কাজেই আসছে না সোয়া ৩ কোটি টাকার ‘কজওয়ে’ – বর্ণমালা টেলিভিশন

কাজেই আসছে না সোয়া ৩ কোটি টাকার ‘কজওয়ে’

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৩০ জানুয়ারি, ২০২২ | ৮:৪০ 64 ভিউ
মাদারীপুরের রাজৈরে সোয়া তিন কোটি টাকা ব্যয়ে পানিরোধক নামে একটি কজওয়ে নির্মাণের দুই বছরেও জনসাধারণের কোনো কাজে আসছে না। বর্ষা মৌসুম এলে পানিবৃদ্ধিতে কজওয়েটি তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগ বাড়ে স্থানীয়দের। এ অবস্থায় প্রকল্পটিতে দুর্নীতি হয়েছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখার দাবি তুলেছেন সচেতন নাগরিক কমিটি। যদিও পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, আগাম বন্যা ঠেকাতেই নির্মাণ করা হয়েছে নতুন পদ্ধতির পানিরোধক নামের এ কজওয়ে। মাদারীপুর জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার সাধুরখালের ওপর বাজিতপুর এলাকায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পানিরোধকের জন্য কজওয়ে নামের একটি অবকাঠামো নির্মাণ করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। জেলার প্রথম ও একমাত্র এই কজওয়ে নির্মাণের দুই বছরেও সাধারণ মানুষের কোনো কাজেই আসছে না। জিওবির অর্থায়নে নির্মিত প্রকল্পটির কাজের তদারকির দায়িত্বে ছিলেন তৎকালীন নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা ও বর্তমান শাখা কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম। রাজৈর-কোটালীপাড়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ নিষ্কাশন ও সেচ প্রকল্পের আওতায় এটি নির্মাণ করে খুলনার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান আমিন অ্যান্ড কোং লিমিটেড। নির্মাণের পর আর কোনো খোঁজ রাখেননি সংশ্লিষ্ট কেউ। স্থানীয়রা জানান, তিন কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয়ে স্লুইস গেটের আদলে নির্মিত নতুন পদ্ধতির এ কজওয়েটি বর্ষা মৌসুমে পানি বৃদ্ধি পেলে তলিয়ে যায়। কজওয়েটি নিচুভাবে নির্মাণ করার পাশাপাশি পানি না আটকানোতে মাছের ঘের ও জমির ফসলও তলিয়ে যায় পানিতে। ক্ষতির মুখে পড়েন মৎস্য চাষি ও কৃষকরা। স্থানীয় কৃষক কবির হোসেন বলেন, বর্ষার সময় পানি বৃদ্ধি পেলে জমির ফসল তলিয়ে যায়। তখন ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাঁধ দিতে হয়। এজন্য দুইভাগেই আমরা কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হই। মাদারীপুরের সচেতন নাগরিক কমিটির সদস্য শাহাদাৎ হোসেন লিটন বলেন, এ কজওয়েটি জনসাধারণের কোনো কাজে আসছে কিংবা প্রকল্পে বড় ধরনের কোনো দুর্নীতি রয়েছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে এটি নির্মাণ করে রাখা হয়েছে শুধুমাত্র শোভাবর্ধনের জন্য। খালে পানি বৃদ্ধি পেলে কৃষক ও চাষিদের দুর্ভোগ কমানোর ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। মাদারীপুর জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মনিরুল ইসলাম জানান, বালুর বস্তা ফেলে আগাম বন্যা ঠেকাতেই নির্মাণ করা হয়েছে কজওয়েটি। বন্যার সময় যাতে নৌযান চলাচল করতে পারে সে লক্ষ্যেই প্রকল্পটি অনুমোদন হয়।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব