ঢাকা, Wednesday 22 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

চীনা ভ্যাকসিন এলেই ট্রায়াল শুরু

প্রকাশিত : 08:38 AM, 14 September 2020 Monday
140 বার পঠিত

রাছেল রানা | বগুডা

চীন থেকে ভ্যাকসিন এলেই দেশে ট্রায়াল শুরু করবে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি)। ইতোমধ্যে ট্রায়ালের জন্য ২৫০ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। পাঁচজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সমন্বয়ে গঠন করা হয়েছে কল সেন্টার। যারা ২৪ ঘণ্টা ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের স্বাস্থ্যগত সমস্যা হলেই সমাধান দেবেন। এখন চীন থেকে ভ্যাকসিন এলেই তা প্রয়োগ শুরু করা হবে। বাংলাদেশে ভ্যাকসিনগুলো পাঠানোর জন্য কাস্টমস ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করেছে চীন। অনুমোদন পেলেই ভ্যাকসিনগুলো পাঠানো হবে।

আইসিডিডিআরবি-এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা কে জামান জনকণ্ঠকে বলেন, আমরা সর্বক্ষণিক চীনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছি। আশা করছি খুব শীঘ্রই ভ্যাকসিনগুলো দেশে আসবে। আইসিডিডিআরবি ইতোমধ্যে ট্রায়ালের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বলে জানান

তিনি। জানতে চাইলে বলেন, চলতি মাসের মধ্যেই তারা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।

চীনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে চার হাজার ২০০ স্বেচ্ছাসেবীর ওপর। দেশের করোনা চিকিৎসায় সামনের সারিতে থাকা চিকিৎসক, নার্স এবং ওয়ার্ডবয়দের ওপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে। এটি হবে দেশে করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ট্রায়াল। তবে এর ফল পেতে সময় লেগে যাবে প্রায় ছয় মাস। এরপরই নির্ধারিত হবে এই ভ্যাকসিনটি দেশে ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করা যাবে কিনা।

বেজিংভিত্তিক সিনোভ্যাক বায়োটেক বাংলাদেশকে এক লাখ ১০ হাজার ভ্যাকসিন দেবে। এই ট্রায়াল পরিচালনার জন্য যাবতীয় খরচও চীনের এই কোম্পানিটি বহন করবে। চীন ছাড়াও রাশিয়া, ব্রিটেন, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি তাদের ভ্যাকসিনের

তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল শুরু করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদে জানিয়েছেন যেখানেই প্রথম নিরাপদ ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে সেখান থেকেই বাংলাদেশ ভ্যাকসিন আনবে। এজন্য প্রয়োজনীয় অর্থের বরাদ্দও রাখা হয়েছে।

সরকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র এবং অর্থ মন্ত্রণালয়কে একটি রোডম্যাপ করার নির্দেশ দিয়েছে। করোনা মোকাবেলায় চলতি অর্থবছরের বাজেটে ১০ হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ রেখেছে। সেখান থেকেই ভ্যাকসিনের ব্যয় নির্বাহ করা হবে। তবে এসব ভ্যাকসিন কিভাবে দেয়া হবে সেটি এখনও নির্ধারণ করা হয়নি। তবে দেশের ২০ ভাগ মানুষের জন্য ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এবং ভ্যাকসিন এ্যালায়েন্স গ্যাভি এই ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে। তবে এর বাইরে অন্য নাগরিকদের জন্য

ভ্যাকসিন কিনেই সরবরাহ করতে হবে। ইতোমধ্যে দেশের প্রসিদ্ধ ওষুধ প্রস্তুতকারক বেক্সিমকো ফার্মা সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (এসআইআই)-এর সঙ্গে চুক্তি করেছে। বেক্সিমকো সেরামের কাছ থেকে টিকা কিনে বাংলাদেশে সরবরাহ করবে। অর্থাৎ সরকারী মাধ্যম ছাড়াও দেশে করোনার ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে।

আইসিডিডিআরবি বলছে, সাতটি করোনা চিকিৎসা হাসপাতালকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই হাসপাতালগুলো হচ্ছে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক), একই সঙ্গে হাসপাতলের ইউনিট-২ এবং বার্ন ইউনিট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এখানে এখন কেবল করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, মুগদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা মহানগর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল এবং হলি ফ্যামেলি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

এর বাইরে যেসব চীনা নাগরিক বাংলাদেশে

রয়েছেন তারা স্বেচ্ছায় এই ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে চাইলে তাদেরও দেয়া হবে। ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং জানিয়েছিলেন চীনা ভ্যাকসিনের বাংলাদেশে ট্রায়াল শুরু হলে তিনিই এটি প্রথম গ্রহণ করবেন। ব্যবসা-বাণিজ্য এবং অবকাঠামো নির্মাণে চীনের অনেক নাগরিকই বাংলাদেশে অবস্থান করে। করোনার শুরুতে তারা দেশে ফিরে গেলেও এখন তারা ফিরে এসে আবার কাজ শুরু করেছে।

মোট চার হাজার ২০০ জনের ওপর ট্রায়াল চালাবে। এর মধ্যে দুই হাজার ১০০ জনের ওপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে। আর বাকি দুই হাজার ১০০ জনকে প্লাসিবো প্রয়োগ করা হবে। প্লাসিবোতে কোন ওষুধ থাকে না। কিন্তু কেউ জানতে পারবে না কাকে প্রকৃত ভ্যাকসিন দেয়া

হচ্ছে আর কে প্লাসিবো পাচ্ছে। এরপর তাদের টানা ছয় মাস পর্যবেক্ষণ করা হবে। এই পর্যবেক্ষণ করবেন একদল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। যারা ভ্যাকসিন পেয়েছেন এবং যারা পাননি তাদের উভয়ের শরীরের ওপর প্রভাব পর্যালোচনা করা হবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT