ঢাকা, Wednesday 22 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

নাখালপাড়ায় সাবেক স্ত্রী ও শ্যালিকাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রকাশিত : 11:41 AM, 10 January 2021 Sunday
61 বার পঠিত

মোহাম্মদ রাছেল রানা | ডোনেট বাংলাদেশ নিউজ ডেক্স :-

রাজধানীর নাখালপাড়ায় সাবেক স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার (২৮) ও শ্যালিকা সীমুকে (১৭) হত্যা করেছে রনি মিয়া নামে এক রিক্সাচালক। ঘটনার পরপরই স্থানীয়রা তাকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা দা উদ্ধার করেছে। পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত রনি মিয়া হত্যার কথা স্বীকার করেছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে এই জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, নিহত ইয়াসমিন পোশাককর্মী আর তার ছোট বোন সীমু সম্প্রতি নাবিস্কো এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠানে কাজে যোগ দিয়েছিলেন। তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীতে। আর গ্রেফতারকৃত রনি রিক্সাচালক। তার গ্রামের বাড়ি জামালপুরে। পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হারুন

অর রশীদ জানান, গ্রেফতারকৃত রনিকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেছে। পারিবারিক কলহের জের ধরে রনি তার সাবেক স্ত্রী ইয়াসমিন ও শ্যালিকা সীমুকে হত্যা করেছে। প্রতিবেশীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে পূর্ব নাখালপাড়া এলাকার ২৫৩/৩ নম্বর ভবনের তৃতীয় তলায় একটি কক্ষে রনি তার সাবেক স্ত্রী ইয়াসমিনকে দা দিয়ে কোপাচ্ছিলেন। যা আশপাশের লোকজন জানালা দিয়ে দেখতে পান। তখন তারা ভবন মালিককে ফোন করে বিষয়টি জানান। ঘটনার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে আশপাশের লোকজন ওই ভবনের নিচে জড়ো হতে শুরু করে। ঘাতক রনি জানালা দিয়ে লোকজনের দেখতে পেয়ে

ভেতর দিয়ে দরজা বন্ধ করে দেন। পরে আশপাশের লোকজন তৃতীয় তলায় উঠে দরজা ভেঙ্গে ওইকক্ষে প্রবেশ করে ইয়াসমিনের রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখে। পাশে খাটের ওপর তার ছোট বোন সীমুর নিথর দেহ দেখতে পায়। এক পর্যায়ে স্থানীয়রা ঘাতক রনিকে ধরে উত্তম মধ্যম দেয়। খবর পেয়ে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে জনতার কবল থেকে ঘাতক রনিকে উদ্ধার করে। পরে দুই বোনের লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ইয়াসমিনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং তার বোন সীমুকে গলাটিপে হত্যা করেছে রনি। গ্রেফতারকৃত রনি জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, প্রথমে শ্যালিকা সীমুকে গলাটিপে হত্যা করে খাটে শুইয়ে রাখে।

এরপর তার সাবেক স্ত্রী ইয়াসমিন কর্মস্থল থেকে ঘরে ফিরলে তাকে কুপিয়ে হত্যা করেন। পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হাফিজ আল ফারুক জানান, দুপুর ২টার দিকে খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রনি মিয়াকে তাদের হেফাজতে নেয়। তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার সমিতি বাজার এলাকার ওই ভবনের তৃতীয় তলার একটি কক্ষ থেকে ইয়াসিন ও তার ছোট বোন সীমুর লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের লাশের ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। লাশ দেখে ধারণা করা হচ্ছে ইয়াসমিনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং সীমুকে গলাটিপে হত্যা করেছে রনি। এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, প্রায় চার মাস আগে ইয়াসমিনকে

তালাক দেয় রনি (৩০)। এর কিছুদিন পর রনি প্রায় সময় তার তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী ইয়াসমিনকে কর্মস্থলে বিরক্ত করত। তা নিয়ে দু’জনের তর্কবির্তক হয়। এ নিয়ে রনি তাকে হত্যার হুমকি দেয়। এরই জের ধরে এই জোড়া খুনের ঘটনা ঘটতে পারে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT