ভিডিও ভাইরাল, উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এজাহার - বর্ণমালা টেলিভিশন

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদেরর বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে নাচোল থানায় বাদী হয়ে এজাহারটি দায়ের করেন নাচোল পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম ঝাইটন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা। যদিও এখন পর্যন্ত এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মাদক সম্রাট ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার হওয়ার কারণে সাধারণ মানুষ তাকে ভয় পায়। আর মানুষের এ দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে আসা নারীরা ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার হয়।

সম্প্রতি চেয়ারম্যানের নারী

কেলেঙ্কারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওর বিষয়ে উল্লেখ করে এজাহারে বলা হয়, শিক্ষা বিষয়ক আর্থিক অনুদানের জন্য এক নারী শিক্ষার্থী তার পরিষদ কার্যালয়ে গেলে সে তাকে নানাবিধ প্রলোভনের ফাঁদে ফেলে যৌন হয়রানি এবং ভিডিও ধারণ করে। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। আব্দুল কাদেরের অনৈতিক সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর এমন জঘন্য কাজের প্রতিবাদ জানান জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ। তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণের এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।

এজাহার সূত্রে আরও জানা গেছে, চেয়ারম্যানের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী ও তার পরিবার চরম অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করছে। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়ায় ভুক্তভোগী ও তার পরিবারকে নানারকম হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। তাই ভুক্তভোগীর পরিবার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করতেও ভয় পাচ্ছে। সমাজ ও সরকারের সুনাম ও নারী সমাজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বাদী আনারুল ইসলাম ঝাইটন।

এজাহার দায়েরের সময় থানায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হুমায়নসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ও মানবাধিকারকর্মীরা।

এদিকে, এজাহার দায়ের হলেও এখন পর্যন্ত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়নি। এ বিষয়ে নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা

জানান, ভুক্তভোগী ও তার পরিবার থানায় অভিযোগ বা মামলা দায়ের না করায় আনারুল ইসলাম ঝাইটনের এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি। ভুক্তভোগী বা তার নিকট আত্মীয় মামলা না করলে আপাতত এটি রেকর্ড হবে না। কিন্তু কেন হবেনা? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি ঊর্ধ্বতনদের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন প্রতিবেদককে।

তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নাচোল উপজেলা শাখার সভাপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান বুলেট জানান, নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ ধরনের অপরাধ আমলযোগ্য, অমীমাংসাযোগ্য ও অজামিনযোগ্য হওয়ায় যে কেউ বাদী হয়ে অপরাধের বিচার চাইতে পারেন। এ ক্ষেত্রে এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করে তদন্তপূর্বক আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা

নেওয়া ওসির অথবা পুলিশের কর্তব্য।

এই মানবাধিকার কর্মী ও আইনজীবী আরও বলেন, ‘এজাহারের বক্তব্য অনুযায়ী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারাসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও পর্নোগ্রাফি আইনে এজাহারটি মামলাযোগ্য। যেখানে ভুক্তভোগী বা তার নিকটতম আত্মীয় বাদী হতে হবে এমন কোনও বাধ্যবাধকতা আইনে নেই। বরং এ ঘটনায় বাংলাদেশের যেকোনও নাগরিক এমনকি পুলিশ নিজেও বাদী হয়ে মামলা করতে পারেন।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদেরর বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে নাচোল থানায় বাদী হয়ে এজাহারটি দায়ের করেন নাচোল পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম ঝাইটন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা। যদিও এখন পর্যন্ত এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মাদক সম্রাট ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার হওয়ার কারণে সাধারণ মানুষ তাকে ভয় পায়। আর মানুষের এ দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে আসা নারীরা ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার হয়।

সম্প্রতি চেয়ারম্যানের নারী

কেলেঙ্কারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওর বিষয়ে উল্লেখ করে এজাহারে বলা হয়, শিক্ষা বিষয়ক আর্থিক অনুদানের জন্য এক নারী শিক্ষার্থী তার পরিষদ কার্যালয়ে গেলে সে তাকে নানাবিধ প্রলোভনের ফাঁদে ফেলে যৌন হয়রানি এবং ভিডিও ধারণ করে। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। আব্দুল কাদেরের অনৈতিক সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর এমন জঘন্য কাজের প্রতিবাদ জানান জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ। তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণের এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ।

এজাহার সূত্রে আরও জানা গেছে, চেয়ারম্যানের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী ও তার পরিবার চরম অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করছে। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়ায় ভুক্তভোগী ও তার পরিবারকে নানারকম হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। তাই ভুক্তভোগীর পরিবার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করতেও ভয় পাচ্ছে। সমাজ ও সরকারের সুনাম ও নারী সমাজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বাদী আনারুল ইসলাম ঝাইটন।

এজাহার দায়েরের সময় থানায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হুমায়নসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ও মানবাধিকারকর্মীরা।

এদিকে, এজাহার দায়ের হলেও এখন পর্যন্ত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়নি। এ বিষয়ে নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা

জানান, ভুক্তভোগী ও তার পরিবার থানায় অভিযোগ বা মামলা দায়ের না করায় আনারুল ইসলাম ঝাইটনের এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি। ভুক্তভোগী বা তার নিকট আত্মীয় মামলা না করলে আপাতত এটি রেকর্ড হবে না। কিন্তু কেন হবেনা? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি ঊর্ধ্বতনদের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন প্রতিবেদককে।

তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নাচোল উপজেলা শাখার সভাপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান বুলেট জানান, নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ ধরনের অপরাধ আমলযোগ্য, অমীমাংসাযোগ্য ও অজামিনযোগ্য হওয়ায় যে কেউ বাদী হয়ে অপরাধের বিচার চাইতে পারেন। এ ক্ষেত্রে এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করে তদন্তপূর্বক আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা

নেওয়া ওসির অথবা পুলিশের কর্তব্য।

এই মানবাধিকার কর্মী ও আইনজীবী আরও বলেন, ‘এজাহারের বক্তব্য অনুযায়ী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারাসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও পর্নোগ্রাফি আইনে এজাহারটি মামলাযোগ্য। যেখানে ভুক্তভোগী বা তার নিকটতম আত্মীয় বাদী হতে হবে এমন কোনও বাধ্যবাধকতা আইনে নেই। বরং এ ঘটনায় বাংলাদেশের যেকোনও নাগরিক এমনকি পুলিশ নিজেও বাদী হয়ে মামলা করতে পারেন।’

ভিডিও ভাইরাল, উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এজাহার

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২ ডিসেম্বর, ২০২১ | ১১:১২ 85 ভিউ
নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের -- ডোনেট বাংলাদেশ
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদেরর বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে। বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে নাচোল থানায় বাদী হয়ে এজাহারটি দায়ের করেন নাচোল পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম ঝাইটন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা। যদিও এখন পর্যন্ত এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি। এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মাদক সম্রাট ও সন্ত্রাসীদের গডফাদার হওয়ার কারণে সাধারণ মানুষ তাকে ভয় পায়। আর মানুষের এ দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে আসা নারীরা ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার হয়। সম্প্রতি চেয়ারম্যানের নারী

কেলেঙ্কারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওর বিষয়ে উল্লেখ করে এজাহারে বলা হয়, শিক্ষা বিষয়ক আর্থিক অনুদানের জন্য এক নারী শিক্ষার্থী তার পরিষদ কার্যালয়ে গেলে সে তাকে নানাবিধ প্রলোভনের ফাঁদে ফেলে যৌন হয়রানি এবং ভিডিও ধারণ করে। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। আব্দুল কাদেরের অনৈতিক সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর এমন জঘন্য কাজের প্রতিবাদ জানান জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগ। তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণের এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। এজাহার সূত্রে আরও জানা গেছে, চেয়ারম্যানের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী ও তার পরিবার চরম অনিশ্চয়তায় দিনাতিপাত করছে। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়ায় ভুক্তভোগী ও তার পরিবারকে নানারকম হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। তাই ভুক্তভোগীর পরিবার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করতেও ভয় পাচ্ছে। সমাজ ও সরকারের সুনাম ও নারী সমাজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন বাদী আনারুল ইসলাম ঝাইটন। এজাহার দায়েরের সময় থানায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হুমায়নসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী ও মানবাধিকারকর্মীরা। এদিকে, এজাহার দায়ের হলেও এখন পর্যন্ত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়নি। এ বিষয়ে নাচোল থানার ওসি সেলিম রেজা

জানান, ভুক্তভোগী ও তার পরিবার থানায় অভিযোগ বা মামলা দায়ের না করায় আনারুল ইসলাম ঝাইটনের এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়নি। ভুক্তভোগী বা তার নিকট আত্মীয় মামলা না করলে আপাতত এটি রেকর্ড হবে না। কিন্তু কেন হবেনা? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি ঊর্ধ্বতনদের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন প্রতিবেদককে। তবে এ বিষয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন নাচোল উপজেলা শাখার সভাপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান বুলেট জানান, নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ ধরনের অপরাধ আমলযোগ্য, অমীমাংসাযোগ্য ও অজামিনযোগ্য হওয়ায় যে কেউ বাদী হয়ে অপরাধের বিচার চাইতে পারেন। এ ক্ষেত্রে এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করে তদন্তপূর্বক আসামির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা

নেওয়া ওসির অথবা পুলিশের কর্তব্য। এই মানবাধিকার কর্মী ও আইনজীবী আরও বলেন, ‘এজাহারের বক্তব্য অনুযায়ী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারাসহ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও পর্নোগ্রাফি আইনে এজাহারটি মামলাযোগ্য। যেখানে ভুক্তভোগী বা তার নিকটতম আত্মীয় বাদী হতে হবে এমন কোনও বাধ্যবাধকতা আইনে নেই। বরং এ ঘটনায় বাংলাদেশের যেকোনও নাগরিক এমনকি পুলিশ নিজেও বাদী হয়ে মামলা করতে পারেন।’

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ