বান্ধবী বদল জামা কাপড়ের মতো আর শারীরিক খিদে মেটাত পল্লবীর প্রেমিক সাগ্নিক?


অথর
বিনোদন সংবাদদাতা   বর্ণমালা টেলিভিশন
প্রকাশিত :১৫ জুলাই ২০২২, ১২:৫১ অপরাহ্ণ | পঠিত : 121 বার
0
বান্ধবী বদল জামা কাপড়ের মতো আর শারীরিক খিদে মেটাত পল্লবীর প্রেমিক সাগ্নিক?

বেআইনি কলসেন্টার চালিয়ে হিসাব বহির্ভূত টাকা উপার্জনের পথ বেছে নিয়ে জামা কাপড়ের মতো বান্ধবী বদলে গিয়েছেন সাগ্নিক চক্রবর্তী। শ্রীঘরে যাবার পর সাগ্নিককে নিয়ে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য এবার প্রকাশ্যে এল। মূলত, পুলিশি তদন্তে উঠে এসেছে, তাঁর বেআইনি কলসেন্টার চালিয়ে হিসাব বহির্ভূত টাকা আয়ের ঘটনা। সেখান থেকেই ৫০ লক্ষ টাকা দামের গাড়ি, হাতে কয়েক লক্ষ টাকার আংটি, শহরের নামীদামি নাইট ক্লাবে অহরহ আনাগোনা। তদন্তকারী অফিসারদের ধারণা, নিজের ভোগবিলাসের জন্য তো বটেই, এসব দেখিয়েই বান্ধবীদের আকৃষ্ট করতেন সাগ্নিক। শুধু পুলিশি তদন্ত নয় এবিষয় উপলব্ধি করে মনোবিদদেরা জানিয়েছেন, একের পর এক নারীসঙ্গই নাকি সাগ্নিক চক্রবর্তীকে সর্বনাশের অতলে ঠেলে দিয়েছে। এবং এই নারীসঙ্গের মাধ্যমেই নিজের অনিয়ন্ত্রিত খিদে মেটাতেন সাগ্নিক। মনোবিদরা বলছেন, বন্ধুত্ব করা নয়, এ ধরনের সম্পর্ক স্থাপনের মূল উদ্দেশ্য স্রেফ শারীরিক খিদে মেটানো। যে ধারণায় সিলমোহর দিচ্ছে সাগ্নিক-পল্লবীর গড়ফার ফ্ল্যাটের পরিচারিকা। জিজ্ঞাসাবাদে পরিচারিকা জানিয়েছেন, “বউদি(অভিনেত্রী পল্লবী দে) বেরিয়ে গেলেই অন্য নারীকে নিয়ে ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দিত সাগ্নিক।” এই অমোঘ যৌন লিপ্সাকে বিকৃত বলেই জানিয়েছেন ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের মনোরোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. সৃজিত ঘোষ। তাঁর কথায়, “এ ধরনের ছেলেরা একধরনের মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত। নারী দেখলেই নিজেকে আটকে রাখতে পারে না। ইমপালস বা আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। চোখমুখের ভাষাই বদলে যায়।”

No Comments