হরিণাকুণ্ডুতে ঝড়ে বিপর্যস্ত কলাচাষী – বর্ণমালা টেলিভিশন

হরিণাকুণ্ডুতে ঝড়ে বিপর্যস্ত কলাচাষী

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ | ৪:৫৮ 46 ভিউ
ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে হঠাৎ তীব্র বাতাস ও ঝড়ে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে,বিপর্যস্ত কলাচাষী। উপজেলাতে প্রকৃতির এই বৈরী আবহাওয়ায় ঝড়ে শত শত কলাগাছ সহ অন্যান্য ফসলের ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার ভেড়াখালী, সোনাতনপুর, জোড়াদাহ,হরিশপুর হরিয়ারঘাট,নারায়নকান্দী সহ বিভিন্ন স্থানে কৃষকদের অসংখ্য কলাগাছ ভেঙ্গে গেছে বলে জানা যায়। বৃহস্পতিবার উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামের মাঠ পরিদর্শণ করে দানবী ঝড়ের এই তাণ্ডব লক্ষ করা যায়। বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে এই উপজেলার উপর দিয়ে ঝড় বৃষ্টি বয়ে যায়। এতে করে আশেপাশের কয়েকটি অঞ্চল জুড়ে বাতাসের তীব্র গতিবেগের কারণে মাঠের কলাগাছ রাতেই দুমড়ে মুচড়ে যায় এছাড়াও বেশ কিছু পান বরজ টিনের চালা উড়ে গেছে। এদিকে হরিয়ারঘাট গ্রামের ইসাহাক আলীর ছলে কৃষক রিপন আলী দৈনিক ডেল্টা টাইমস পত্রিকার প্রতিনিধিকে জানান,আমি পশ্চিম আব্দালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০১৪ সালের ব্যাচ ছিলাম। আমার খুব ইচ্চে ছিলো লেখা পড়া করার কিন্তু বাবার অভাবী সংসারের কারনে আমার লেখা পড়া করা সম্ভব হয় নি। সংসারের হাল ধরতেই নেমে পড়লাম কৃষি কাজে। আমার ৬০ শতক জমিতে প্রায় ৪৫০ টি ধুপছায়া (বাংলা কলাগাছ) ছিলো।এই ঝড়ে আমার বাগানধরে দুমড়েমুচড়ে গেছে।বসতবাড়ি অক্ষত থাকলেও আমার কলাগাছ ভেঙ্গে যাওয়ায় আমি এখন নিঃশ্ব। এই কলা চাষ করতে গিয়ে আমার প্রায় ৭০ থেকে ৭৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। যদি ঝড়ে ভেঙ্গে না যেতো তাহলে আমি,প্রায় দুই লক্ষ দশ হাজারেরও বেশী টাকার মূল্যে কলা,বিক্রি করতে পারতাম।তিনি আরও বলেন, আমি ধার দেনা, গরু, ছাগল বিক্রি করে এসব আবাদ শুরু করেছিলাম। আজ আমি পথের ফকির হয়ে গেলাম। আমি সরকারের কাছে সাহায্য চাই। এদিকে ঝিনাইদহ সদরের সাগান্না ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামের কলাচাষী ফারুক হোসেন জানান, আমি অনেক দিন যাবৎ কলার চাষ করি প্রতি বছর দশ বারো বিঘা কলার চাষ করি তবে আজ অবদি তিন বছরই বার বার ঝড়ে কলা গাছ ভেঙ্গে যাচ্ছে যথারিতি এবারও ৩৫০০ শত কলাগাছ ছিলো তার মধ্যে ২৯০০ চাপা কলা আার ৬০০ শত বগুড়া শবরী কলা ছিলো। চাপা কলাগাছ প্রায় সবই ভেঙে গেছে আর বগুড়া শবরী গাছ ঠিক আছে তবে যেহেতু এক বছরের ফসলতো এজন্য খরচ বেশি প্রতি বিঘা জমিতে ২০০০০ টাকা করে খরচ হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকলে ১১ বিঘা জমির কলা ঠিক মত বিক্রি করা গেলে আট থেকে দশ লক্ষ টাকা আয় করা সম্ভব হতো। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাফিজ হাসান জানান,ইতিমধ্যে আমরা খোঁজখবর নিয়েছি। কিন্তু তেমন কিছু করার সুযোগ আমাদের নেই। আর আমাদের কাছে তো সবসময় সাহায্য সহযোগিতা করার মতো অর্থ থাকে না। তাই ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিকা নিয়ে আমরা কর্তৃপক্ষকে অবগত করবো। আমাদের কাছে একটা খসড়া তালিকা আছে যাদের যাদের ক্ষতি হয়েছে অথবা চুড়ান্ত ক্ষতি হয়েছে একদম পুরা ক্ষেত ধ্বংস হয়ে গিয়েছে তেমন না থাকায় চুড়ান্ত তালিকা করা সম্ভব হয় নি। তবে যাদের বেশী ক্ষতি হয়েছে, তারা যদি ভবিষ্যতে প্রদর্শণী প্লট করতে রাজী থাকেন, তাহলে আমরা তাদেরকে কলার প্রদর্শণী করতে পারবো।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব