পিএসজি প্রেসিডেন্টের সেই প্রস্তাবে সাড়া দেননি মেসি


অথর
ক্রীড়া অঙ্গন সংবাদদাতা   বর্ণমালা টেলিভিশন
প্রকাশিত :১৫ জুলাই ২০২২, ১:২৮ অপরাহ্ণ | পঠিত : 119 বার
0
পিএসজি প্রেসিডেন্টের সেই প্রস্তাবে সাড়া দেননি মেসি

২০২১ সালে চোখের জলে বুক ভাসিয়ে প্রিয় ক্লাব বার্সেলোনা ছাড়েন লিওনেল মেসি। দুই বছরের চুক্তিতে প্যারিসের সেরা দল পিএসজিতে যোগ দেন তিনি। সেই সময় বলা হয়েছিল— মেসি চাইলে চুক্তির মেয়াদ আরও এক বছর বাড়িয়ে নিতে পারবেন। ইতোমধ্যে প্যারিসে এক বছর পার করেছেন মেসি। ২০২৩ সালের জুনে তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে। এর আগেই আলোচনায় উঠেছে, পিএসজিতে মেসি চুক্তি বাড়াবেন কিনা। ফ্রান্সের বিভিন্ন ক্রীড়া দৈনিকের খবর, মেসির সঙ্গে আরও এক বছর চুক্তি বাড়িয়ে নিতে আগ্রহী পিএসজি প্রেসিডেন্ট নাসের আল খেলাইফি। এ নিয়ে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে অনানুষ্ঠানিক প্রস্তাবও দিয়েছেন পিএসজিপ্রধান। তবে প্রেসিডেন্টের সেই প্রস্তাবে কোনো সাড়া দেননি মেসি। তিনি সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন, আপাতত চুক্তি নিয়ে কিছু ভাবছেন না। কাতার বিশ্বকাপের পরই ভাববেন- নতুন চুক্তি হবে নাকি ২০২৩ সালের জুনের পর পিএসজি ছাড়বেন। বর্তমানে তার সব চিন্তাভাবনা বিশ্বকাপকে ঘিরে। অর্থাৎ কাতার বিশ্বকাপের আগে কোনো কিছু নিয়েই ভাবতে চান না মেসি। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কাও এ তথ্য দিয়েছে। মেসির এমন ভাবনার পেছনে যৌক্তিক কারণও রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেসির মতো বিশ্বসেরা খেলোয়াড় এমন পদক্ষেপই নেবেন। কারণ পিএসজি এখন পর্যন্ত বার্সার মেসিকে পায়নি। বার্সা থেকে পিএসজিতে আসার পর নতুন ক্লাব, নতুন পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতেই মেসির পুরো একটা মৌসুম কেটে গেছে। বেশ কয়েকবার ইনজুরিতে পড়েছেন, করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যে কারণে টানা ১০টি ম্যাচও খেলতে পারেননি তিনি পিএসজির জার্সিতে। বার্সায় যা চিন্তাও করা যেত না। প্রশ্ন উঠতেই পারে, এরপরও কেন মেসিকে ক্লাবে রাখতে আগ্রহী পিএসজি? এর জবাবে মার্কা লিখেছে, মেসিকে দলে রেখে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অংশ নিতে চায় পিএসজি। শুধু খেলার উদ্দেশ্যেই নয়, অর্থ উপার্জনও বড় একটি কারণ। মেসি হচ্ছেন পিএসজির কাছে টাকা আয়ের একটি যন্ত্র। মার্কা লিখেছে, ‘মেসি হচ্ছেন পিএসজির কাছে মানি প্রিন্টিং এসেট।’ মেসির ইমেজ রাইটস এবং মার্কেটিংয়ে এক বছরে সবচেয়ে লাভজনক বছর কাটিয়েছে পিএসজি। গত এক মৌসুমেই প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলার লাভ করেছে প্যারিসের এই ক্লাবটি। যা পিএসজির ইতিহাসে কখনো কল্পনাই করা যায়নি। এছাড়া চুক্তি বাড়ানোর বিষয়ে মেসির অনাগ্রহের আরেকটি কারণ থাকতে পারে। তা হচ্ছে পারিশ্রমিক। ক্লাবটিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেতন পান মেসি। নতুন চুক্তি অনুযায়ী পিএসজির কাছ থেকেই সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পেয়ে থাকেন ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে। ইংলিশ পত্রিকা ডেইলি মেইল জানাচ্ছে, প্রতি সপ্তাহে পিএসজির কাছ থেকে ৯ লাখ ৬০ হাজার পাউন্ড (প্রায় ১০ কোটি ৬৭ লাখ টাকা) করে পারিশ্রমিক পান আর্জেন্টাইন এ তারকা।

No Comments