কয়রায় ভারতীয় নাগরিক সন্ত্রাসীদের নিয়ে চিংড়ী ঘের লুটপাট করায় সংবাদ সম্মেলন - বর্ণমালা টেলিভিশন

কয়রায় এক ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল(৭৭) স্থানীয় চিহ্ণিত সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় চিংড়ী ঘের লুটপাট করায় কয়রা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জ্যোতি প্রসাদ মন্ডল। তিনি রোববার বিকাল ৩ টায় লিখিত বক্তব্যে জানান, উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের বিনাপানি গ্রামের ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল ও ভাড়াটিয়া গুণ্ডা দিয়ে আমার পৈত্রিক ও ডিসি আর নেওয়া ২৭ বিঘার জমির চিংড়ী ঘেরে বারবার লুটপাট করে আসছে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ সহ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অবগত আছেন। তিনি বলেন, অসিত মন্ডল ও তার শ্যালক আসুতোষ রায় এবং ভাড়াটিয়া গুন্ডা স্থানীয় বিল্লাল শেখ, ডালিম শেখ, রেজয়ান গাজী, শফি গাইন, শরিফুল গাইন, জাহিদুর রহমান, উপজেলা

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টের ১৪৪ ধারার মামলায় নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও উল্লেখিত আসামীরা তা মানে না। এছাড়া পুলিশের নির্দেশ ও ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশ না মেনে উল্লেখিত আমসামীগণ আমার চিংড়ী ঘেরে লাঠিশোঠা এবং দা’ কুড়াল, নিয়ে ঘেরের বাসা ভাঙচুর করে ঘের থেকে জোর পূর্বক মাছ মারায় আমি কয়রা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩৮২/২১ নং সিআর মামলা করি। তিনি বলেন, আমার পৈত্রিক এসএ ৬২০ নং খতিয়ানে একাধিক দাগে ১২ বিঘা এবং সরকারি সাড়ে ১৫ বিঘা এনিমি সম্পত্তি আমার পিতা এবং তার মৃত্যুর পর দীর্ঘ ৪০ বছর সরকারের রাজস্ব দিয়ে ডিসিআর মূলে পূর্বে ধান চাষ এবং বর্তমানে চিংড়ী চাষ করে আসছি। কিন্তু আমার বংশীয় অসিত

মন্ডল দীর্ঘ ৫০ বছর ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায় বসবাস করে এবং সেখানের ভোটার তালিকায় অসিত মন্ডল তার স্ত্রী সবিতা মন্ডল , পুত্র দীপংকার মন্ডল, স্ত্রী জয়ন্তী মন্ডল নাম আছে। এমনকি সেখানে তারা রেসন কার্ড এবং সর্বশেষ ২০১৬ সালে ভোট দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে জ্যোতি আরও জানায়, অসিত মন্ডল ভারতে বিভিন্ন সন্ত্রাসী দলের সাথে থাকায় একাধিক মামলায় জড়িয়ে পড়ার কারনে পালিয়ে বাংলাদেশে ফিরেছ্।ে তিনি বলেন, অসিত অর্ধশত বছর দেশে ফিরে এলাকার চি‎িহ্ণত সন্ত্রাসীদের সাথে মিশে ঘের দখল, লুটপাট করা, হুমকী ধামকি দিয়ে অর্থ আদায়সহ নানান অপকর্মের সাথে জড়িয়েছে। এছাড়া সন্ত্রাসী অসিত ও বিল্লাল শেখ পুলিশ ও উপজেলা প্রসাশনের কাছে তাদের অন্যায়

কাজে সহযোগিতা না পেয়ে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আমার নামে মিথ্যা মামলা ও পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। এবিষয় দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আছের আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ভারতীয় নাগরিক অসিত ও স্থানীয় সন্ত্রাসী বিল্লাল শেখ জ্যোতি মন্ডলের চিংড়ী ঘেরে আগে দা’ কুড়াল নিয়ে প্রকাশ্যে লুটপাট করত। কিন্তু জ্যোতি সংসদ সদস্যের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি আমাকে বিষয়টি দু’ পক্ষকে নিয়ে মিমাংসার কথা বলেন। এছাড়া উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি সম্প্রতি সরেজমিনে উক্ত চিংড়ী ঘের তদন্ত করেন এবং আমি সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও একাধিক মেম্বর উপস্তিত ছিলেন। এসময় সহকারি কমিশনার উক্ত চিংড়ী ঘের শান্তি শৃঙ্খলা

বজায় রাখার জন্য আমাকে দেখভালের দায়িত্ব দেয়। অতঃপর অসিত ও বিল্লাল বাহিনী চিংড়ী ঘেরে চুরি করে মাছ মারতে গেলে আমি গ্রাম পুলিশ দিয়ে তাদের তাড়িয়ে দেই এরপর উক্ত অসিত আমাকে ও আমার ছেলের নামে আদালতে ঘের দখলের মিথ্যা মামলা করেছেন।

কয়রায় এক ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল(৭৭) স্থানীয় চিহ্ণিত সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় চিংড়ী ঘের লুটপাট করায় কয়রা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জ্যোতি প্রসাদ মন্ডল। তিনি রোববার বিকাল ৩ টায় লিখিত বক্তব্যে জানান, উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের বিনাপানি গ্রামের ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল ও ভাড়াটিয়া গুণ্ডা দিয়ে আমার পৈত্রিক ও ডিসি আর নেওয়া ২৭ বিঘার জমির চিংড়ী ঘেরে বারবার লুটপাট করে আসছে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ সহ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অবগত আছেন। তিনি বলেন, অসিত মন্ডল ও তার শ্যালক আসুতোষ রায় এবং ভাড়াটিয়া গুন্ডা স্থানীয় বিল্লাল শেখ, ডালিম শেখ, রেজয়ান গাজী, শফি গাইন, শরিফুল গাইন, জাহিদুর রহমান, উপজেলা

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টের ১৪৪ ধারার মামলায় নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও উল্লেখিত আসামীরা তা মানে না। এছাড়া পুলিশের নির্দেশ ও ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশ না মেনে উল্লেখিত আমসামীগণ আমার চিংড়ী ঘেরে লাঠিশোঠা এবং দা’ কুড়াল, নিয়ে ঘেরের বাসা ভাঙচুর করে ঘের থেকে জোর পূর্বক মাছ মারায় আমি কয়রা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩৮২/২১ নং সিআর মামলা করি। তিনি বলেন, আমার পৈত্রিক এসএ ৬২০ নং খতিয়ানে একাধিক দাগে ১২ বিঘা এবং সরকারি সাড়ে ১৫ বিঘা এনিমি সম্পত্তি আমার পিতা এবং তার মৃত্যুর পর দীর্ঘ ৪০ বছর সরকারের রাজস্ব দিয়ে ডিসিআর মূলে পূর্বে ধান চাষ এবং বর্তমানে চিংড়ী চাষ করে আসছি। কিন্তু আমার বংশীয় অসিত

মন্ডল দীর্ঘ ৫০ বছর ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায় বসবাস করে এবং সেখানের ভোটার তালিকায় অসিত মন্ডল তার স্ত্রী সবিতা মন্ডল , পুত্র দীপংকার মন্ডল, স্ত্রী জয়ন্তী মন্ডল নাম আছে। এমনকি সেখানে তারা রেসন কার্ড এবং সর্বশেষ ২০১৬ সালে ভোট দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে জ্যোতি আরও জানায়, অসিত মন্ডল ভারতে বিভিন্ন সন্ত্রাসী দলের সাথে থাকায় একাধিক মামলায় জড়িয়ে পড়ার কারনে পালিয়ে বাংলাদেশে ফিরেছ্।ে তিনি বলেন, অসিত অর্ধশত বছর দেশে ফিরে এলাকার চি‎িহ্ণত সন্ত্রাসীদের সাথে মিশে ঘের দখল, লুটপাট করা, হুমকী ধামকি দিয়ে অর্থ আদায়সহ নানান অপকর্মের সাথে জড়িয়েছে। এছাড়া সন্ত্রাসী অসিত ও বিল্লাল শেখ পুলিশ ও উপজেলা প্রসাশনের কাছে তাদের অন্যায়

কাজে সহযোগিতা না পেয়ে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আমার নামে মিথ্যা মামলা ও পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। এবিষয় দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আছের আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ভারতীয় নাগরিক অসিত ও স্থানীয় সন্ত্রাসী বিল্লাল শেখ জ্যোতি মন্ডলের চিংড়ী ঘেরে আগে দা’ কুড়াল নিয়ে প্রকাশ্যে লুটপাট করত। কিন্তু জ্যোতি সংসদ সদস্যের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি আমাকে বিষয়টি দু’ পক্ষকে নিয়ে মিমাংসার কথা বলেন। এছাড়া উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি সম্প্রতি সরেজমিনে উক্ত চিংড়ী ঘের তদন্ত করেন এবং আমি সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও একাধিক মেম্বর উপস্তিত ছিলেন। এসময় সহকারি কমিশনার উক্ত চিংড়ী ঘের শান্তি শৃঙ্খলা

বজায় রাখার জন্য আমাকে দেখভালের দায়িত্ব দেয়। অতঃপর অসিত ও বিল্লাল বাহিনী চিংড়ী ঘেরে চুরি করে মাছ মারতে গেলে আমি গ্রাম পুলিশ দিয়ে তাদের তাড়িয়ে দেই এরপর উক্ত অসিত আমাকে ও আমার ছেলের নামে আদালতে ঘের দখলের মিথ্যা মামলা করেছেন।

কয়রায় ভারতীয় নাগরিক সন্ত্রাসীদের নিয়ে চিংড়ী ঘের লুটপাট করায় সংবাদ সম্মেলন

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১২ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৯:৪৬ 106 ভিউ
কয়রায় এক ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল(৭৭) স্থানীয় চিহ্ণিত সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় চিংড়ী ঘের লুটপাট করায় কয়রা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জ্যোতি প্রসাদ মন্ডল। তিনি রোববার বিকাল ৩ টায় লিখিত বক্তব্যে জানান, উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের বিনাপানি গ্রামের ভারতীয় নাগরিক অসিত মন্ডল ও ভাড়াটিয়া গুণ্ডা দিয়ে আমার পৈত্রিক ও ডিসি আর নেওয়া ২৭ বিঘার জমির চিংড়ী ঘেরে বারবার লুটপাট করে আসছে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ সহ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অবগত আছেন। তিনি বলেন, অসিত মন্ডল ও তার শ্যালক আসুতোষ রায় এবং ভাড়াটিয়া গুন্ডা স্থানীয় বিল্লাল শেখ, ডালিম শেখ, রেজয়ান গাজী, শফি গাইন, শরিফুল গাইন, জাহিদুর রহমান, উপজেলা

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টের ১৪৪ ধারার মামলায় নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও উল্লেখিত আসামীরা তা মানে না। এছাড়া পুলিশের নির্দেশ ও ইউপি চেয়ারম্যানের নির্দেশ না মেনে উল্লেখিত আমসামীগণ আমার চিংড়ী ঘেরে লাঠিশোঠা এবং দা’ কুড়াল, নিয়ে ঘেরের বাসা ভাঙচুর করে ঘের থেকে জোর পূর্বক মাছ মারায় আমি কয়রা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৩৮২/২১ নং সিআর মামলা করি। তিনি বলেন, আমার পৈত্রিক এসএ ৬২০ নং খতিয়ানে একাধিক দাগে ১২ বিঘা এবং সরকারি সাড়ে ১৫ বিঘা এনিমি সম্পত্তি আমার পিতা এবং তার মৃত্যুর পর দীর্ঘ ৪০ বছর সরকারের রাজস্ব দিয়ে ডিসিআর মূলে পূর্বে ধান চাষ এবং বর্তমানে চিংড়ী চাষ করে আসছি। কিন্তু আমার বংশীয় অসিত

মন্ডল দীর্ঘ ৫০ বছর ভারতের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলায় বসবাস করে এবং সেখানের ভোটার তালিকায় অসিত মন্ডল তার স্ত্রী সবিতা মন্ডল , পুত্র দীপংকার মন্ডল, স্ত্রী জয়ন্তী মন্ডল নাম আছে। এমনকি সেখানে তারা রেসন কার্ড এবং সর্বশেষ ২০১৬ সালে ভোট দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে জ্যোতি আরও জানায়, অসিত মন্ডল ভারতে বিভিন্ন সন্ত্রাসী দলের সাথে থাকায় একাধিক মামলায় জড়িয়ে পড়ার কারনে পালিয়ে বাংলাদেশে ফিরেছ্।ে তিনি বলেন, অসিত অর্ধশত বছর দেশে ফিরে এলাকার চি‎িহ্ণত সন্ত্রাসীদের সাথে মিশে ঘের দখল, লুটপাট করা, হুমকী ধামকি দিয়ে অর্থ আদায়সহ নানান অপকর্মের সাথে জড়িয়েছে। এছাড়া সন্ত্রাসী অসিত ও বিল্লাল শেখ পুলিশ ও উপজেলা প্রসাশনের কাছে তাদের অন্যায়

কাজে সহযোগিতা না পেয়ে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও আমার নামে মিথ্যা মামলা ও পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। এবিষয় দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আছের আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ভারতীয় নাগরিক অসিত ও স্থানীয় সন্ত্রাসী বিল্লাল শেখ জ্যোতি মন্ডলের চিংড়ী ঘেরে আগে দা’ কুড়াল নিয়ে প্রকাশ্যে লুটপাট করত। কিন্তু জ্যোতি সংসদ সদস্যের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি আমাকে বিষয়টি দু’ পক্ষকে নিয়ে মিমাংসার কথা বলেন। এছাড়া উপজেলা সহকারি কমিশনার ভুমি সম্প্রতি সরেজমিনে উক্ত চিংড়ী ঘের তদন্ত করেন এবং আমি সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও একাধিক মেম্বর উপস্তিত ছিলেন। এসময় সহকারি কমিশনার উক্ত চিংড়ী ঘের শান্তি শৃঙ্খলা

বজায় রাখার জন্য আমাকে দেখভালের দায়িত্ব দেয়। অতঃপর অসিত ও বিল্লাল বাহিনী চিংড়ী ঘেরে চুরি করে মাছ মারতে গেলে আমি গ্রাম পুলিশ দিয়ে তাদের তাড়িয়ে দেই এরপর উক্ত অসিত আমাকে ও আমার ছেলের নামে আদালতে ঘের দখলের মিথ্যা মামলা করেছেন।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ