দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ এখন সময়ের দাবি। – বর্ণমালা টেলিভিশন

দেশের সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ এখন সময়ের দাবি।

মোঃ আজাদ
আপডেটঃ ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ | ১০:৫৯ 55 ভিউ
শিক্ষকরাই হলো মোমবাতির মতো নিজে প্রজ্বলিত হয়ে ছাত্র ছাত্রীদের আলো প্রদান করেন। শিক্ষকদের মধ্যে নির্দেশনা, বন্ধুত্ব, শৃঙ্খলা, এবং ভালোবাসা এই সবকিছুই পাওয়া যায়। শিক্ষকরাই দেশের ভবিষ্যৎ গঠনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। একটি জাতিকে আত্মমর্যাদাশীল করে গড়ে তুলতে শিক্ষকদের ভূমিকা অপরিসীম। শিক্ষকদের জ্ঞানের আলোতেই একজন আদর্শ নাগরিকের জন্ম হয়। শিক্ষকরাই তিলে তিলে গড়ে তুলেন স্নেহ, মায়া, মমতা, ভালোবাসা দিয়েই একটি দেশের সকল সূর্য সন্তানদের। তার বিনিময়ে তারা কখনোই বেশি কিছু পাননি। এমপিওভুক্ত শিক্ষক -কর্মচারীরা যে অর্থ পান তা দিয়ে বর্তমানে পরিবার চালানো খুব কষ্টকর হয়। কারণ আমাদের দেশের বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বেতনের মধ্যে যে চরম বৈষম্য তা দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের শিক্ষকদের বেতন স্কেল ও শিক্ষার হার পর্যালোচনা করলেই সহজেই বুজা যায়। আন্তর্জাতিক স্কেলের মানদন্ডে বাংলাদেশের শিক্ষার মান ২ দশমিক ৮ ভারত ও শ্রীলঙ্কার শিক্ষার মান ২০ দশমিক ৮ এবং পাকিস্তানের শিক্ষার মান ১১ দশমিক ৩ শতাংশ। এইভাবে চলতে থাকলে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সব প্রতিযোগিতা থেকে আমরা ছিটকে পড়ব এবং জাতি হিসাবে আমরা পিছিয়ে পড়ব। তাই এর থেকে পরিত্রাণের জন্য বেসরকারি শিক্ষাব্যবস্থাকে জাতীয়করণের আওতায় আনা অতীব জরুরি। ইউনেস্কোর ভাষ্যমতে, যে দেশে শিক্ষকের মান যত ভালো, সে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাপনা তত উন্নত। আমেরিকায় এক গবেষণায় দেখা গেছে, মানসম্মত শিক্ষার ২০ শতাংশ নির্ভর করে শিক্ষার অনুকূল পরিবেশ এবং অবকাঠামোগত সুযোগ - সুবিধার ওপর। ৮০ শতাংশ নির্ভর করে যোগ্য শিক্ষকের ওপর। তাই মেধাবীদেরকে শিক্ষকতা পেশায় আনতে হলে যোগ্যতর বেতন - ভাতা অবশ্যই দরকার। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলে ও সত্য, মেধাবী মানুষকে শিক্ষকতা পেশায় সম্পৃক্ত করার জন্য আকর্ষণীয় সুযোগ - সুবিধা এখনো হয়নি। আমাদের দেশের শিক্ষার মান ও শিক্ষা বাজেটে দক্ষিণ এশিয়ার সব দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন। এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বাড়ি ভাড়া বাড়ানোর কোনো চিন্তা নেই। চিকিৎসা ভাতা নির্ধারিত মাত্র ৫০০ টাকা। ঈদে বোনাস হিসেবে সরকারি শিক্ষকরা মূল বেতনের শতভাগ পেলে ও বেসরকারি শিক্ষকরা উৎসব ভাতা হিসেবে পান মূল বেতনের মাত্র ২৫ ভাগ আর কর্মচারীরা পান ৫০ ভাগ। বেসরকারি শিক্ষকদের কোনো বিভাগীয় ভাতা নেই। দীর্ঘকাল চাকরি করার পর তাদের অনেকটা শূন্য হাতেই বাড়ি ফিরে যেতে হয়। এককালীন সামান্য অবসর ভাতার ব্যবস্থা আছে, কিন্তু মাসিক পেনশন নেই। বেসরকারি শিক্ষকদের সন্তানদের শিক্ষার জন্য ব্যাপক ব্যয় করতে হয়। তাদের সন্তানদের জন্য কোনো শিক্ষা ভাতা নেই। সর্বোপরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর নিকট বিনীত অনুরোধ আপনারা দেশের উন্নয়নের কথা চিন্তা করে যদি দেশের সমগ্র বেসরকারি শিক্ষাব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করেন তাহলে মেধাবীরা শিক্ষকতায় পেশায় আসবে এতে সমাজ ও রাষ্ট্র উপকৃত হবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব