ঢাকা, Monday 20 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

রেলপথে কক্সবাজার

প্রকাশিত : 08:14 AM, 3 April 2021 Saturday
123 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

বাংলাদেশ উন্নয়নের ক্রমবর্ধমান ধারায় এগিয়ে চলেছে। প্রবৃদ্ধির গুরুত্বপূর্ণ সূচকে এসেছে নতুন মাত্রা। যাতায়াত ব্যবস্থার অবকাঠামো সুপরিকল্পিত কর্মযোগে পরিবহন খাতে গুরুত্বপূর্ণ, আরামদায়ক এবং নিরাপদ ব্যবস্থাপনা বাংলাদেশ রেলওয়ের যুগান্তকারী কার্যক্রম আমরা ইতোমধ্যে প্রত্যক্ষ করেছি। সমুদ্র উকূলবর্তী জেলা কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকত আয়তনে বিশ্বের দীর্ঘতমই শুধু নয়, নদীবিধৌত বাংলার এক অপার সৌন্দর্যের পীঠস্থানও বটে। ফলে পর্যটন শিল্পেও রয়েছে এর বিপুল আকর্ষণ। প্রতি বছর হাজার হাজার দর্শনার্থী এই সামুদ্রিক বৈভব আর নৈসর্গের অপার সুষমার আকর্ষণে এখানে ভ্রমণ করতে আসে। সঙ্গতকারণে দেশের সার্বিক অর্থনীতিতেও এর অবদান অবশ্য স্বীকার্য। এতদিন রেল যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন এই উপভোগ্য সমুদ্র অঞ্চলটি আকাশ কিংবা সড়কপথে দর্শনার্থীদের

যথার্থ জায়গাটিতে পৌঁছে দিত। সেখানে যোগ হতে যাচ্ছে রেলপথের মতো আরও এক গুরুত্বপূর্ণ ও প্রাসঙ্গিক যাতায়াত ব্যবস্থা। ২০০৯ সাল থেকে বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর উন্নয়ন কর্মযোগের দশক অতিক্রম করে যুগপূর্তি পার করার সন্ধিক্ষণে সুবিশাল মহাপরিকল্পনাকে জনগণের দ্বারে পৌঁছে দিতে সফলভাবে এগিয়ে নেয়া হচ্ছে। সড়ক-মহাসড়কের নতুন নতুন কর্মদ্যোতনা ছাড়াও পদ্মা সেতুর মতো আকর্ষণীয় মেগা প্রকল্প নিজ অর্থায়নে তৈরি করা তাও যে এক দুরন্ত অভিগামিতা। আর রেল লাইন তৈরির বৃহৎ সংযোগের হরেক রকম কর্মওযোগও থেমে নেই। কক্সবাজারের সঙ্গে রেল যোগাযোগের সম্প্রসারিত পরিকল্পনাটি তার লক্ষ্যমাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে। কক্সবাজারের সঙ্গে রেলপথ নির্মাণের কর্ম প্রকল্পটি গৃহীত হয় ২০১১

সালে তবে অর্থ সঙ্কুুলান এবং জমি অধিগ্রহণের জটিলতায় কাজটি শুরু হতেই অনেক দেরি হয়ে যায়। ১৮ হাজার ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই মহাকর্মযোগে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) সঙ্গে ১৫০ কোটি ডলারের ঋণ চুক্তি গৃহীত হলে নির্মাণ কাজে আর কোন বাধা থাকেনি। তবে অত্যাধুনিক, আন্তর্জাতিকমানের এই রেলপথের স্টেশন ভবনও হবে চমকপ্রদ এবং আকর্ষণীয়। বিশ্বমানের সেবা প্রদানে যা বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

জানা গেছে নতুন আইকনের ভূমিকায় থাকবে এই নবনির্মিত স্টেশনটি। সারা বিশ্ব থেকে বহু ভ্রমণবিলাসী পর্যটক যাতে এই উন্নতমানের রেল ভবনটির অনিন্দ্যসুন্দর শোভাদর্শন ছাড়াও প্রাসঙ্গিক সমস্ত সেবা প্রদানের সুযোগ-সুবিধা হাতের নাগালেই পেয়ে যায়। যাতে পর্যটকরা তাদের যাত্রাপথের

সমস্ত ব্যবস্থা অতি সহজেই পেয়ে যেতে পারে। শুধু তাই নয়, এমন সেবার মান হবে আন্তর্জাতিকভাবে পরিকল্পিত কর্মযোগে। দোহাজারী থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত নবনির্মিত এই রেলপথটি কোন এক সময় রামু হয়ে ঘুমধুম পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা হবে। ছয়তলা বিশিষ্ট এই পথনির্দেশক স্টেশন ভবনটি তৈরি করতে ব্যয় ধরা হয়েছে ২১৫ কোটি টাকা। তা নির্মাণ করা হবে কক্সবাজারের নিজস্ব বৈভব ঝিনুকের আদলে। ২০২২ সালের ডিসেম্বর মাসের শুভযাত্রা শুরু করার কথা রেলমন্ত্রী জানালেও আরও ছয় মাস বর্ধিত সময় নির্ধারণ করা হয়। কারণ সিংহভাগ প্রকল্প সময় এবং ব্যয়ের পরিমাপে তার লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে যাওয়ার বিষয়টিও বিবেচনা করতে হচ্ছে। মাঝখানে করোনা দুর্যোগে নির্মীয়মান যোগাযোগ

ব্যবস্থাপনায় সময় ক্ষেপণ হয়েছে। আন্তর্জাতিক মানের রেল লাইন ও সংশ্লিষ্ট আকর্ষণীয় ভবনটি যেন ত্রুটিবিচ্যুটি কিংবা দীর্ঘসূত্রতার জালে থমকে না যায়। আর সেবার মানেও যেন থাকে সর্বোচ্চ সতর্কতা ও কঠোর নজরদারি। উন্নত মানের এই যাত্রীসেবা প্রকল্পটিতে যোগ দেবে সারা বিশ্ব থেকে আগত অসংখ্য পর্যটক। তবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয় সবার আগে দোহাজারী থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত রেলপথটিই নির্মাণ করে যাত্রীসেবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে। সমুদ্র পরিবেষ্টিত নয়নাভিরাম কক্সবাজার জেলাটি ভ্রমণপিয়াসীদের জন্য এক ঘুরে বেড়ানোর পীঠস্থান। তাকে বিশ্ব মর্যাদায় নিতে গেলে আধুনিক শিল্পোন্নত প্রকল্পের বিপরীতে অন্য কিছু ভাবাও যায় না। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ তৈরিতে এগিয়ে যেতে গেলে এমন

মেগা প্রকল্পকে বিবেচনায় আনা সময়ের দাবি। জনগণও তেমন প্রত্যাশায় দিন গুনছে। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অপার সম্ভাবনাও, যা অর্থনীতির খাতকে দ্রুত সমৃদ্ধ করতে নিয়ামকের ভূমিকা পালন করবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT