যে কারণে হেলিকপ্টারে করে বউ আনলেন কৃষক রাসেল - বর্ণমালা টেলিভিশন

ছেলে জন্মের পর থেকে বাবার ইচ্ছা ছিল হেলিকপ্টারে করে ছেলের বউ আনবেন। বিষয়টি প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনরা শোনার পর বিশ্বাস করেননি।

বাবার সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই রোববার বিকালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল বাউসাইদ গ্রামে হেলিকপ্টারে করে নববধূ নিয়ে আসেন কৃষক রাসেল মিয়া। এই বিয়েকে কেন্দ্র করে বিয়েবাড়িসহ আশপাশের গ্রামজুড়ে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। ছিল বাদ্যের ঝঙ্কার, হরেকরকম খাবারের আয়োজন।

সরেজমিন জানা যায়, বাউসাইদ গ্রামের কৃষক মহির উদ্দিনের একমাত্র ছেলে রাসেল মিয়ার সঙ্গে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামের মুন্নু খার মেয়ে মিতু আক্তারের আড়াই মাস আগে কাবিন হয়। রাসেল মিয়া কৃষিকাজ করেন। দুপুরে ছেলের বাড়ির পাশে কৃষিজমিতে হেলিকপ্টার আসে। পরে বর হেলিকপ্টার

নিয়ে বাটাজোর যান। সেখান থেকে কনে নিয়ে বিকালে ফিরে আসেন। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

বরযাত্রীরা দুটি প্রাইভেটকার ও একটি বাসে চড়ে কনের বাড়ি গেলেও বর যান হেলিকপ্টারে চড়ে। প্রত্যন্ত গ্রামে হেলিকপ্টার আসাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ; যা প্রশংসা কুড়িয়েছে আগত সবার। ব্যতিক্রমধর্মী এ আয়োজন সামাল দিতে উপস্থিত ছিল স্থানীয় পুলিশের টিম।

৮০ বছরের বৃদ্ধ জিন্নাত আলী বলেন, আমার বয়সেও এমন বিয়ে দেখিনি। হেলিকপ্টারে করে বউ আনে এটা প্রথম দেখলাম। রাসেল এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

কনে মিতু আক্তার বলেন, আমি কখনো কল্পনাও করিনি আমার বর আমাকে হেলিকপ্টারে করে তার বাড়ি নিয়ে যাবে। এতে আমি খুব খুশি।

বর রাসেল মিয়া বলেন, বাবার

ইচ্ছা পূরণ করতেই হেলিকপ্টারটি ভাড়া আনা হয়। টাঙ্গাইল থেকে রওনা দিয়ে ময়মনসিংহের বাটাজোর থেকে নববধূকে নিয়ে ফিরে এসেছি।

রাসেলের বাবা মহিউদ্দিন বলেন, আমার অনেক সাধনার পর ছেলেসন্তান হয়েছে। তারপর থেকে আমার ইচ্ছা ছিল ছেলেকে হেলিকপ্টারে করে বিয়ে করাব। সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই এ আয়োজন। এক লাখ ৬০ হাজার টাকা দিয়ে দুই ঘণ্টার জন্য হেলিকপ্টারটি ভাড়া করা হয়েছিল। হেলিকপ্টারটি চারজন যাত্রী বহন করেছে।

ছেলের চাচা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর সালাউদ্দিন হায়দার বলেন, অজপাড়া গাঁয়ে হেলিকপ্টার এটিও ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি অংশ। আমি অনেক বিয়ের বরযাত্রী গিয়েছি তবে আজকের মতো এত আনন্দ পাইনি। হেলিকপ্টারে চড়ে এ বিয়েকে কেন্দ্র করে আমাদের গ্রামে সকাল থেকেই উৎসবমুখর পরিবেশ

বিরাজ করছে। বড় বড় অনুষ্ঠানেও এত লোকজন আসে না। পশ্চিম টাঙ্গাইলে এই প্রথম হেলিকপ্টারে করে কেউ বিয়ে করল।

নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা টাঙ্গাইল সদর থানার এসআই মো. মনিরুজ্জামান মুন্সি বলেন, বরপক্ষ নিরাপত্তার জন্য এক সপ্তাহ আগে আবেদন করেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

ছেলে জন্মের পর থেকে বাবার ইচ্ছা ছিল হেলিকপ্টারে করে ছেলের বউ আনবেন। বিষয়টি প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনরা শোনার পর বিশ্বাস করেননি।

বাবার সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই রোববার বিকালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল বাউসাইদ গ্রামে হেলিকপ্টারে করে নববধূ নিয়ে আসেন কৃষক রাসেল মিয়া। এই বিয়েকে কেন্দ্র করে বিয়েবাড়িসহ আশপাশের গ্রামজুড়ে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। ছিল বাদ্যের ঝঙ্কার, হরেকরকম খাবারের আয়োজন।

সরেজমিন জানা যায়, বাউসাইদ গ্রামের কৃষক মহির উদ্দিনের একমাত্র ছেলে রাসেল মিয়ার সঙ্গে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামের মুন্নু খার মেয়ে মিতু আক্তারের আড়াই মাস আগে কাবিন হয়। রাসেল মিয়া কৃষিকাজ করেন। দুপুরে ছেলের বাড়ির পাশে কৃষিজমিতে হেলিকপ্টার আসে। পরে বর হেলিকপ্টার

নিয়ে বাটাজোর যান। সেখান থেকে কনে নিয়ে বিকালে ফিরে আসেন। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

বরযাত্রীরা দুটি প্রাইভেটকার ও একটি বাসে চড়ে কনের বাড়ি গেলেও বর যান হেলিকপ্টারে চড়ে। প্রত্যন্ত গ্রামে হেলিকপ্টার আসাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ; যা প্রশংসা কুড়িয়েছে আগত সবার। ব্যতিক্রমধর্মী এ আয়োজন সামাল দিতে উপস্থিত ছিল স্থানীয় পুলিশের টিম।

৮০ বছরের বৃদ্ধ জিন্নাত আলী বলেন, আমার বয়সেও এমন বিয়ে দেখিনি। হেলিকপ্টারে করে বউ আনে এটা প্রথম দেখলাম। রাসেল এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

কনে মিতু আক্তার বলেন, আমি কখনো কল্পনাও করিনি আমার বর আমাকে হেলিকপ্টারে করে তার বাড়ি নিয়ে যাবে। এতে আমি খুব খুশি।

বর রাসেল মিয়া বলেন, বাবার

ইচ্ছা পূরণ করতেই হেলিকপ্টারটি ভাড়া আনা হয়। টাঙ্গাইল থেকে রওনা দিয়ে ময়মনসিংহের বাটাজোর থেকে নববধূকে নিয়ে ফিরে এসেছি।

রাসেলের বাবা মহিউদ্দিন বলেন, আমার অনেক সাধনার পর ছেলেসন্তান হয়েছে। তারপর থেকে আমার ইচ্ছা ছিল ছেলেকে হেলিকপ্টারে করে বিয়ে করাব। সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই এ আয়োজন। এক লাখ ৬০ হাজার টাকা দিয়ে দুই ঘণ্টার জন্য হেলিকপ্টারটি ভাড়া করা হয়েছিল। হেলিকপ্টারটি চারজন যাত্রী বহন করেছে।

ছেলের চাচা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর সালাউদ্দিন হায়দার বলেন, অজপাড়া গাঁয়ে হেলিকপ্টার এটিও ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি অংশ। আমি অনেক বিয়ের বরযাত্রী গিয়েছি তবে আজকের মতো এত আনন্দ পাইনি। হেলিকপ্টারে চড়ে এ বিয়েকে কেন্দ্র করে আমাদের গ্রামে সকাল থেকেই উৎসবমুখর পরিবেশ

বিরাজ করছে। বড় বড় অনুষ্ঠানেও এত লোকজন আসে না। পশ্চিম টাঙ্গাইলে এই প্রথম হেলিকপ্টারে করে কেউ বিয়ে করল।

নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা টাঙ্গাইল সদর থানার এসআই মো. মনিরুজ্জামান মুন্সি বলেন, বরপক্ষ নিরাপত্তার জন্য এক সপ্তাহ আগে আবেদন করেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

যে কারণে হেলিকপ্টারে করে বউ আনলেন কৃষক রাসেল

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৬ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৭:৫৭ 92 ভিউ
ছেলে জন্মের পর থেকে বাবার ইচ্ছা ছিল হেলিকপ্টারে করে ছেলের বউ আনবেন। বিষয়টি প্রতিবেশী ও আত্মীয়স্বজনরা শোনার পর বিশ্বাস করেননি। বাবার সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই রোববার বিকালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পোড়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল বাউসাইদ গ্রামে হেলিকপ্টারে করে নববধূ নিয়ে আসেন কৃষক রাসেল মিয়া। এই বিয়েকে কেন্দ্র করে বিয়েবাড়িসহ আশপাশের গ্রামজুড়ে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। ছিল বাদ্যের ঝঙ্কার, হরেকরকম খাবারের আয়োজন। সরেজমিন জানা যায়, বাউসাইদ গ্রামের কৃষক মহির উদ্দিনের একমাত্র ছেলে রাসেল মিয়ার সঙ্গে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামের মুন্নু খার মেয়ে মিতু আক্তারের আড়াই মাস আগে কাবিন হয়। রাসেল মিয়া কৃষিকাজ করেন। দুপুরে ছেলের বাড়ির পাশে কৃষিজমিতে হেলিকপ্টার আসে। পরে বর হেলিকপ্টার

নিয়ে বাটাজোর যান। সেখান থেকে কনে নিয়ে বিকালে ফিরে আসেন। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। বরযাত্রীরা দুটি প্রাইভেটকার ও একটি বাসে চড়ে কনের বাড়ি গেলেও বর যান হেলিকপ্টারে চড়ে। প্রত্যন্ত গ্রামে হেলিকপ্টার আসাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ; যা প্রশংসা কুড়িয়েছে আগত সবার। ব্যতিক্রমধর্মী এ আয়োজন সামাল দিতে উপস্থিত ছিল স্থানীয় পুলিশের টিম। ৮০ বছরের বৃদ্ধ জিন্নাত আলী বলেন, আমার বয়সেও এমন বিয়ে দেখিনি। হেলিকপ্টারে করে বউ আনে এটা প্রথম দেখলাম। রাসেল এলাকায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। কনে মিতু আক্তার বলেন, আমি কখনো কল্পনাও করিনি আমার বর আমাকে হেলিকপ্টারে করে তার বাড়ি নিয়ে যাবে। এতে আমি খুব খুশি। বর রাসেল মিয়া বলেন, বাবার

ইচ্ছা পূরণ করতেই হেলিকপ্টারটি ভাড়া আনা হয়। টাঙ্গাইল থেকে রওনা দিয়ে ময়মনসিংহের বাটাজোর থেকে নববধূকে নিয়ে ফিরে এসেছি। রাসেলের বাবা মহিউদ্দিন বলেন, আমার অনেক সাধনার পর ছেলেসন্তান হয়েছে। তারপর থেকে আমার ইচ্ছা ছিল ছেলেকে হেলিকপ্টারে করে বিয়ে করাব। সেই ইচ্ছা পূরণ করতেই এ আয়োজন। এক লাখ ৬০ হাজার টাকা দিয়ে দুই ঘণ্টার জন্য হেলিকপ্টারটি ভাড়া করা হয়েছিল। হেলিকপ্টারটি চারজন যাত্রী বহন করেছে। ছেলের চাচা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর সালাউদ্দিন হায়দার বলেন, অজপাড়া গাঁয়ে হেলিকপ্টার এটিও ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি অংশ। আমি অনেক বিয়ের বরযাত্রী গিয়েছি তবে আজকের মতো এত আনন্দ পাইনি। হেলিকপ্টারে চড়ে এ বিয়েকে কেন্দ্র করে আমাদের গ্রামে সকাল থেকেই উৎসবমুখর পরিবেশ

বিরাজ করছে। বড় বড় অনুষ্ঠানেও এত লোকজন আসে না। পশ্চিম টাঙ্গাইলে এই প্রথম হেলিকপ্টারে করে কেউ বিয়ে করল। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা টাঙ্গাইল সদর থানার এসআই মো. মনিরুজ্জামান মুন্সি বলেন, বরপক্ষ নিরাপত্তার জন্য এক সপ্তাহ আগে আবেদন করেন। সেই পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ