ঢাকা, Wednesday 22 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ভারতে ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে টিকাদান

প্রকাশিত : 10:00 AM, 11 January 2021 Monday
77 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

সংক্রমণের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে নাজুক অবস্থায় পড়া ভারতে আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে করোনার টিকাদান কর্মসূচী শুরু হচ্ছে। শুরুতে স্বাস্থ্যকর্মীসহ করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামনের সারিতে থাকা তিন কোটি কর্মীকে টিকার আওতায় আনার লক্ষ্য ঠিক করেছে দেশটির সরকার। ভারত সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই টিকাদান পরিকল্পনা অনুমোদন করেছেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৩৫ কোটি জনসংখ্যার দেশ ভারতের ৩০ কোটি মানুষকে আগামী ৬ মাসের মধ্যে বিনামূল্যে টিকা দেয়া হবে। এছাড়া সারাবিশ্বে রবিবার পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৯ কোটি ৩ লাখ ৭২ হাজার ১১৫ জন। মারা গেছে ১৯ লাখ ৩৯ হাজার ১০৩ জন। সুস্থ হয়েছে

৬ কোটি ৪৬ লাখ ৩৬ হাজার ৩৭৫ জন। এখনও হাসপাতালে ভর্তি আছে দুই কোটি ৩৬ লাখ ৬৪ হাজার ১২৫ জন। যাদের মধ্যে এক লাখ ৮ হাজার ৫১৮ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বের ৭ লাখ ২৬ হাজার ৮৯৬ জনের নতুন করে করোনা সংক্রমণ হয়েছে। একদিনে মারা গেছে ১২ হাজার ৪৯১ জন। খবর বিবিসি, সিএনএন, আলজাজিরা, রয়টার্স ও ওয়ার্ল্ডোমিটার্সের। ভারতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ইতোমধ্যে এক কোটি চার লাখ ৩১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে, যা যুক্তরাষ্ট্রের পর বিশ্বে সবচেয়ে বেশি। আরও ১৮ হাজার ২২২ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। ভারতের ওষুধ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইতোমধ্যে করোনার দুটি

টিকার অনুমোদন দিয়েছে। এর মধ্যে অক্সফোর্ড-এ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা ভারতে উৎপাদন এবং কোভিশিল্ড নামে বাজারজাত করবে সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া। আর ভারতীয় কোম্পানি ভারত বায়োটেক তাদের টিকা বাজারজাত করবে কোভ্যাক্সিন নামে। স্বাস্থ্যকর্মী ও সামনের সারিতে থাকা কর্মীদের টিকা দেয়ার পর পঞ্চাশোর্ধ নাগরিক এবং ৫০ এর কম বয়সীদের মধ্যে যাদের কো-মরবিডিটি (হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, কিডনি জটিলতা, ফুসফুসের রোগ ইত্যাদি দুরারোগ্য ব্যাধি) আছে, তাদের টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করেছে ভারত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ‘কো-উইন ভ্যাকসিন ডেলিভারি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ নামের একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মেরও অনুমোদন দিয়েছেন, যার মাধ্যমে টিকার মজুদ, সংরক্ষণের তাপমাত্রা এবং বিতরণ পরিস্থিতির তাৎক্ষণিক তথ্য পাওয়া যাবে।

টিকার চালান দ্রুত পাঠাতে

চিঠি ॥ভারত থেকে অক্সফোর্ড-এ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিড-১৯ টিকার চালান দ্রুত পাঠাতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ জানিয়ে চিঠি লিখেছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো। ব্রাজিলের স্থানীয় সময় শুক্রবার তার পাঠানো এ চিঠিটি প্রকাশ্যে আসে। বিশ্বের মধ্যে করোনার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রাণঘাতী প্রাদুর্ভাবকবলিত ব্রাজিলে দ্রুত টিকাদান কর্মসূচী শুরু করতে বোলসোনারোর ওপর বাড়তে থাকা চাপের মধ্যে তার প্রেস কার্যালয় চিঠিটি প্রকাশ করে। সমালোচকরা বলছেন, দক্ষিণ আমেরিকার অন্যান্য দেশের তুলনায় কোভিড-১৯ এর টিকা সংগ্রহ ও বিতরণে ব্রাজিল অনেকখানি পিছিয়ে পড়েছে। বোলসোনারোর সরকার কেন এ বিষয়ে আগে থেকে তৎপর হল না, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন তারা। মোদিকে পাঠানো চিঠিতে বোলসোনারো লিখেছেন, আমাদের জাতীয়

টিকাদান কর্মসূচী দ্রুত শুরু করতে, ভারতের টিকাদান কর্মসূচীকে বিঘ্নিত না করে যত দ্রুত সম্ভব ব্রাজিলে ২০ লাখ ডোজ পাঠালে খুশি হব। ব্রাজিলের কেন্দ্রীয় অর্থায়নে পরিচালিত ফিয়োক্রুজ বায়োমেডিক্যাল সেন্টার জানিয়েছে, তারা ব্রাজিলে এ্যাস্ট্রাজেনেকার কয়েক লাখ ডোজ টিকা উৎপাদনের প্রস্তুতি নিলেও এর জন্য প্রয়োজনীয় বেশ কিছু উপাদান এখনও তাদের হাতে পৌঁছায়নি। ব্রাজিলের এ বায়োমেডিক্যাল সেন্টার এরই মধ্যে ভারত থেকে যাওয়া এ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার জরুরী ব্যবহারে অনুমোদন চেয়েছে। ভারতের পাঠানো টিকা চলতি মাসের মাঝামাঝি ব্রাজিলে পৌঁছাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ট্রায়ালে টিকা নেয়ার পর স্বেচ্ছাসেবকের মৃত্যু ॥ করোনা টিকার ট্রায়ালে অংশ নেয়ার ১০ দিন পর মৃত্যু হলো ভারতের ভুপালের এক

স্বেচ্ছাসেবকের। করোনা ভ্যাকসিনের তৃতীয় দফার ট্রায়ালে টিকা নিয়েছিলেন ৪২ বছরের ওই ব্যক্তি। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে জানা গেছে, দীপক মারয়াই নামে ওই ব্যক্তির বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থা ভারত বায়োটেক। সংস্থার পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভুপালের ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে কার্ডিও রেসপিরেটরি ফেলিওরে। এর কারণ বিষক্রিয়া। মধ্যপ্রদেশের মেডিকো লিগ্যাল ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর ডাঃ অশোক শর্মা সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ময়নাতদন্ত হয়েছে, রিপোর্ট এলেই বোঝা যাবে মৃত্যুর আসল কারণ। ১২ ডিসেম্বর ভ্যাকসিন নেন দীপক। ১৭ ডিসেম্বর তিনি অসুস্থ বোধ করেন ও ২১ ডিসেম্বর তার মৃত্যু হয়।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT