রাজশাহী প্রসাশনের নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ - বর্ণমালা টেলিভিশন

রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ। রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ।হোটেলটি রাজশাহীর উপ-শহরে ৩নং সেক্টর, হোল্ডিং-১৮৮, মারকাজ মসজিদের পশ্চিমে অবস্থিত।

গত প্রায় ৪ মাস ধরে হোটেলটির পরিচালক দেহ ব্যবস্যা দিয়েই কার্যক্রম শুরু করেছেন। বিভিন্ন বয়সি মেয়েদের আনাগোনা দেখা যায় হোটেলটিতে। এ নিয়ে স্থানীয়রা মধ্যে পথে, চায়ের দোকানে ব্যপক আলাপ-চারিতা করতেও শোনা যাচ্ছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ, ফাঁড়ীর ৩০০ গজের মধ্যে এই হোটেলটির অবস্থান। হোটেলের পরিচালক মো. আবু ইউসুফ মাসুদ শুরু থেকে দেহ ব্যবসা চালালেও ফাঁড়ি থেকে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। এমনি প্রশাসনিক ভাবে কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

/> হোটেলের পরিচালকের প্রধান সহযোগী কৌশিক। তার কাজ মূলত খদ্দেরদের মোবাইলে যৌন কর্মীদের ছবি দেখানো। সেই সাথে খদ্দেরের পছন্দের নারী দেনদরবারের মাধ্যমে তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া।

এছাড়াও যুবক-যুবতীরা এই হোটেলে রুম ভাড়া নিয়ে দেদারসে ফুর্তি করছেন। আবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অর্ডার নিয়ে হোটেলের বাইরেও সরবরাহ করা হচ্ছে যৌন কর্মীদের। এসকল যৌন কর্মীদের সরবরাহের জন্য কৌশিকের সহযোগী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে একাধিক হোটেল স্টাফ। তারা মোটরসাইকেলযোগে খদ্দেরদের ঠিকানায় পৌঁছে দিচ্ছেন যৌন কর্মী। তবে নারী পছন্দের মূলত মোবাইল ফোনেরমাধ্যমেই হচ্ছে বলে একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যৌনকর্মী সরবরাহের কাজে ব্যবহৃত একাধিক মোটরসাইকেল হোটেলের সামনে সংরক্ষিত রয়েছে। হোটেল থেকে বের হয়ে দেহকর্মীরা

বিভিন্ন মোটরসাইকেল যোগে চলে যাচ্ছে তাদের কাস্টমারদের দেয়া ঠিকানায়।

এ ব্যাপারে জানতে আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু ইউসুফ মাসুদকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি জানান, আমার হোটেলের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন বানোয়াট। আমার হোটেলের দূর্ণাম করার উদ্দেশ্যেই এমন অপপ্রচার চালাচ্ছেন কতিপয় ব্যক্তিরা।

আপনার হেটেলের মূল ব্যবসাই হলো দেহ ব্যবসা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার হোটেলে চায়ের দাওয়াত রইলো। আসুন সাক্ষাতে আলাপ করবো।

উপশহর পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এসআই শাহীন জানান, উদ্বোধনের এক সপ্তাহ্ পরেই হোটেলটিতে অভিযান চালানো হয়েছিলো। এরপর বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন স্যার হোটেলের পরিচালককে ডেকে অনৈতিক কর্মকান্ড না চালানোর বিষয়ে শতর্ক করেছেন।

তিনি আরও বলেন, এখনো ওই

হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ড চলছে। এমন তথ্য আমার কাছে নেই। তবে আমি ওসি স্যারকে বিষয়টি অবগত করবো।

রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ। রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ।হোটেলটি রাজশাহীর উপ-শহরে ৩নং সেক্টর, হোল্ডিং-১৮৮, মারকাজ মসজিদের পশ্চিমে অবস্থিত।

গত প্রায় ৪ মাস ধরে হোটেলটির পরিচালক দেহ ব্যবস্যা দিয়েই কার্যক্রম শুরু করেছেন। বিভিন্ন বয়সি মেয়েদের আনাগোনা দেখা যায় হোটেলটিতে। এ নিয়ে স্থানীয়রা মধ্যে পথে, চায়ের দোকানে ব্যপক আলাপ-চারিতা করতেও শোনা যাচ্ছে।

স্থানীয়রা অভিযোগ, ফাঁড়ীর ৩০০ গজের মধ্যে এই হোটেলটির অবস্থান। হোটেলের পরিচালক মো. আবু ইউসুফ মাসুদ শুরু থেকে দেহ ব্যবসা চালালেও ফাঁড়ি থেকে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। এমনি প্রশাসনিক ভাবে কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

/> হোটেলের পরিচালকের প্রধান সহযোগী কৌশিক। তার কাজ মূলত খদ্দেরদের মোবাইলে যৌন কর্মীদের ছবি দেখানো। সেই সাথে খদ্দেরের পছন্দের নারী দেনদরবারের মাধ্যমে তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া।

এছাড়াও যুবক-যুবতীরা এই হোটেলে রুম ভাড়া নিয়ে দেদারসে ফুর্তি করছেন। আবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অর্ডার নিয়ে হোটেলের বাইরেও সরবরাহ করা হচ্ছে যৌন কর্মীদের। এসকল যৌন কর্মীদের সরবরাহের জন্য কৌশিকের সহযোগী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে একাধিক হোটেল স্টাফ। তারা মোটরসাইকেলযোগে খদ্দেরদের ঠিকানায় পৌঁছে দিচ্ছেন যৌন কর্মী। তবে নারী পছন্দের মূলত মোবাইল ফোনেরমাধ্যমেই হচ্ছে বলে একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যৌনকর্মী সরবরাহের কাজে ব্যবহৃত একাধিক মোটরসাইকেল হোটেলের সামনে সংরক্ষিত রয়েছে। হোটেল থেকে বের হয়ে দেহকর্মীরা

বিভিন্ন মোটরসাইকেল যোগে চলে যাচ্ছে তাদের কাস্টমারদের দেয়া ঠিকানায়।

এ ব্যাপারে জানতে আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু ইউসুফ মাসুদকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি জানান, আমার হোটেলের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন বানোয়াট। আমার হোটেলের দূর্ণাম করার উদ্দেশ্যেই এমন অপপ্রচার চালাচ্ছেন কতিপয় ব্যক্তিরা।

আপনার হেটেলের মূল ব্যবসাই হলো দেহ ব্যবসা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার হোটেলে চায়ের দাওয়াত রইলো। আসুন সাক্ষাতে আলাপ করবো।

উপশহর পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এসআই শাহীন জানান, উদ্বোধনের এক সপ্তাহ্ পরেই হোটেলটিতে অভিযান চালানো হয়েছিলো। এরপর বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন স্যার হোটেলের পরিচালককে ডেকে অনৈতিক কর্মকান্ড না চালানোর বিষয়ে শতর্ক করেছেন।

তিনি আরও বলেন, এখনো ওই

হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ড চলছে। এমন তথ্য আমার কাছে নেই। তবে আমি ওসি স্যারকে বিষয়টি অবগত করবো।

রাজশাহী প্রসাশনের নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৯ ডিসেম্বর, ২০২১ | ১:২৫ 127 ভিউ
রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ। রাজশাহী মহানগরীর উপশহর ফাঁড়ির নাকের ডগায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ।হোটেলটি রাজশাহীর উপ-শহরে ৩নং সেক্টর, হোল্ডিং-১৮৮, মারকাজ মসজিদের পশ্চিমে অবস্থিত। গত প্রায় ৪ মাস ধরে হোটেলটির পরিচালক দেহ ব্যবস্যা দিয়েই কার্যক্রম শুরু করেছেন। বিভিন্ন বয়সি মেয়েদের আনাগোনা দেখা যায় হোটেলটিতে। এ নিয়ে স্থানীয়রা মধ্যে পথে, চায়ের দোকানে ব্যপক আলাপ-চারিতা করতেও শোনা যাচ্ছে। স্থানীয়রা অভিযোগ, ফাঁড়ীর ৩০০ গজের মধ্যে এই হোটেলটির অবস্থান। হোটেলের পরিচালক মো. আবু ইউসুফ মাসুদ শুরু থেকে দেহ ব্যবসা চালালেও ফাঁড়ি থেকে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। এমনি প্রশাসনিক ভাবে কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। হোটেলের

পরিচালকের প্রধান সহযোগী কৌশিক। তার কাজ মূলত খদ্দেরদের মোবাইলে যৌন কর্মীদের ছবি দেখানো। সেই সাথে খদ্দেরের পছন্দের নারী দেনদরবারের মাধ্যমে তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া। এছাড়াও যুবক-যুবতীরা এই হোটেলে রুম ভাড়া নিয়ে দেদারসে ফুর্তি করছেন। আবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অর্ডার নিয়ে হোটেলের বাইরেও সরবরাহ করা হচ্ছে যৌন কর্মীদের। এসকল যৌন কর্মীদের সরবরাহের জন্য কৌশিকের সহযোগী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে একাধিক হোটেল স্টাফ। তারা মোটরসাইকেলযোগে খদ্দেরদের ঠিকানায় পৌঁছে দিচ্ছেন যৌন কর্মী। তবে নারী পছন্দের মূলত মোবাইল ফোনেরমাধ্যমেই হচ্ছে বলে একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যৌনকর্মী সরবরাহের কাজে ব্যবহৃত একাধিক মোটরসাইকেল হোটেলের সামনে সংরক্ষিত রয়েছে। হোটেল থেকে বের হয়ে দেহকর্মীরা বিভিন্ন

মোটরসাইকেল যোগে চলে যাচ্ছে তাদের কাস্টমারদের দেয়া ঠিকানায়। এ ব্যাপারে জানতে আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু ইউসুফ মাসুদকে মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি জানান, আমার হোটেলের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন বানোয়াট। আমার হোটেলের দূর্ণাম করার উদ্দেশ্যেই এমন অপপ্রচার চালাচ্ছেন কতিপয় ব্যক্তিরা। আপনার হেটেলের মূল ব্যবসাই হলো দেহ ব্যবসা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার হোটেলে চায়ের দাওয়াত রইলো। আসুন সাক্ষাতে আলাপ করবো। উপশহর পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এসআই শাহীন জানান, উদ্বোধনের এক সপ্তাহ্ পরেই হোটেলটিতে অভিযান চালানো হয়েছিলো। এরপর বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন স্যার হোটেলের পরিচালককে ডেকে অনৈতিক কর্মকান্ড না চালানোর বিষয়ে শতর্ক করেছেন। তিনি আরও বলেন, এখনো ওই হোটেলে

অনৈতিক কর্মকান্ড চলছে। এমন তথ্য আমার কাছে নেই। তবে আমি ওসি স্যারকে বিষয়টি অবগত করবো।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ