ঢাকা, Sunday 24 October 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

মুরগি পেঁয়াজ ও ভোজ্যতেলের দাম বেড়েছে

প্রকাশিত : 09:18 AM, 13 March 2021 Saturday
94 বার পঠিত

রাছেল রানা | বগুডা

রাজধানীর নিত্যপণ্যের বাজারে ফের বাড়ল মুরগি পেঁয়াজ ও ভোজ্যতেলের দাম। আগের বেড়ে যাওয়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের চাল। আটা, ডাল, চিনি, ছোলা ও গরু-খাসির মাংসের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। আদার দাম কমেছে। স্থিতিশীল রয়েছে সবজির বাজার। চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে লেবু। কিছুটা দাম বেড়েছে মাছের।

শুক্রবার রাজধানীর কাওরান বাজার, ফকিরাপুল বাজার, মুগদা বড় বাজার, যাত্রাবাড়ী বাজার, গোড়ান কাঁচা বাজার এবং খিলগাঁও সিটি কর্পোরেশন বাজার ঘুরে নিত্যপণ্যের দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে। এছাড়া সরকারী বাজার নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা (ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ-টিসিবি) ঢাকার অধিকাংশ নিত্যপণ্যের বাজারে ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়ার তথ্য দিয়েছে। রোজা সামনে রেখে নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাচ্ছে

বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। দ্রুত দাম কমানোর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হলে শব-ই-বরাতের আগে বাজার পরিস্থিতি নাগালের বাইরে চলে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জানা গেছে, নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার পেছনে অসাধু সিন্ডিকেট ব্যবসায়ী, ভোগ্যপণ্যের আমদানিকারক এবং পাইকারি ব্যবসায়ীরা সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। গত কয়েক বছর ধরে লক্ষ্য করা যাচ্ছে, রোজার একমাস আগে বেশিরভাগ নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দেয়া হয়। রোজার সময় সেই বাড়তি দামেই পণ্য বিক্রি করেন ব্যবসায়ীরা। এতে করে সাধারণ ভোক্তাদের কষ্ট বাড়লেও অসাধু ব্যবসায়ীদের পকেট ভারি হয়। বাজার ঘুরে দেখা যায়, এ মুহূর্তে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের মুরগি। নিত্যপণ্যের বাজারে মূলত চার প্রকারের

মুরগি বিক্রি হয়। এর মধ্যে রয়েছে দেশী, পাকিস্তানি কক, লেয়ার ও ব্রয়লার। মাসখানেক আগে দেশী মুরগির কেজি ছিল ৪০০ থেকে ৪২০ টাকা। কয়েক দফায় দাম বেড়ে এখন দেশী মুরগির কেজি হয়েছে ৫০০ থেকে ৫২০ টাকা। অর্থাৎ দেশী মুরগির দাম কেজিতে বেড়ে গেছে ১০০ টাকার ওপরে।

রাজধানীর বাজারে এখন সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয় পাকিস্তানী কক মুরগি। মাসখানেক আগে এ মুরগির দাম ছিল প্রতিকেজি ১৮০ থেকে ২০০ টাকা। অথচ রাজধানীর বাজারে কক মুরগি ৩০০-৩২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে। কোন কোন বাজারে ৩৫০ টাকায়ও বিক্রি হয়েছে। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে এই কক মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ১৫০

থেকে ১৭০ টাকা পর্যন্ত। গরির মানুষের পুষ্টির প্রধান উৎস বলা হয় ব্রয়লার মুরগিকে। কারণ সবচেয়ে কম দাম হওয়ায় গরিব মানুষ পরিবারের মাংসের চাহিদা মেটান এই ব্রয়লার মুরগির মাংস খেয়ে। গত এক মাস ধরে ব্রয়লার মুরগিও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগিতে ৫০ টাকা দাম বেড়ে বাজারে এখন ১৬০-১৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT