ঢাকা, Thursday 23 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ঝিনাইদহে সাংবাদিককে প্রান নাশের হুমকি,থানায় জিডি

প্রকাশিত : 09:35 PM, 27 September 2020 Sunday
141 বার পঠিত

| ডোনেট বিডি নিউজ ডেস্কঃ |

হে তথ্য সংগ্রহকালে এক সাংবাদিককে প্রান নাশের হুমকির অভিযোগ উঠেছে। এব্যাপারে থানায় জি,ডি, করেছেন ভুক্তভোগী সাংবাদিক এম এ সামাদ,যার নং ১৩০৪। সাংবাদিক সামাদ ঝিনাইদহ জেলা রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকায় ঝিনাইদহ প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। যানা যায়, ঝিনাইদহে প্রগ্রেসিফ লাইফ ইন্সুরেন্স নামক সংস্থার নামে গ্রাহকদের লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে ব্যাপারি পাড়ার সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা,আমিনুল ইসলাম।অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে দীর্ঘ আট বছর যাবত কিস্তি আদাই করে রাতের আধারে ২০১৫ সালে গাঁ ঢাকা দেয় । তবে বর্তমানে তিনি বাসায় অবস্থান করছেন।ভুক্ত ভোগিরা তাদের পাওনা টাকা চাইতে গেলে বিভিন্ন ধরনের তালবাহানা করতে থাকে। এ ব্যাপারে

সাংবাদিক সামাদ প্রতিবেদককে জনান, ব্যাপারী পাড়ার সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা আমিনুল ভুয়া ইন্সুইরেন্স কোম্পানীর নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আমি ব্যাপারী পাড়ার অসহায় শাপলা খাতুনের অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৪ সেপ্টেম্বর তথ্য সংগ্রহর জন্য আমিনুলের বাসায় যেয়ে তাকে না পাওয়ায়, পরে উনার বড় ছেলে আরিফের নম্বরে ফোন দিলে সে আমাকে প্রান নাশের হুমকি দেয়। বর্তমানে আমি ঝুকিতে আছি,তাই সদর থানায় একটি জিডি করেছি। বিষয়টি নিয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান,আমাদের কাছে লিখিত অভিযোগ এসেছে, আমরা তদন্ত সাপেক্ষে এর ব্যাবস্থা নিব। এদিকে সাংবাদিক সামাদকে প্রাননাশের হুমকি দেওয়ায় ঝিনাইদহের সাংবাদিক মহল এর তীব্র নিন্দা

জানিয়েছেন, এবং দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দাবী করেছেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT