ভূস্তরের কাঠামো ভেঙ্গে তছনছ হচ্ছে ॥ বিপর্যয়ের আশঙ্কা – বর্ণমালা টেলিভিশন

ভূস্তরের কাঠামো ভেঙ্গে তছনছ হচ্ছে ॥ বিপর্যয়ের আশঙ্কা

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ | ৯:০৩ 45 ভিউ
ভূ-উপরিভাগ এবং জলাশয়ের ভেতরে মাচাংয়ে ইঞ্জিন বসিয়ে সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে ভূ-অভ্যন্তরের কাঠামো ভেঙ্গে তছনছ করে মহাবিপর্যের দিকে এগিয়ে নেয়ার অশুভ প্রক্রিয়া বন্ধ করা যাচ্ছেই না। হালে নদীর ভেতরে বিশেষ ব্যবস্থায় উচ্চশক্তির শ্যালো ইঞ্জিন বসিয়ে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে। আপাত দৃষ্টিতে মনে হবে নদী খননে গভীরতা বাড়ছে। বাস্তবতা হলো, নদীর বেড লেভেল বা তলদেশের নিচের কাঠামো এলোমেলা হয়ে প্রাকৃতিক বিপর্যয় টেনে আনার পাশাপাশি নদীর পানি কমে দূষিত হয়ে অক্সিজেনের মাত্রা কমে আসছে। মুখ থুবড়ে পড়েছে জীববৈচিত্র্য। পরিবেশ বিজ্ঞানীগণ বিষয়টির ভয়াবহতা সম্পর্কে নানাভাবে জানান দিচ্ছেন। স্থানীয় প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদফতর মাঝেমধ্যে অপততপরতা বন্ধে মাঠে নামে। শ্যালো ইঞ্জিন ও বালি তোলার উপকরণ জব্দ করে পুড়িয়ে দেন। কয়েকদিন বন্ধ থাকে। তারপর অবস্থা যে তিমিরে ছিল, সেই তিমিরেই রয়ে যায়। গণমাধ্যম সরব হলে প্রশাসন ততপর হয়। তারপর থেমে যায়। পরিবেশবাদীরা মাঠে নেমে মানববন্ধন করে। ফের থেমে যায়। অবস্থা যে তিমিরে ছিল, সেই তিমিরেই রয়ে যায়। এই খেলা এভাবেই নিরন্তর চলছে। মাটির তলদেশের উদ্বেগজনক এই পরিস্থিতি উত্তরাঞ্চল ছাড়িয়ে পূর্ব দক্ষিণাঞ্চলেও ঢুকে পড়েছে অনেক আগেই। খোঁজ-খবর করে জানা যায়, ৯০ এর দশকে যান্ত্রিক শক্তি প্রয়োগ করে মাটির নিচে থেকে বালি উত্তালনের পালা প্রথম শুরু হয় বগুড়ায়। পরে তা জয়পুরহাট-নওগাঁ হয়ে ছড়িয়ে পড়ে দেশজুড়ে। বগুড়া অঞ্চলের মাটির নিচ থেকে অধিক পরিমাণ বালি উত্তোলিত হওয়ায় ভূকম্পনপ্রবণ এলাকা জরিপে বগুড়া ওপরের দিকে ওঠে এসেছে। মাটির তলদেশে কতটা ভ্যাকুয়ামের সৃষ্টি হয়েছে- তা পরীক্ষা করা হয়নি। তবে খালি চোখে দেখা যায় বগুড়ার পূর্ব ও পশ্চিমাংশের অনেক এলাকা সমতল থেকে কিছুটা দেবে গিয়েছে। বগুড়ার চেলাপাড়া সাবগ্রাম এলাকায় গেলে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে। বগুড়া শহরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া করতোয়া নদীর অনেক স্থানে বালি উত্তোলিত হচ্ছে। বালি উত্তোলনকারীরা এতটাই বেপরোয়া, কোন এলাকার বালি কে তুলবে এমন আধিপত্য বিস্তারে সন্ত্রাসী কর্মকা- চলে। মাঝে মধ্যেই বালি উত্তোলনকারীদের মধ্যে বিরোধের জের ধরে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। বর্তমানে ধুনট এলাকায় বালি উত্তোলনকারীদের অপততপরতা এতটাই বেড়েছে যে, দিনে প্রকাশ্যে উচ্চশক্তির কয়েকটি শ্যালো ইঞ্জিন চালিয়ে নদীর তলদেশ থেকে চিকন বালি উত্তোলিত হচ্ছে। নির্দিষ্ট সময় অন্তর ট্রাকে করে বালি চলে যাচ্ছে বালি মহালে। সূত্র জানায়, নদী তীরের বালি উত্তোলন শেষ হয়ে গেলে নৌকা করে ভেতরে গিয়ে ড্রাম সেটিং পদ্ধতিতে শ্যালো ইঞ্জিন বসানো হয়। তারপর ৪ থেকে ৬ ইঞ্চি ব্যাসার্ধের পাইপ ড্রিলিং করে তলদেশের গভীরে যতটা পারা যায় প্রবেশ করিয়ে সর্বোচ্চ শক্তি প্রয়োগে টেনে আনা হয়। উত্তোলিত বালি প্রথমে নৌকায় পারাপার করে পরে বালি মহালে নিয়ে যাওয়া হয়। আবার নদীর ভেতরে পাইপ নিয়ে যেতে গ্যাস পাইপের মতো প্লাস্টিকের পাইপ পানির ওপর দিয়ে ভাসিয়ে ভেতরে নেয়া হয়। পুরো প্রক্রিয়াটি প্রকৌশল মেধার মতো সাধারণ মানুষরাই করে। একাধিক সূত্র জানায়, মাঠপর্যায়ের জনপ্রতিনিধি থেকে প্রশাসনের লোকজন বিষয়টি সম্পর্কে অবগত। অনেক স্থানে কোন রথি-মহারথি, রাঘব বোয়ালও জড়িত। এরপরও মাঝে মধ্যে প্রশাসন অবৈধভাবে বালি উত্তোলনকারীসহ ইঞ্জিন ও যন্ত্রপাতি আটক করে। অনেক সময় পুড়িয়ে ফেলা হয়। কয়েক দিন বন্ধ থাকে। ফের শুরু হয় বালি উত্তোলন। বগুড়া অঞ্চলের কয়েক ব্যক্তি বললেন, বালি উত্তোলনকারীরা এতটাই ধুরন্ধর যে, তাদের কাছে থাকে উত্তোলনের কয়েকটি সেট। এক সেট আটক হলে দিন কয়েক পর আরেক সেটে কাজ শুরু করে। বালি উত্তোলনের ফলে মাটির নিচের কাঠামোর কতটা পরিবর্তন হচেছ- এই প্রশ্নে এক কর্মকর্তা বললেন, ভূ-গর্ভের সাজানো স্তর এখন ভেঙ্গে তছনছ হয়ে গেছে। প্রতিটি স্তর ভেঙ্গেছে। এলোমেলো হয়ে ফাঁপা অবস্থায় কোনভাবে সমতল টিকে আছে। এমনও দেখা গেছে, ঘনবসতি এলাকার বাসভবন ও অবকাঠামো স্থাপনার কাছেই উচ্চশক্তির ড্রিলিং করে মাটির নিচে থেকে বালি তোলা হচ্ছে। একজন মৃত্তিকা বিজ্ঞানী বলেন, ভূ-কম্পনে রিখটার স্কেলের মাঝারি মাত্রাতেই ওইসব এলাকা দেবে গিয়ে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব