ঢাকা, Saturday 18 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান

প্রকাশিত : 01:31 PM, 22 September 2020 Tuesday
251 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

জাতিসংঘের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মঙ্গলবার ভোর ৪টায় প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য রাখবেন। আগামী ১ অক্টোবর পর্যন্ত মোট সাতটি অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে অংশ নেবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী কোভিড-১৯, রোহিঙ্গা ইস্যু, জলবায়ু পরিবর্তন, লৈঙ্গিক বৈষম্য হ্রাস, অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলবেন।

সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। করোনাভাইরাসের টিকা আবিষ্কার হলে তা পেতে কোন দেশ যেন বৈষম্যের শিকার না হয়, এই বিষয়টি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের চলতি অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরতে পারেন জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণ

যাতে সুলভ মূল্যে করোনাভাইরাসের টিকা পায়, সে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। কোন দেশ যেন এক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার না হয়, আমরা সে দাবি তুলেছি।

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে সদস্য রাষ্ট্রসমূহ নিজ নিজ দেশ থেকে এবারের সভায় অংশ নিচ্ছে। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে বৈশ্বিক সংস্থার সাধারণ পরিষদের অধিবেশন শুরু হয়েছে। এই অধিবেশনের উচ্চপর্যায়ের বিতর্কপর্ব আজ মঙ্গলবার শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম ও পূর্বধারণকৃত বক্তব্যের মাধ্যমে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৫তম এই অধিবেশনে অংশ নেবেন। ২৬ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সাধারণ বিতর্ক পর্বে বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য দেবেন প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে মূল বক্তব্য দেবেন। সেখানে তিনি রোহিঙ্গা বিষয়সহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন। বক্তব্যে কোভিড-১৯, রোহিঙ্গা, জলবায়ু পরিবর্তন, লৈঙ্গিক বৈষম্য হ্রাস, অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

রোহিঙ্গা বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কী বলবেন জানতে চাইলে মন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, তিনি কী বলবেন আমি জানি না। তবে আগে যা বলেছেন তার ধারাবাহিকতা বজায় রেখে তিনি বক্তব্য দেবেন। প্রতিবারের মতো এবারও জাতিসংঘের অধিবেশনে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সমস্যাটি তুলে ধরবে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ বিষয়ে সাম্প্রতিক

সময়ে আইসিজেতে চলমান মামলা এবং আইসিসিতে রোহিঙ্গা নির্যাতনে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে চলমান আইনী প্রক্রিয়ার কারণে এবারের অধিবেশনে রোহিঙ্গা সমস্যা আগের বছরগুলোর মতোই গুরুত্বসহকারে আলোচিত হবে।

এবারে ভার্চুয়াল বৈঠক হওয়ার কারণে কোন সাইডলাইন বৈঠক হবে না জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ বছর জাতিসংঘের ৭৫ বছরপূর্তি। জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার ৭৫ বছর পূর্তিতে অনুষ্ঠিতব্য এই অধিবেশন যেমন বর্তমান বিশ্ব প্রেক্ষাপটে প্রাসঙ্গিকতাকে সামনে নিয়ে আসবে, তেমনি বিশ্ব নেতৃবৃন্দ আগামী বছরগুলোতে কী ধরনের জাতিসংঘ দেখতে চান সে বিষয়ে তাদের অভিমত, চিন্তাধারা ও পরিকল্পনা তুলে ধরবেন।

কোভিড-১৯ মহামারী দমনে রাষ্ট্রসমূহের সমন্বিত কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়টিও এবারের অন্যতম আলোচিত বিষয় হিসেবে গণ্য হচ্ছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি

বলেন, এবারের অধিবেশনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একদিকে যেমন কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত নানাবিধ পদক্ষেপের বিষয়ে আলোকপাত করতে পারবেন, তেমনি এসডিজি বাস্তবায়নে বাংলাদেশের সাফল্য ও অগ্রগতি, নারী উন্নয়ন ও নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের অনুসরণীয় কার্যক্রম, দারিদ্র্যবিমোচনে গৃহীত নানাবিধ পদক্ষেপ, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গীবাদ দমন ও মাদকের বিস্তার রোধ, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, গণতন্ত্র ও সুশাসনের ধারা অব্যাহত রাখা ও সর্বোপরি বিশ্বশান্তি রক্ষায় বাংলাদেশের অবদানের বিষয়ে বিশ্ববাসীকে অবহিত করতে পারবেন।

অধিবেশনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের বিভিন্ন এজেন্ডা সম্পর্কে আবদুল মোমেন বলেন, এবারের জাতিসংঘ অধিবেশনের প্রতিপাদ্য ‘দ্য ফিউচার উই ওয়ান্ট, দ্য ইউএন উই নিড ঃ রিএফার্মিং আওয়ার কালেকটিভ কমিটমেন্ট টু মাল্টিল্যাটারালিজম’।

সেই হিসেবে আমরা এবার বহুপাক্ষিক সহযোগিতার দিকে জোর দিচ্ছি। পাশাপাশি কোভিড-১৯ মোকাবেলায় আমাদের গৃহীত পদক্ষেপ এবং বিশ্ববাসীর পার্টনারশিপ, করোনা ভ্যাকসিন যেন সবাই সমানভাবে পায় সেই আহ্বান, গণতন্ত্র ও সুশাসনের ধারা অব্যাহত রাখতে নিজ বক্তব্যে আহ্বান জানাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে নির্দিষ্ট করে কেমন হবে সেটা আমরা এখনই বলতে পারছি না।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT