পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রবাসী খুন, মূল আসামি সিআইডির হাতে গ্রেফতার - বর্ণমালা টেলিভিশন

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী এলাকার বাসিন্দা ওমান প্রবাসী মাহবুব হোসেনকে (২৮) খুনের ঘটনায় প্রধান আসামি স্থানীয় যুবক সাদ্দাম হোসেনকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সিআইডি জানায়, ওমানফেরত মাহবুবের সঙ্গে স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

সর্বশেষ একটি মোবাইল নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে পরিকল্পনা অনুযায়ী মাহবুবকে কুপিয়ে খুন করে সাদ্দাম।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগ সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মুক্তা ধর।

তিনি জানান, সোনাইমুড়ী এলাকার মেরিপাড়া গ্রামের ওমান প্রবাসী মাহবুব করোনা মহামারির সময়ে দেশে ফিরে আসেন। এর পর থেকেই তার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ তৈরি হয় স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের।

কিছু দিন আগে একটি মোবাইল ফোন কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়।

এর জের ধরে গত ২৮ নভেম্বর সকাল ১০টার দিকে মাহবুবকে ফোনে ডেকে নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায় সাদ্দাম। এ ঘটনায় মৃতের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা করেন। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ছায়া তদন্তের ধারাবাহিকতায় প্রধান আসামি সাদ্দামকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

সাদ্দামকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এসএসপি মুক্তা ধর বলেন, মাহবুব করোনার আগে ওমানে কর্মরত ছিলেন। করোনায় চাকরিচ্যুত হয়ে তিনি দেশে ফিরে এলে সাদ্দামের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শত্রুতার সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় তাদের মধ্যে প্রচণ্ড বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এর

পরেই মাহবুবকে হত্যার পরিকল্পনা করে সাদ্দাম।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী এলাকার বাসিন্দা ওমান প্রবাসী মাহবুব হোসেনকে (২৮) খুনের ঘটনায় প্রধান আসামি স্থানীয় যুবক সাদ্দাম হোসেনকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সিআইডি জানায়, ওমানফেরত মাহবুবের সঙ্গে স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

সর্বশেষ একটি মোবাইল নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে পরিকল্পনা অনুযায়ী মাহবুবকে কুপিয়ে খুন করে সাদ্দাম।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগ সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মুক্তা ধর।

তিনি জানান, সোনাইমুড়ী এলাকার মেরিপাড়া গ্রামের ওমান প্রবাসী মাহবুব করোনা মহামারির সময়ে দেশে ফিরে আসেন। এর পর থেকেই তার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ তৈরি হয় স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের।

কিছু দিন আগে একটি মোবাইল ফোন কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়।

এর জের ধরে গত ২৮ নভেম্বর সকাল ১০টার দিকে মাহবুবকে ফোনে ডেকে নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায় সাদ্দাম। এ ঘটনায় মৃতের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা করেন। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ছায়া তদন্তের ধারাবাহিকতায় প্রধান আসামি সাদ্দামকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

সাদ্দামকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এসএসপি মুক্তা ধর বলেন, মাহবুব করোনার আগে ওমানে কর্মরত ছিলেন। করোনায় চাকরিচ্যুত হয়ে তিনি দেশে ফিরে এলে সাদ্দামের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শত্রুতার সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় তাদের মধ্যে প্রচণ্ড বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এর

পরেই মাহবুবকে হত্যার পরিকল্পনা করে সাদ্দাম।

পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রবাসী খুন, মূল আসামি সিআইডির হাতে গ্রেফতার

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৭ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৪:৫৫ 75 ভিউ
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী এলাকার বাসিন্দা ওমান প্রবাসী মাহবুব হোসেনকে (২৮) খুনের ঘটনায় প্রধান আসামি স্থানীয় যুবক সাদ্দাম হোসেনকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সিআইডি জানায়, ওমানফেরত মাহবুবের সঙ্গে স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হয়। সর্বশেষ একটি মোবাইল নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে পরিকল্পনা অনুযায়ী মাহবুবকে কুপিয়ে খুন করে সাদ্দাম। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগ সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মুক্তা ধর। তিনি জানান, সোনাইমুড়ী এলাকার মেরিপাড়া গ্রামের ওমান প্রবাসী মাহবুব করোনা মহামারির সময়ে দেশে ফিরে আসেন। এর পর থেকেই তার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ তৈরি হয় স্থানীয় বখাটে যুবক সাদ্দামের।

কিছু দিন আগে একটি মোবাইল ফোন কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এর জের ধরে গত ২৮ নভেম্বর সকাল ১০টার দিকে মাহবুবকে ফোনে ডেকে নিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে পালিয়ে যায় সাদ্দাম। এ ঘটনায় মৃতের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় একটি মামলা করেন। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ছায়া তদন্তের ধারাবাহিকতায় প্রধান আসামি সাদ্দামকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সাদ্দামকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এসএসপি মুক্তা ধর বলেন, মাহবুব করোনার আগে ওমানে কর্মরত ছিলেন। করোনায় চাকরিচ্যুত হয়ে তিনি দেশে ফিরে এলে সাদ্দামের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শত্রুতার সৃষ্টি হয়। এরই ধারাবাহিকতায় তাদের মধ্যে প্রচণ্ড বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। এর

পরেই মাহবুবকে হত্যার পরিকল্পনা করে সাদ্দাম।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ