১১৭ উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি শূন্য ব্যয় ৪১৯ কোটি টাকার বেশি – বর্ণমালা টেলিভিশন

১১৭ উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি শূন্য ব্যয় ৪১৯ কোটি টাকার বেশি

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১ মার্চ, ২০২২ | ৬:৫৯ 41 ভিউ
বাস্তব অগ্রগতি শূন্য হলেও ১১৭টি উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় হয়েছে ৪১৯ কোটি ১৮ লাখ কোটি টাকা। আর এক টাকাও খরচ হয়নি অন্য ৯০টি প্রকল্পে। এছাড়া ৮১৪টি প্রকল্পের আর্থিক ও বাস্তব অগ্রগতি সন্তোষজনক নয়। প্রকল্পগুলোর বরাদ্দও ছিল পর্যাপ্ত। কোভিড-১৯ এর প্রভাবসহ ১০টি অজুহাত দেখিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। তবে সার্বিকভাবে ওই অর্থবছরের এডিপিভুক্ত ৭৪৫টি প্রকল্পের অগ্রগতি মোটামুটি সন্তোষজনক। এসব ঘটনা ঘটেছে গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরে। এমন চিত্র উঠে এসেছে বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা প্রতিবেদনে। এটি আগামীকাল বুধবার উপস্থাপন করা হবে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) বৈঠকে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান সোমবার বলেন, এসব প্রকল্প তো বাদ দেওয়া হয়নি, চলমান আছে। তাই নানা কারণে অগ্রগতি না হলেও আগামীতে হবে। তবে যদি কোনো চুরিচামারি বা অপচয়ের মতো ঘটনা ঘটে সেগুলো খতিয়ে দেখব। আইএমইডি প্রতিবেদনটি দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিশ্বব্যাংক ঢাকা অফিসের সাবেক লিড ইকোনমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন বলেন, এগুলোর ক্ষেত্রে ভ্রমণ ব্যয়, গাড়ি কেনা ও অফিস স্থাপনে খরচ হতে পারে। এমন ব্যয় হলে সেক্ষেত্রে প্রশ্ন তোলা উচিত। বলা দরকার প্রকল্পের অগ্রগতি নেই, কিন্তু ভ্রমণ, গাড়ি কেনা ও অফিস তো ঠিকই হয়েছে। এটা কেন? আইএমইডির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২০-২১ অর্থবছরের এডিপিতে মোট প্রকল্প সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৯৫৪টি। এর মধ্যে ১১৭টি প্রকল্পের অনুকূলে বরাদ্দ দেওয়া হয় প্রায় ৩ হাজার ১৫০ কোটি টাকা। বিভিন্ন প্রকল্পে খরচও হয়েছে প্রায় ৪১৯ কোটি ১৮ লাখ টাকা। কিন্তু বাস্তব অগ্রগতি ছিল শূন্য। এছাড়া ৯০টি প্রকল্পের অনুকূলে বরাদ্দ ছিল ১ হাজার ৭৮৯ কোটি টাকা। কিন্তু পুরো অর্থবছরে এক পয়সাও খরচ করতে পারেনি মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো। এর কারণ হিসাবে বলা হয়েছে, করোনা মহামারির প্রভাব, অর্থছাড় না হওয়া বা দেরিতে ছাড় হওয়া এবং ভূমি অধিগ্রহণ না হওয়া। এছাড়া দরপত্র আহ্বানে দেরি হওয়া, দরপত্র রেসপন্সিভ না হওয়া, প্রকল্পের ঋণ না পাওয়া, মামলাজনিত সমস্যা, ডিপিপি (উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব) সংশোধন, সংশোধিত এডিপি অনুমোদনে দেরি এবং উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে ঋণ চুক্তিতে দেরি হওয়ার কারণে প্রকল্পগুলোর এই অবস্থা হয়েছে। আইএমইডির সাবেক সচিব ও বর্তমান পরিকল্পনা সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, সাধারণত এমনটা হওয়ার কথা নয়। কিন্তু যেহেতু হয়েছে, সেহেতু আইএমইডির দায়িত্বের অংশ হচ্ছে প্রকল্প ধরে ধরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রশ্ন করা। বরাদ্দ আছে, অর্থ ব্যয় হয়েছে, কিন্তু বাস্তব কোনো অগ্রগতি নেই। এমন কেন হয়েছে তা খুঁজে দেখতে হবে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ওই অর্থবছরে প্রশংসনীয় অগ্রগতি অর্জন করতে পেরেছে ৯৫১টি প্রকল্প। এছাড়া ৯৬১টি প্রকল্পের বাস্তব ও আর্থিক অগ্রগতি সন্তোষজনক হয়েছে। পাশাপাশি এক লাখ টাকা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল এমন ৪৫টি প্রকল্পের মধ্যে ৩২টিতে এক টাকাও ব্যয় হয়নি। অর্থ ব্যয় হলেও অগ্রগতি শূন্য থাকা প্রকল্পগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে-ল্যান্ড ইকুইজিশন অ্যান্ড ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফর ইমপ্লিমেন্টেশন অব পটুয়াখালী ১৩২০ মেগাওয়াট কোল ফায়ারড থার্মাল পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্প। এটির মোট ব্যয় ধরা হয় ৮৬৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা। এর মধ্যে ২০২০-২১ অর্থবছরের এডিপিতে বরাদ্দ ছিল ১১২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। ব্যয় করা হয় ৮৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। কিন্তু বাস্তব অগ্রগতি শূন্য রয়েছে। এছাড়া পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন অ্যান্ড সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট চিটাগাং জোন (সেকেন্ড ফেজ) প্রকল্পটির অনুকূলে বরাদ্দ ছিল ৩১৫ কোটি টাকা। ব্যয় করা হয় ১৯৯ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। অগ্রগতি শূন্য। জয়িতা টাওয়ার স্থাপন প্রকল্পের অনুকূলে বরাদ্দ ছিল ১ কোটি ৭২ লাখ টাকা। খরচ হয়ে গেছে তারও বেশি ৩ কোটি ২৭ লাখ টাকা। কিন্তু বাস্তব অগ্রগতি নেই। নতুন জন্ম নেওয়া শিশুদের উন্নত চিকিৎসার জন্য হাতে নেওয়া প্রকল্পে বরাদ্দ ছিল ১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ব্যয় হয়ে যায় ৯ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। এরপরও অগ্রগতি শূন্য রয়েছে। অর্থ ব্যয় হলেও বাস্তব অগ্রগতি শূন্য আরও কয়েকটি প্রকল্প হচ্ছে, এনহ্যান্সিং ক্যাপাসিটি ইন কটন ভ্যারাইটিজ ডেভেলপমেন্ট প্রকল্প, মডার্নাইজেশন অব এক্সজিসটিং চরমুগুরিয়া ইকোপার্ক আন্ডার মাদারীপুর ডিস্ট্রিক্টস প্রকল্প এবং প্রকিউরমেন্ট অব ভুয়াপুর-তারাকান্দি রোড থ্রো প্রটেকশন অব লিফট ব্যাংক অব যমুনা রিভার ইন সরিষাবাড়ী উপজেলা অব জামালপুর ডিস্ট্রিক্টস প্রকল্প। রিপাওয়ারিং প্রজেক্ট অব ঘোড়াশাল চতুর্থ ইউনিট। প্রকিউরমেন্ট অব সার্ভিস ভেসেল ফর মোংলা পোর্ট প্রকল্প এবং স্ট্র্যাটেজিক মাস্টার প্ল্যান ফর মোংলা পোর্ট প্রকল্প।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব