বিনামূল্যের পাঠ্যবই: প্রাথমিকে অনিশ্চয়তা নেই, সংকট কাটেনি মাধ্যমিকে - বর্ণমালা টেলিভিশন

২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক স্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও সরবরাহ নিয়ে কোনও অনিশ্চয়তা নেই, তবে এখনও সংকট কাটেনি মাধ্যমিকে।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) পর্যন্ত প্রাথমিকের ৮ কোটির বেশি বই ছাপার কাজ শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ বই উপজেলায় পৌঁছেও গেছে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বই পৌঁছে যাবে।

অপরদিকে শুক্রবার পর্যন্ত মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবই ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশ এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছেছে মাত্র ৪৫ শতাংশ।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘বছরের প্রথম দিন সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে যাবে। মোট ১০ কোটির মতো বইয়ের মধ্যে আট কোটির বেশি বই ছাপা হয়েছে।

এ পর্যন্ত বই ছাপা হয়েছে ৮৫ শতাংশ। বেশিরভাগ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছেও গেছে।’

এ বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড-এনসিটিবি’র সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাথমিকের বই নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। যথাসময়ে শতভাগ বই পৌঁছে যাবে।’

মাঠ পর্যায়ে বিনামূল্যের পাঠ্যবই পৌঁছার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিকের ঢাকা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. ইফতেখার হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘অধিকাংশ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। আগামী ১ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা বই পাবে। কোনও সমস্যা নেই।’

সরকার ২০১০ সাল থেকে বছরের প্রথম দিন (১ জানুয়ারি) ‘বই উৎসব’ করে পাঠ্যবই বিতরণ করে আসছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে দ্বিতীয় দফার দরপত্র আহ্বানের কারণে দেরিতে বই ছাপার কাজ

শুরু হয়। ফলে সঠিক সময়ে বই ছাপা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। তাছাড়া ৫ থেকে ৬টি মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান আর্থিক সংকটে কাগজ কিনতে না পারায় মাধ্যমিকের বইয়ের ছাপার কাজ পিছিয়ে পড়ে। এসব কারণে মাধ্যমিকের শতভাগ বই ডিসেম্বরের আগে ছাপা শেষ করা এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হবে না বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

মাধ্যমিকের বই ছাপার বিষয়ে জানতে চাইলে এনসিটিবি সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) বলেন, ‘মাধ্যমিকের ৪৫ শতাংশ বই মাঠে পৌঁছে গেছে। আর ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশের মতো। বড় প্রেসগুলোতে কোনও সমস্যা নেই। ৫-৬টি প্রেস কাগজ কিনতে গিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। যারা দেরিতে শুরু করেছে, তাদের কাছ থেকে ৫০

শতাংশ বই নিতে হবে। এটুকু ছাড়া আর কোনও গ্যাপ নেই।’

এনসিটিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ শিক্ষাবর্ষে এবার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০ কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরের মোট বই ছাপা হচ্ছে ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৪ কপি। আর মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ২৪ কোটি ৭১ লাখ ৬৩ হাজার ২৫৬ হাজার কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে।

জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত স্কুলগুলোতে বই পৌঁছানো গেলেও এ বছর বই উৎসব হবে কিনা, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। গত ১৮ নভেম্বর সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘করোনার সংক্রমণের কারণে আগামী বছরও পাঠ্যপুস্তক উৎসব হয়তো

করা যাবে না। তবে উৎসব না হলেও বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পাবে।’

২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক স্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও সরবরাহ নিয়ে কোনও অনিশ্চয়তা নেই, তবে এখনও সংকট কাটেনি মাধ্যমিকে।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) পর্যন্ত প্রাথমিকের ৮ কোটির বেশি বই ছাপার কাজ শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ বই উপজেলায় পৌঁছেও গেছে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বই পৌঁছে যাবে।

অপরদিকে শুক্রবার পর্যন্ত মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবই ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশ এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছেছে মাত্র ৪৫ শতাংশ।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘বছরের প্রথম দিন সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে যাবে। মোট ১০ কোটির মতো বইয়ের মধ্যে আট কোটির বেশি বই ছাপা হয়েছে।

এ পর্যন্ত বই ছাপা হয়েছে ৮৫ শতাংশ। বেশিরভাগ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছেও গেছে।’

এ বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড-এনসিটিবি’র সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাথমিকের বই নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। যথাসময়ে শতভাগ বই পৌঁছে যাবে।’

মাঠ পর্যায়ে বিনামূল্যের পাঠ্যবই পৌঁছার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিকের ঢাকা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. ইফতেখার হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘অধিকাংশ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। আগামী ১ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা বই পাবে। কোনও সমস্যা নেই।’

সরকার ২০১০ সাল থেকে বছরের প্রথম দিন (১ জানুয়ারি) ‘বই উৎসব’ করে পাঠ্যবই বিতরণ করে আসছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে দ্বিতীয় দফার দরপত্র আহ্বানের কারণে দেরিতে বই ছাপার কাজ

শুরু হয়। ফলে সঠিক সময়ে বই ছাপা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। তাছাড়া ৫ থেকে ৬টি মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান আর্থিক সংকটে কাগজ কিনতে না পারায় মাধ্যমিকের বইয়ের ছাপার কাজ পিছিয়ে পড়ে। এসব কারণে মাধ্যমিকের শতভাগ বই ডিসেম্বরের আগে ছাপা শেষ করা এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হবে না বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

মাধ্যমিকের বই ছাপার বিষয়ে জানতে চাইলে এনসিটিবি সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) বলেন, ‘মাধ্যমিকের ৪৫ শতাংশ বই মাঠে পৌঁছে গেছে। আর ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশের মতো। বড় প্রেসগুলোতে কোনও সমস্যা নেই। ৫-৬টি প্রেস কাগজ কিনতে গিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। যারা দেরিতে শুরু করেছে, তাদের কাছ থেকে ৫০

শতাংশ বই নিতে হবে। এটুকু ছাড়া আর কোনও গ্যাপ নেই।’

এনসিটিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ শিক্ষাবর্ষে এবার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০ কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরের মোট বই ছাপা হচ্ছে ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৪ কপি। আর মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ২৪ কোটি ৭১ লাখ ৬৩ হাজার ২৫৬ হাজার কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে।

জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত স্কুলগুলোতে বই পৌঁছানো গেলেও এ বছর বই উৎসব হবে কিনা, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। গত ১৮ নভেম্বর সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘করোনার সংক্রমণের কারণে আগামী বছরও পাঠ্যপুস্তক উৎসব হয়তো

করা যাবে না। তবে উৎসব না হলেও বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পাবে।’

বিনামূল্যের পাঠ্যবই: প্রাথমিকে অনিশ্চয়তা নেই, সংকট কাটেনি মাধ্যমিকে

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৪ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৮:২৪ 70 ভিউ
২০২২ শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক স্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও সরবরাহ নিয়ে কোনও অনিশ্চয়তা নেই, তবে এখনও সংকট কাটেনি মাধ্যমিকে। শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) পর্যন্ত প্রাথমিকের ৮ কোটির বেশি বই ছাপার কাজ শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশিরভাগ বই উপজেলায় পৌঁছেও গেছে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বই পৌঁছে যাবে। অপরদিকে শুক্রবার পর্যন্ত মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যবই ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশ এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছেছে মাত্র ৪৫ শতাংশ। জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘বছরের প্রথম দিন সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে বই পৌঁছে যাবে। মোট ১০ কোটির মতো বইয়ের মধ্যে আট কোটির বেশি বই ছাপা হয়েছে।

এ পর্যন্ত বই ছাপা হয়েছে ৮৫ শতাংশ। বেশিরভাগ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছেও গেছে।’ এ বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড-এনসিটিবি’র সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম বলেন, ‘প্রাথমিকের বই নিয়ে কোনও সমস্যা নেই। যথাসময়ে শতভাগ বই পৌঁছে যাবে।’ মাঠ পর্যায়ে বিনামূল্যের পাঠ্যবই পৌঁছার বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিকের ঢাকা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো. ইফতেখার হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘অধিকাংশ বই উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। আগামী ১ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা বই পাবে। কোনও সমস্যা নেই।’ সরকার ২০১০ সাল থেকে বছরের প্রথম দিন (১ জানুয়ারি) ‘বই উৎসব’ করে পাঠ্যবই বিতরণ করে আসছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে দ্বিতীয় দফার দরপত্র আহ্বানের কারণে দেরিতে বই ছাপার কাজ

শুরু হয়। ফলে সঠিক সময়ে বই ছাপা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। তাছাড়া ৫ থেকে ৬টি মুদ্রণ প্রতিষ্ঠান আর্থিক সংকটে কাগজ কিনতে না পারায় মাধ্যমিকের বইয়ের ছাপার কাজ পিছিয়ে পড়ে। এসব কারণে মাধ্যমিকের শতভাগ বই ডিসেম্বরের আগে ছাপা শেষ করা এবং মাঠ পর্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হবে না বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। মাধ্যমিকের বই ছাপার বিষয়ে জানতে চাইলে এনসিটিবি সদস্য (পাঠ্যপুস্তক) অধ্যাপক মো. ফরহাদুল ইসলাম শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) বলেন, ‘মাধ্যমিকের ৪৫ শতাংশ বই মাঠে পৌঁছে গেছে। আর ছাপা হয়েছে ৬৫ শতাংশের মতো। বড় প্রেসগুলোতে কোনও সমস্যা নেই। ৫-৬টি প্রেস কাগজ কিনতে গিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। যারা দেরিতে শুরু করেছে, তাদের কাছ থেকে ৫০

শতাংশ বই নিতে হবে। এটুকু ছাড়া আর কোনও গ্যাপ নেই।’ এনসিটিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০২২ শিক্ষাবর্ষে এবার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০ কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে। এরমধ্যে প্রাথমিক স্তরের মোট বই ছাপা হচ্ছে ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৪ কপি। আর মাধ্যমিক স্তরের জন্য মোট ২৪ কোটি ৭১ লাখ ৬৩ হাজার ২৫৬ হাজার কপি পাঠ্যবই ছাপা হচ্ছে। জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত স্কুলগুলোতে বই পৌঁছানো গেলেও এ বছর বই উৎসব হবে কিনা, তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। গত ১৮ নভেম্বর সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘করোনার সংক্রমণের কারণে আগামী বছরও পাঠ্যপুস্তক উৎসব হয়তো

করা যাবে না। তবে উৎসব না হলেও বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীরা নতুন বই পাবে।’

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ