ঢাকা, Sunday 19 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে স্বামী গায়েব

প্রকাশিত : 01:14 AM, 8 October 2020 Thursday
186 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মৃত স্ত্রীকে রেখে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে গৃহবধূর স্বামী ও তার স্বজনদের বিরুদ্ধে। এদিকে গৃহবধুর পরিবারের দাবি পরিকল্পিত হত্যা। ওই গৃহবধূর নাম ঝর্ণা বেগম (২৫)। সে উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের বেতেঙ্গা গ্রামের আসিফ শেখের স্ত্রী। গৃহবধূ ঝর্ণা বেগমের ৫ মাস বয়সী একটি সন্তান রয়েছে। লাশটি উদ্ধার করে রাজবাড়ী মর্গে প্রেরণ করেছে থানা পুলিশ।
বুধবার (৭ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে হাসপাতালে যান বালিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারিকুজ্জামান ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন কুমার আদিত্য। উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ডাঙ্গাহাতিমোহন গ্রামের সোহরাব হোসেনের ছেলে ও নিহতের ভাই রায়হান

জানান, ২ বছর পূর্বে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় মারধর করতো। গত বছর যৌতুকের সম্পুর্ণ টাকা পরিশোধ করে দেই। ৩-৪ মাস ভালোভাবে সংসার করে। এরপর থেকেই আবার শুরু হয় নানা ধরণের পারিবারিক কলহ। কিস্তির টাকা পরিশোধ না করাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকাল ৮টার দিকে আমার বোন ঝর্ণা বেগমকে তার স্বামী আসিফ শেখ বেধড়ক মারধর করে।
পরে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে আনে। তাকে ওয়াশ করে বেডে দেওয়ার পরই মারা যায়। মৃত্যুর কথা শোনার পরই হাসপাতালে লাশ ফেলে রেখে পালিয়ে যায় তার

স্বামী ও স্বজনরা। মারা যাওয়ার পর আমাদেরকে খবর দেওয়া হয়। আমাদের ধারণা তাকে মারধর করে মুখে বিষ ঢেলে হাসপাতালে আনা হয়েছে। আমি আমার বোন হত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।
জরুরী বিভাগের চিকিৎসক মেডিকেল অফিসার ডা. শারমিন জাহান জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এক গৃহবধুকে তার স্বামী ও তার ফুফু শ্বাশুড়ী হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে। গৃহবধূর শরীরে আঘাতের চি??হ্ন ছিলো। তাছাড়া কীটনাশক পয়জনিং ছিলো তার শরীরে। প্রাথমিক চিকিৎসা চলাকালীনই তার মৃত্যু হয়। বালিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জ তারিকুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে হাসপাতাল যাই। সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজবাড়ী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

হাসপাতালে গৃহবধূর স্বামীকে পাওয়া যায়নি। গৃহবধূর পরিবার থেকে অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT