পকেটের মোবাইল দেখে শনাক্ত হলো ৫ লাশ - বর্ণমালা টেলিভিশন

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া দুই শিশুসহ পাঁচ শ্রমিকের মরদেহ শনাক্ত হয়েছে। স্বজনরা শরীরের বিভিন্ন চিহ্ন ও পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে বিকৃত হয়ে যাওয়া মরদেহগুলো শনাক্ত করেন।

পুলিশ বুধবার দুপুরে মরদেহগুলো ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য হন্তান্তর করেছে। এ ব্যাপারে এক নিহতের বাবা আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আনহার হোসেন এ তথ্য দিয়েছেন।

নিহত শ্রমিকরা হলেন— বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কমল দোগাছী গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে সিহাব মিয়া (১৪), একই উপজেলার পালোয়ানপাড়া গ্রামের হাসান আলীর ছেলে ইমন আলী (১৫), ঘোড়াঘাট গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিনের ছেলে আবদুল খালেক (৫০), ছাতনী গ্রামের

মৃত আবদুর রহমানের ছেলে বেল্লাল হোসেন (৫৫) ও সান্তাহারের সান্দিরার মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান আলী (২৮)।

পুলিশ ও বিভিন্ন সূত্র জানায়, সান্তাহার পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো, সোহেল রানা, জিয়াউল হক নাসিম, ইসমাইল হোসেন যৌথ মালিকানায় তিলকপুর সড়কের হবির মোড় এলাকায় বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে একটি কারখানা স্থাপন করেন। এখানে ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করা হয়।

এক বছর আগে কারখানাটি স্থাপন ও উৎপাদনে গেলেও পরিবেশগত ছাড়পত্র সংগ্রহ করা হয়নি। শুধু অবস্থানগত ছাড়পত্র নিয়ে গত এক বছর ধরে তারা অবৈধভাবে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ানটাইম প্লেট তৈরি ও বাজারজাত করে আসছিল।

সেখানে দুই শিফটে ৭২ জন শ্রমিক-কর্মচারী কাজ করেন। গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ করে কারখানায় আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা পুরো কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে। সবাই বের হতে পারলেও দুই কিশোরসহ পাঁচ শ্রমিক ভিতরে আটকা পড়েন।

বগুড়া ও নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ১২টি ইউনিট প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন আয়ত্বে আনেন। ততক্ষণে কারখানার ভিতরে মেশিনপত্র, উৎপাদিত পণ্য ও কাঁচামাল পুড়ে যায়। আগুন নিভে গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পাঁচ শ্রমিকের বিকৃত মরদেহ উদ্ধার করেন। তাৎক্ষণিতকভাবে লাশগুলো শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

অপমৃত্যু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আনহার হোসেন জানান, নিহতদের মধ্যে পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে স্বজনরা

শিশু শ্রমিক ইমনের লাশ শনাক্ত করেন। এছাড়া অন্যদের চারজনের ভাঙা দাঁত ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ দেখে চিন্তিত করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে পাঁচজনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহত শ্রমিক শাহজাহান আলীর বাবা নাসির উদ্দিন আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, তদন্ত চলছে; এ ঘটনায় কারও অপরাধ পাওয়া গেলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে প্রাথমিক তদন্তে বগুড়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক আবদুল মালেক জানান, কারখানায় রিসাইক্লিং মেশিনে প্রচণ্ড চাপে ওয়ান টাইম প্লেট তৈরি করা হয়। এ সময় সেখানে স্পার্কিং হয়। ওই স্পার্কিং থেকে আশপাশে থাকা দাহ্য পদার্থে

আগুন লাগে।

এদিকে বগুড়া পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক সুফিয়া নাজিম জানান, সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশগত ছাড়পত্র ছিল না। মালিকরা অবৈধভাবে সেখানে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী তৈরি করে আসছিল।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনা না ঘটলে মালিকপক্ষকে নোটিশ করতেন। তবে ওই প্রতিষ্ঠান যাতে আর পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করতে না পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো দাবি করেছেন, তার ছাড়পত্র আছে।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক জানান, এডিএম সালাউদ্দিন আহমেদকে প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে

রিপোর্ট দেবে।

বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশের ছাড়পত্র না থাকা প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক বলেন, বিষয়টি পরিবেশ অধিদপ্তরের এখতিয়ারভুক্ত। তারা ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ম্যাজিস্ট্রেট চাইলে সহযোগিতা করা হবে।

তদন্ত কমিটির অন্যতম সদস্য আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, ১৬ ডিসেম্বরের পর তদন্ত কাজ শুরু করা হবে।

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া দুই শিশুসহ পাঁচ শ্রমিকের মরদেহ শনাক্ত হয়েছে। স্বজনরা শরীরের বিভিন্ন চিহ্ন ও পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে বিকৃত হয়ে যাওয়া মরদেহগুলো শনাক্ত করেন।

পুলিশ বুধবার দুপুরে মরদেহগুলো ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য হন্তান্তর করেছে। এ ব্যাপারে এক নিহতের বাবা আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আনহার হোসেন এ তথ্য দিয়েছেন।

নিহত শ্রমিকরা হলেন— বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কমল দোগাছী গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে সিহাব মিয়া (১৪), একই উপজেলার পালোয়ানপাড়া গ্রামের হাসান আলীর ছেলে ইমন আলী (১৫), ঘোড়াঘাট গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিনের ছেলে আবদুল খালেক (৫০), ছাতনী গ্রামের

মৃত আবদুর রহমানের ছেলে বেল্লাল হোসেন (৫৫) ও সান্তাহারের সান্দিরার মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান আলী (২৮)।

পুলিশ ও বিভিন্ন সূত্র জানায়, সান্তাহার পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো, সোহেল রানা, জিয়াউল হক নাসিম, ইসমাইল হোসেন যৌথ মালিকানায় তিলকপুর সড়কের হবির মোড় এলাকায় বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে একটি কারখানা স্থাপন করেন। এখানে ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করা হয়।

এক বছর আগে কারখানাটি স্থাপন ও উৎপাদনে গেলেও পরিবেশগত ছাড়পত্র সংগ্রহ করা হয়নি। শুধু অবস্থানগত ছাড়পত্র নিয়ে গত এক বছর ধরে তারা অবৈধভাবে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ানটাইম প্লেট তৈরি ও বাজারজাত করে আসছিল।

সেখানে দুই শিফটে ৭২ জন শ্রমিক-কর্মচারী কাজ করেন। গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ করে কারখানায় আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা পুরো কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে। সবাই বের হতে পারলেও দুই কিশোরসহ পাঁচ শ্রমিক ভিতরে আটকা পড়েন।

বগুড়া ও নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ১২টি ইউনিট প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন আয়ত্বে আনেন। ততক্ষণে কারখানার ভিতরে মেশিনপত্র, উৎপাদিত পণ্য ও কাঁচামাল পুড়ে যায়। আগুন নিভে গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পাঁচ শ্রমিকের বিকৃত মরদেহ উদ্ধার করেন। তাৎক্ষণিতকভাবে লাশগুলো শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

অপমৃত্যু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আনহার হোসেন জানান, নিহতদের মধ্যে পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে স্বজনরা

শিশু শ্রমিক ইমনের লাশ শনাক্ত করেন। এছাড়া অন্যদের চারজনের ভাঙা দাঁত ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ দেখে চিন্তিত করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে পাঁচজনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহত শ্রমিক শাহজাহান আলীর বাবা নাসির উদ্দিন আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, তদন্ত চলছে; এ ঘটনায় কারও অপরাধ পাওয়া গেলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে প্রাথমিক তদন্তে বগুড়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক আবদুল মালেক জানান, কারখানায় রিসাইক্লিং মেশিনে প্রচণ্ড চাপে ওয়ান টাইম প্লেট তৈরি করা হয়। এ সময় সেখানে স্পার্কিং হয়। ওই স্পার্কিং থেকে আশপাশে থাকা দাহ্য পদার্থে

আগুন লাগে।

এদিকে বগুড়া পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক সুফিয়া নাজিম জানান, সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশগত ছাড়পত্র ছিল না। মালিকরা অবৈধভাবে সেখানে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী তৈরি করে আসছিল।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনা না ঘটলে মালিকপক্ষকে নোটিশ করতেন। তবে ওই প্রতিষ্ঠান যাতে আর পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করতে না পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো দাবি করেছেন, তার ছাড়পত্র আছে।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক জানান, এডিএম সালাউদ্দিন আহমেদকে প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে

রিপোর্ট দেবে।

বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশের ছাড়পত্র না থাকা প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক বলেন, বিষয়টি পরিবেশ অধিদপ্তরের এখতিয়ারভুক্ত। তারা ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ম্যাজিস্ট্রেট চাইলে সহযোগিতা করা হবে।

তদন্ত কমিটির অন্যতম সদস্য আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, ১৬ ডিসেম্বরের পর তদন্ত কাজ শুরু করা হবে।

পকেটের মোবাইল দেখে শনাক্ত হলো ৫ লাশ

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৯:৪৬ 86 ভিউ
বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া দুই শিশুসহ পাঁচ শ্রমিকের মরদেহ শনাক্ত হয়েছে। স্বজনরা শরীরের বিভিন্ন চিহ্ন ও পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে বিকৃত হয়ে যাওয়া মরদেহগুলো শনাক্ত করেন। পুলিশ বুধবার দুপুরে মরদেহগুলো ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য হন্তান্তর করেছে। এ ব্যাপারে এক নিহতের বাবা আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আনহার হোসেন এ তথ্য দিয়েছেন। নিহত শ্রমিকরা হলেন— বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কমল দোগাছী গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে সিহাব মিয়া (১৪), একই উপজেলার পালোয়ানপাড়া গ্রামের হাসান আলীর ছেলে ইমন আলী (১৫), ঘোড়াঘাট গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিনের ছেলে আবদুল খালেক (৫০), ছাতনী গ্রামের

মৃত আবদুর রহমানের ছেলে বেল্লাল হোসেন (৫৫) ও সান্তাহারের সান্দিরার মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে শাহজাহান আলী (২৮)। পুলিশ ও বিভিন্ন সূত্র জানায়, সান্তাহার পৌর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো, সোহেল রানা, জিয়াউল হক নাসিম, ইসমাইল হোসেন যৌথ মালিকানায় তিলকপুর সড়কের হবির মোড় এলাকায় বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে একটি কারখানা স্থাপন করেন। এখানে ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করা হয়। এক বছর আগে কারখানাটি স্থাপন ও উৎপাদনে গেলেও পরিবেশগত ছাড়পত্র সংগ্রহ করা হয়নি। শুধু অবস্থানগত ছাড়পত্র নিয়ে গত এক বছর ধরে তারা অবৈধভাবে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ানটাইম প্লেট তৈরি ও বাজারজাত করে আসছিল।

সেখানে দুই শিফটে ৭২ জন শ্রমিক-কর্মচারী কাজ করেন। গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ করে কারখানায় আগুন লাগে। মুহূর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা পুরো কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে। সবাই বের হতে পারলেও দুই কিশোরসহ পাঁচ শ্রমিক ভিতরে আটকা পড়েন। বগুড়া ও নওগাঁ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ১২টি ইউনিট প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন আয়ত্বে আনেন। ততক্ষণে কারখানার ভিতরে মেশিনপত্র, উৎপাদিত পণ্য ও কাঁচামাল পুড়ে যায়। আগুন নিভে গেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পাঁচ শ্রমিকের বিকৃত মরদেহ উদ্ধার করেন। তাৎক্ষণিতকভাবে লাশগুলো শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। অপমৃত্যু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আনহার হোসেন জানান, নিহতদের মধ্যে পকেটে থাকা মোবাইল ফোন দেখে স্বজনরা

শিশু শ্রমিক ইমনের লাশ শনাক্ত করেন। এছাড়া অন্যদের চারজনের ভাঙা দাঁত ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ দেখে চিন্তিত করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে পাঁচজনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিহত শ্রমিক শাহজাহান আলীর বাবা নাসির উদ্দিন আদমদীঘি থানায় অপমৃত্যু মামলা করেছেন। পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, তদন্ত চলছে; এ ঘটনায় কারও অপরাধ পাওয়া গেলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে প্রাথমিক তদন্তে বগুড়া ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক আবদুল মালেক জানান, কারখানায় রিসাইক্লিং মেশিনে প্রচণ্ড চাপে ওয়ান টাইম প্লেট তৈরি করা হয়। এ সময় সেখানে স্পার্কিং হয়। ওই স্পার্কিং থেকে আশপাশে থাকা দাহ্য পদার্থে

আগুন লাগে। এদিকে বগুড়া পরিবেশ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক সুফিয়া নাজিম জানান, সান্তাহারের বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশগত ছাড়পত্র ছিল না। মালিকরা অবৈধভাবে সেখানে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ওয়ান টাইম প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী তৈরি করে আসছিল। তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনা না ঘটলে মালিকপক্ষকে নোটিশ করতেন। তবে ওই প্রতিষ্ঠান যাতে আর পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর প্লেট ও অন্যান্য সামগ্রী উৎপাদন করতে না পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টো দাবি করেছেন, তার ছাড়পত্র আছে। বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক জানান, এডিএম সালাউদ্দিন আহমেদকে প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে

রিপোর্ট দেবে। বিআইআরএস প্লাস্টিক ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিবেশের ছাড়পত্র না থাকা প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক বলেন, বিষয়টি পরিবেশ অধিদপ্তরের এখতিয়ারভুক্ত। তারা ওই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ম্যাজিস্ট্রেট চাইলে সহযোগিতা করা হবে। তদন্ত কমিটির অন্যতম সদস্য আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, ১৬ ডিসেম্বরের পর তদন্ত কাজ শুরু করা হবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ