বিএনপি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে? - বর্ণমালা টেলিভিশন

বিএনপি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে- এমন প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটি মহল চায় বাংলাদেশে সবসময় একটা গোলমাল লেগেই থাকুক। তারা সবসময় এই চেষ্টাই করে।

তিনি বলেন, এই চেষ্টা তারা প্রতিনিয়ত করে যাচ্ছে। এই দেশে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি কে করেছে? কখন হয়েছে? বাংলাভাই কখন সৃষ্টি হয়েছে? এটা তো বিএনপির আমলেই। আমরা আসার পর জঙ্গিবাদ দমন করেছি। এখন তারা ইলেকশন করে না। এরা ইলেকশন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে? জিয়াউর রহমান কি ইলেকশন করেছিল?

গ্লাসগোতে কপ-২৬ সম্মেলন, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সে সদ্যসমাপ্ত সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বুধবার বিকাল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে

সমসাময়িক নানা বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার আমলে ২০০১ সালে বাংলাদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। বিএনপি ও জামায়াত হলো ক্ষমতার ছত্রছায়ার দল। ক্ষমতার বাইরে এদের টিকে থাকার কোনো সম্ভাবনা নেই। এদের শেকড়ে জোর নেই।

তিনি বলেন, পঁচাত্তর সাল থেকে ৯৬ সাল পর্যন্ত বা ২০০৯ সাল পর্যন্ত যারা ক্ষমতায় ছিল- তারা কেন পারেনি এই দেশকে উন্নত করতে? পারেনি একটি কারণে, তারা বাংলাদেশকে কখনো উন্নত করতে চায়নি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের যে উন্নয়ন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশের একটা সম্মান, একটা মর্যাদা- এটা তাদের কাছে ভালো লাগবে না। আপনারা তো দেখেছেন চলন্ত বাসে আগুন দিয়ে কীভাবে মানুষ পোড়ানো

হয়েছে? ২০০১ সালে কীভাবে মেয়েদের রেপ (ধর্ষণ) করা হয়েছে, কীভাবে মানুষের ঘরবাড়ি দখল হয়েছে। চোখ তুলে, হাত কেটে হত্যা করা হয়েছে। সেটা তো দেখেছেন? জিয়াউর রহমানের আমলে হয়তো অনেকে ছোট ছিলেন, দেখতে পারেননি। সেই সময় মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করা হয়েছে।’

২০১৪ সালে বিএনপি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার বিষয়টি তুলে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তারা ২০১৪ সালে নির্বাচন করবে না। নির্বাচন করবে কীভাবে? ইলেকশন করতে হলে যে সাংগঠনিক শক্তির দরকার হয় সেটা যখন নেই তখন তারা আমরা নির্বাচন করব না বলে নিজেদের দৈন্যতা প্রকাশ করে। তারা জানে, আওয়ামী লীগ তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়ন করেছে,

সাধারণ মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়, আওয়ামী লীগ জিতে যায়।

তিনি বলেন, সব অর্থ চুরি করে নিয়ে বিদেশে আরাম-আয়েশে দিন কাটাচ্ছে। সামান্য কিছু টাকা আমরা উদ্ধার করে এনেছি, সেটা খালেদা জিয়ার এক ছেলের টাকা। আর বাকিটা তো আছে সেখানে বাংলাদেশের মধ্যে কীভাবে গোলমালটা পাকাবে। আজ এখানে বোমা হামলা, কালকে ওখানে মন্দির ভাঙা, মন্দিরের ওপরে কুরআন শরিফ রাখা- এসব কারা নিয়ন্ত্রণ করে? তথ্য বের হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে- এমন প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটি মহল চায় বাংলাদেশে সবসময় একটা গোলমাল লেগেই থাকুক। তারা সবসময় এই চেষ্টাই করে।

তিনি বলেন, এই চেষ্টা তারা প্রতিনিয়ত করে যাচ্ছে। এই দেশে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি কে করেছে? কখন হয়েছে? বাংলাভাই কখন সৃষ্টি হয়েছে? এটা তো বিএনপির আমলেই। আমরা আসার পর জঙ্গিবাদ দমন করেছি। এখন তারা ইলেকশন করে না। এরা ইলেকশন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে? জিয়াউর রহমান কি ইলেকশন করেছিল?

গ্লাসগোতে কপ-২৬ সম্মেলন, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সে সদ্যসমাপ্ত সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বুধবার বিকাল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে

সমসাময়িক নানা বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার আমলে ২০০১ সালে বাংলাদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। বিএনপি ও জামায়াত হলো ক্ষমতার ছত্রছায়ার দল। ক্ষমতার বাইরে এদের টিকে থাকার কোনো সম্ভাবনা নেই। এদের শেকড়ে জোর নেই।

তিনি বলেন, পঁচাত্তর সাল থেকে ৯৬ সাল পর্যন্ত বা ২০০৯ সাল পর্যন্ত যারা ক্ষমতায় ছিল- তারা কেন পারেনি এই দেশকে উন্নত করতে? পারেনি একটি কারণে, তারা বাংলাদেশকে কখনো উন্নত করতে চায়নি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের যে উন্নয়ন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশের একটা সম্মান, একটা মর্যাদা- এটা তাদের কাছে ভালো লাগবে না। আপনারা তো দেখেছেন চলন্ত বাসে আগুন দিয়ে কীভাবে মানুষ পোড়ানো

হয়েছে? ২০০১ সালে কীভাবে মেয়েদের রেপ (ধর্ষণ) করা হয়েছে, কীভাবে মানুষের ঘরবাড়ি দখল হয়েছে। চোখ তুলে, হাত কেটে হত্যা করা হয়েছে। সেটা তো দেখেছেন? জিয়াউর রহমানের আমলে হয়তো অনেকে ছোট ছিলেন, দেখতে পারেননি। সেই সময় মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করা হয়েছে।’

২০১৪ সালে বিএনপি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার বিষয়টি তুলে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তারা ২০১৪ সালে নির্বাচন করবে না। নির্বাচন করবে কীভাবে? ইলেকশন করতে হলে যে সাংগঠনিক শক্তির দরকার হয় সেটা যখন নেই তখন তারা আমরা নির্বাচন করব না বলে নিজেদের দৈন্যতা প্রকাশ করে। তারা জানে, আওয়ামী লীগ তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়ন করেছে,

সাধারণ মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়, আওয়ামী লীগ জিতে যায়।

তিনি বলেন, সব অর্থ চুরি করে নিয়ে বিদেশে আরাম-আয়েশে দিন কাটাচ্ছে। সামান্য কিছু টাকা আমরা উদ্ধার করে এনেছি, সেটা খালেদা জিয়ার এক ছেলের টাকা। আর বাকিটা তো আছে সেখানে বাংলাদেশের মধ্যে কীভাবে গোলমালটা পাকাবে। আজ এখানে বোমা হামলা, কালকে ওখানে মন্দির ভাঙা, মন্দিরের ওপরে কুরআন শরিফ রাখা- এসব কারা নিয়ন্ত্রণ করে? তথ্য বের হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে?

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৮ নভেম্বর, ২০২১ | ১২:২১ 80 ভিউ
বিএনপি নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে- এমন প্রশ্ন রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটি মহল চায় বাংলাদেশে সবসময় একটা গোলমাল লেগেই থাকুক। তারা সবসময় এই চেষ্টাই করে। তিনি বলেন, এই চেষ্টা তারা প্রতিনিয়ত করে যাচ্ছে। এই দেশে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি কে করেছে? কখন হয়েছে? বাংলাভাই কখন সৃষ্টি হয়েছে? এটা তো বিএনপির আমলেই। আমরা আসার পর জঙ্গিবাদ দমন করেছি। এখন তারা ইলেকশন করে না। এরা ইলেকশন নিয়ে প্রশ্ন তোলে কীভাবে? জিয়াউর রহমান কি ইলেকশন করেছিল? গ্লাসগোতে কপ-২৬ সম্মেলন, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সে সদ্যসমাপ্ত সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বুধবার বিকাল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে

সমসাময়িক নানা বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন সরকারপ্রধান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার আমলে ২০০১ সালে বাংলাদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। বিএনপি ও জামায়াত হলো ক্ষমতার ছত্রছায়ার দল। ক্ষমতার বাইরে এদের টিকে থাকার কোনো সম্ভাবনা নেই। এদের শেকড়ে জোর নেই। তিনি বলেন, পঁচাত্তর সাল থেকে ৯৬ সাল পর্যন্ত বা ২০০৯ সাল পর্যন্ত যারা ক্ষমতায় ছিল- তারা কেন পারেনি এই দেশকে উন্নত করতে? পারেনি একটি কারণে, তারা বাংলাদেশকে কখনো উন্নত করতে চায়নি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের যে উন্নয়ন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশের একটা সম্মান, একটা মর্যাদা- এটা তাদের কাছে ভালো লাগবে না। আপনারা তো দেখেছেন চলন্ত বাসে আগুন দিয়ে কীভাবে মানুষ পোড়ানো

হয়েছে? ২০০১ সালে কীভাবে মেয়েদের রেপ (ধর্ষণ) করা হয়েছে, কীভাবে মানুষের ঘরবাড়ি দখল হয়েছে। চোখ তুলে, হাত কেটে হত্যা করা হয়েছে। সেটা তো দেখেছেন? জিয়াউর রহমানের আমলে হয়তো অনেকে ছোট ছিলেন, দেখতে পারেননি। সেই সময় মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করা হয়েছে।’ ২০১৪ সালে বিএনপি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার বিষয়টি তুলে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, তারা ২০১৪ সালে নির্বাচন করবে না। নির্বাচন করবে কীভাবে? ইলেকশন করতে হলে যে সাংগঠনিক শক্তির দরকার হয় সেটা যখন নেই তখন তারা আমরা নির্বাচন করব না বলে নিজেদের দৈন্যতা প্রকাশ করে। তারা জানে, আওয়ামী লীগ তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত উন্নয়ন করেছে,

সাধারণ মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দেয়, আওয়ামী লীগ জিতে যায়। তিনি বলেন, সব অর্থ চুরি করে নিয়ে বিদেশে আরাম-আয়েশে দিন কাটাচ্ছে। সামান্য কিছু টাকা আমরা উদ্ধার করে এনেছি, সেটা খালেদা জিয়ার এক ছেলের টাকা। আর বাকিটা তো আছে সেখানে বাংলাদেশের মধ্যে কীভাবে গোলমালটা পাকাবে। আজ এখানে বোমা হামলা, কালকে ওখানে মন্দির ভাঙা, মন্দিরের ওপরে কুরআন শরিফ রাখা- এসব কারা নিয়ন্ত্রণ করে? তথ্য বের হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ