ঢাকা, Monday 18 October 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

শেষ ম্যাচেও হারল বাংলাদেশ

প্রকাশিত : 09:11 AM, 27 March 2021 Saturday
63 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে ব্যর্থতার ষোলোকলা পূর্ণ হয়েছে সফরকারী বাংলাদেশ দলের। এই ভেন্যুতে প্রথমবার ওয়ানডে খেলতে নেমে শুক্রবার স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৬৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে সফরকারীরা। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে স্বাগতিকদের কাছে এটিই সবচেয়ে বড় হারের লজ্জা বাংলাদেশের। ফলে অতীতের মতো এবারও ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে তামিম ইকবালের দল। আগে ব্যাট করে ডেভন কনওয়ে ও ড্যারিল মিচেলের জোড়া সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ৩১৮ রান তোলে কিউইরা। এই ভেন্যুতে এটি সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। জবাব দিতে নেমে জেমস নিশাম ও ম্যাট হেনরির পেসে বিপর্যস্ত বাংলাদেশের ইনিংস ৪২.৪ ওভারে গুটিয়ে যায় ১৫৪ রানে। আইসিসি বিশ্বকাপ ওয়ানডে সুপার লীগে এর

ফলে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচে নেমে গেছে বাংলাদেশ। এমন লজ্জাজনক অভিজ্ঞতার পর হতাশ তামিম জানিয়েছেন, বিদেশের মাটিতে এমন বাজে পারফর্মেন্স থেকে উত্তরণের পথ খুঁজতে হবে।

টানা দুই ম্যাচ জিতে আগেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করে কিউইরা। আইসিসি বিশ্বকাপ ওয়ানডে সুপার লীগে এটিই প্রথম সিরিজ তাদের। তাই বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করে পূর্ণ পয়েন্ট অর্জনে প্রত্যয়ী কিউইরা কোন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে পয়েন্ট হারানোর ঝুঁকি নিতে চায়নি। অভিজ্ঞ রস টেইলরকে তাই একাদশে ফেরায় তরুণ উইল ইয়াংকে বাইরে রেখে। আর সফরে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম খেলার সুযোগ পান অতীতে নিউজিল্যান্ডে সফলতম পেসার রুবেল হোসেন। তিনিই টস জিতে এবার ব্যাটিংয়ে নামা কিউইদের শুরুতে বিপাকে ফেলে দেন

তার অভিজ্ঞতা দিয়ে। মার্টিন গাপটিল (২৬) ও টেইলরকে (৭) সাজঘরে ফেরান তিনি। আর হেনরি নিকোলসের ক্যাচ এদিনও ছাড়েন মুশফিকুর রহিম, কিন্তু লিটন দাসের ক্যাচে মাত্র ১৮ রানেই সাজঘরে ফেরেন। তাসকিন আহমেদ সাফল্য পান। দলীয় ৫৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে অধিনায়ক টম লাথাম ও কনওয়ে ৬৩ রানের জুটি গড়ে বিপদ কিছুটা কাটান। কিন্তু মেহেদী হাসান মিরাজের দারুণ ফ্লাইং ক্যাচে সতর্ক লাথামকে (১৮) সাজঘরে ফেরান সৌম্য সরকার। তবে এরপর শুধুই হতাশা। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ওয়ানডে অভিষেক হওয়া দুই তরুণ কনওয়ে ও মিচেল ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকান। কনওয়ে ১১০ বলে ১৭ চারে ১২৬ রানে ফিরলেও মুশফিক রানআউটের সুযোগ

মিস করায় মিচেল ৯২ বলে ৯ চার, ২ ছক্কায় ১০০ রান করে অপরাজিত থাকেন। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ৩১৮ রানে শেষ হয় কিউইদের ইনিংস। রুবেল ৭০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন। এর আগে ২০১৮ সালে এই ভেন্যুর সর্বোচ্চ ৭ উইকেটে ৩১৫ রান নিউজিল্যান্ডই করেছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে।

অস্ট্রেলিয়া ২০০৫ সালে স্বাগতিকদের ২৩৬ রান তাড়া করে হারিয়েছিল। সেটাই সর্বোচ্চ রান তাড়া করার রেকর্ড বেসিন রিজার্ভে। তাই হোয়াইটওয়াশ এড়াতে জেতার জন্য নতুন রেকর্ড গড়ার চ্যালেঞ্জে নামে বাংলাদেশ। তবে হেনরির পেসে অগোছালো ও ভুলে ভরা শট খেলে বিপর্যস্ত হয় শুরুতেই দলীয় ২৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে। সেই উইকেট পতনের মিছিলে

যোগ দিয়েছেন পরবর্তীতে বাকিরা। হেনরি শুরু করেছিলেন ঝড় আর নিশাম ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ে ধসিয়ে দেন বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ। শুধু ব্যতিক্রম ছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তিনি ৭৩ বলে ৬ চার, ৪ ছক্কায় ৭৬ রানে অপরাজিত থাকেন। বাকিরা কেউ তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি, তাই ৪৪ বল বাকি থাকতেই বাংলাদেশের ইনিংস ১৫৪ রানে থেমে যায়। নিশাম ক্যারিয়ারের প্রথম ৫ উইকেট নেন ২৭ রান দিয়ে। হেনরির শিকার ২৭ রানে ৪ উইকেট। এত বড় ব্যবধানে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে আগে কিউইদের বিপক্ষে হারে বাংলাদেশ। গত ১৯ বছরে এটিই কিউইদের বিপক্ষে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার। ২০০২ সালে কলম্বোয় হেরেছিল ১৬৭ রানে। তাই সিরিজ শেষে হতাশ

তামিম বলেন, ‘সমস্যাটা মূলত বিদেশের মাটিতে। দেশের বাইরে আমরা ধারাবাহিক নই। দলগত বা ব্যক্তিগতভাবে কোনভাবেই আমরা ধারাবাহিক নই। আমি মনে করি এটাই ইস্যু এবং এখান থেকে উত্তরণের পথ খুঁজতে হবে।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT