দেশটির কৃষকেরা। তারা দেশটির রাজধানী পর্যন্ত অবরুদ্ধ করেন। কৃষকদের টানা আন্দোলন সত্ত্বেও ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার আইন বহাল রাখার পক্ষে অনড় অবস্থান নেয়। সমস্যার সমাধানে কৃষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরকারের দফায় দফায় বৈঠক হয়। কিন্তু কোনো পক্ষ ছাড়া না দেওয়ায় এত দিন কোনো সমাধান আসেনি। অবশেষে কৃষকদের আন্দোলনের কাছে নতি স্বীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। গত মাসে উত্তর প্রদেশ ও পাঞ্জাবের নির্বাচনের প্রাক্কালে তিনি এই তিন আইন প্রত্যাহারের বিষয়ে

তার সরকারের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন। সূত্র: আনন্দবাজার, এনডিটিভি

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ