ঝামেলাহীন বিদেশ ভ্রমণের টিপস


অথর
ভ্রমণ সংবাদদাতা   বর্ণমালা টেলিভিশন
প্রকাশিত :১৬ জুলাই ২০২২, ৭:৫৩ পূর্বাহ্ণ | পঠিত : 113 বার
0
ঝামেলাহীন বিদেশ ভ্রমণের টিপস

ডিজিটাল বাংলাদেশের সাক্ষী হিসেবে শুরু হয়েছে ই-পাসপোর্ট সুবিধা এবং বিমানবন্দরে ইলেক্ট্রনিক গেট ইত্যাদি অভিনব সব পন্থা। ভ্রমণের প্রতিটি ক্ষেত্রেই চলে এসেছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। বিশেষ করে বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে সবকিছু এখন অনলাইনে করাটাই বেশি সুবিধাজনক। কোথায় ঘুরতে যাওয়া যায় থেকে শুরু করে ভিসা আবেদন, এমনকি টিকিট কাটা পর্যন্ত সম্ভব এখন অনলাইনে। ডিজিটাল যুগে একেবারে ঝামেলাহিনভাবে আপনার ভ্রমণের পরিকল্পনা করা নিয়ে সাহায্য করতেই আমাদের আজকের আয়োজন। তুরস্ক, মালদ্বীপ, নেপাল, ইন্ডিয়া- এই মৌসুমের সবচেয়ে জনপ্রিয় গন্তব্য। কোথায় যাওয়া যায় সেই পরিকল্পনা করতে প্রথমেই অনলাইনে ঘোরাঘুরি করে দেখতে পারেন গন্তব্যগুলোর যাবতীয় আকর্ষণ। তুরস্কে যেমন আছে ঐতিহ্যময় স্থাপত্য এবং ইতিহাসের নিদর্শন, তেমনি মালদ্বীপে আছে স্ফটিকের মতো স্বচ্ছ নীল পানি এবং সাদা বালি। নেপালে আছে হিমালয়ের অতুলনীয় সৌন্দর্য, যা অন্য কোনো মহাদেশে নেই। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে আছে মেঘালয়, শিলং, দার্জিলিং, কোলকাতা ইত্যাদি বিখ্যাত স্থানগুলো। সিলেট বা রংপুরের গণ্ডি পার হলেই পৌঁছে যাবেন মেঘালয় অথবা শিলংয়ে। অনেকসময় সড়কপথেই যাওয়া যায় ভারতের বিভিন্ন জায়গায়। কোথায় ঘুরতে যাবেন সিদ্ধান্তটা নেওয়ার জন্য বেশিরভাগ মানুষই আজকাল ইন্টারনেটের সাহায্য নেন। দর্শনীয় স্থানগুলো থেকে শুরু করে কেমন খরচ পড়বে, সবই জানা যায় একটু ঘাঁটাঘাটি করলেই। পছন্দের যায়গা বাছাই করার পরেই বিদেশ যাওয়ার বন্দোবস্ত শুরু। যদিও ভারত এবং নেপালে সড়কপথেই যাওয়া সম্ভব, তবে যাত্রাটা হয়ে যায় অতিরিক্ত দীর্ঘ এবং কষ্টসাধ্য। দেখা যায় গন্তব্যে পৌঁছাতেই লেগে যায় একদিনের বেশি সময়। ছুটির স্বল্প কয়েকটা দিন পরিবহনে যেন নষ্ট না হয়, তা নিশ্চিত করতে দেখে নিতে পারেন ফ্লাইট। এই ফ্লাইট বুকিংও এখন সম্পূর্ণভাবেই অনলাইনে করা সম্ভব। ঝামেলাহীন ফ্লাইট বুকিং করতে দেখে নিতে পারেন গোযায়ান এর ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপ। দেশ বিদেশের যেকোনো গন্তব্যের ফ্লাইটই পেয়ে যাবেন তাদের প্লাটফর্মে, সঙ্গে প্রতিটি পেমেন্ট মেথডের উপর আছে আলাদা আলাদা ডিসকাউন্ট। বিদেশ যাওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার ক্ষেত্রে বাড়ির বাইরে যাওয়ারই কোনো প্রয়োজনই পড়বে না অনলাইনে ফ্লাইট বুকিংয়ের কাজটা সেরে ফেললে। কোন দেশে যাবো ঠিক করার পরও বাকি থেকে যায় পরিকল্পনার অনেক খুঁটিনাটি। ভারত এবং তুরস্কর মতো বিশাল দেশ ঘুরে শেষ করতেই কয়েক মাস লেগে যাওয়ার কথা। তাই কোথায় কোথায় ঘুরতে যাবেন এইটা আগে থেকে ঠিক করে নেওয়াও গুরুত্বপূর্ণ। বেশিরভাগ মানুষের ক্ষেত্রেই এসব দেশে জীবনে ১-২ বারের বেশি যাওয়া পড়বে না। তাই পরিকল্পনাটা এমনভাবে করতে হবে যেন কোনো আকর্ষণই বাদ না পড়ে। ব্যস্ত জীবনের মাঝে ছুটির দিনগুলো সম্পূর্ণরূপে নিজের পরিকল্পনা অনুযায়ী সাজাতে মন চায় সবারই। তাই পূর্বনির্ধারিত প্যাকেজ না নিয়ে, প্রয়োজনমতো পরিকল্পনা করে নিলেই বেশি শান্তি লাগার কথা। এই সমস্যার সমাধান করতেও আছে গোযায়ান। তাদের প্লাটফর্মে বিভিন্ন দেশের ট্যুর থাকার পাশাপাশি আছে সম্পূর্ণভাবে নিজের মতো ট্যুর প্লান করার সুবিধাও। সম্পূর্ণ অনলাইনেই নিজের চাহিদাগুলো জানিয়ে দিলে, ঠিক আপনার মনমতো ট্যুর বানিয়ে দেওয়ার সুযোগও আছে ওয়েবসাইটটিতে। স্বপ্নের ভ্রমণের সময় কোনো অপূর্ণতাই থাকবে না। ভ্রমণের পরিকল্পনার সবচেয়ে বড় অংশই বাজেট ঠিক করা। পারিবারিক ভ্রমণ হোক বা বন্ধুদের সঙ্গে সফর- সবকিছুই নির্ভর করবে বাজেটের উপর। বিদেশে যাওয়াটা অনেকের কাছেই মনে হয় সাধ্যের বাইরে। সখ আর সাধ্যের মেলবন্ধন করতে গোযায়ান নিয়ে এসেছে তাদের নতুন সুবিধা- ০% ইএমআই। এই ইএমআই এর মাধ্যমে ভ্রমণের জন্য পুরো টাকাটা একবারে না দিয়ে গ্রাহকরা ১ বছর পর্যন্ত সময় নিয়ে কিস্তিতে দিতে পারবেন। ফলে এককালীন খরচের চাপটা একেবারেই কমে যায়। শুধু তাই না, এর জন্য প্রথম ৬ মাসে নেই কোনো বাড়তি খরচ। দেশ কিংবা বিদেশের ফ্লাইট, হোটেল, ট্যুর- সব ধরনের সার্ভিসের জন্যই ব্যবহার করতে পারবেন এই ইএমএই সুবিধা। তাই বলাই যায়, ভ্রমণের পথে এখন আর কোনো বাধা নেই। ডিজিটাল জগতে অফলাইনের চেয়ে অনলাইনের বেশি সুবিধা দেখা যায় সবদিক থেকেই। করোনার মাঝে বেড়ে গেছে অনলাইন সেবার উপর জনসাধারণের নির্ভরশীলতাও। তাই ভ্রমণের ক্ষেত্রেও ডিজিটাল হোন, জীবনকে করে তুলুন বাধাহীন।

No Comments