কর্তব্যে শিথিলতা দেখালে ডিসি পদ থাকবে না – বর্ণমালা টেলিভিশন

ডিসিদের প্রতি হুঁশিয়ারি

কর্তব্যে শিথিলতা দেখালে ডিসি পদ থাকবে না

প্রশাসনের কর্মকর্তাদের জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে পাঠানোর প্রস্তাব

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২০ জানুয়ারি, ২০২২ | ৯:২০ 53 ভিউ
ডিসিদের নিজ নিজ কাজের প্রতি কঠোরভাবে দায়িত্বশীল হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রজাতন্ত্রের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন শেষে অনির্ধারিত আলোচনায় এমন নির্দেশনা দিয়েছেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। একই সঙ্গে ধর্মীয় আলোকে ডিসিদের বিভিন্ন বিষয় ব্যাখ্যা করে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে উদ্বুদ্ধ করেছেন। বুধবার ডিসি সম্মেলনে নির্ধারিত আলোচনায় ৬টি অধিবেশনের আয়োজন ছিল। আজ সম্মেলন শেষ হতে যাচ্ছে। এদিকে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক কৃষিপণ্যের ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি বলেন, দিনাজপুর কিংবা ঈশ্বরদী বা সাতক্ষীরায় চাষিরা মাঠ পর্যায়ে ফসল বিক্রি করে ১৫ টাকা পাচ্ছে কেজিতে। ঢাকায় এসে সেটা ৪০-৪৫ টাকা হবে কেন? আনুষ্ঠানিক অধিবেশন শেষে অনির্ধারিত আলোচনায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যদি কোনো ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির অধিকার নষ্ট করে তাহলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির কাছে ক্ষমা চেয়ে মাপ পাওয়া যায়। কিন্তু রাষ্ট্রীয় দায়িত্বে থেকে কেউ যদি জনগণের হক নষ্ট করেন তাহলে সেটা থেকে মাফ পাওয়ার উপায় নেই। তাই রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালনের জায়গায় যারা থাকেন তাদের কর্তব্য বেশি। ডিসি পদ তেমনি একটি। ব্রিটিশ আমল থেকে এ পদের দায়িত্ব অনেক বেশি। সরকার আপনাদের বিশ্বাস করে দায়িত্ব দিয়েছে, সেটার গ্রহণযোগ্যতা রাখতে হবে। যারা পারবেন না, শিথিলতা দেখাবেন তাদের কী পরিণতি হয় অতীতে দেখেছেন। ডিসি পদ থাকবে না। সূত্র জানায়, মাঠ প্রশাসনে ডিসিদের বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ খুবই গুরুত্ব দেয়। কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলে দ্রুত প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। অতীতে একাধিক নজির আছে। তাই তার এই মন্তব্যের গুরুত্ব আছে। অন্যদিকে মন্ত্রণালয়ভিত্তিক সেশনের পর বিকালে স্পিকার ও প্রধান বিচারপতি ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে ডিসিদের বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। এসব বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো ব্রিফিং করা হয়নি। সম্মেলন সূত্রে জানা গেছে, স্পিকার তার বক্তব্যে আইন বিভাগ, শাসন বিভাগ ও বিচার বিভাগের সমন্বয়ে জনগণের জন্য সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন। অন্যদিকে প্রধান বিচারপতি তার বক্তব্যে সরকারি মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে দ্রুত তথ্য দেওয়ার আহ্বান জানান। একই সঙ্গে আদালতে সরকারি কর্মচারীদের যাতে অযথা হয়রানি করা না হয় সে বিষয়ে আশ্বাস দেন ডিসিদের। এদিকে অর্থবছরের শুরুতে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের এককালীন অর্থ বরাদ্দ চেয়েছিলেন ডিসিরা। তবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে। নিজ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত অধিবেশন শেষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, বছরে দুই বা তিন কিস্তিতে টাকা বরাদ্দ দিলে কাজে গতি ঠিক থাকে। কাজের মনিটরিং ভালো হয়, ফলাফলও ভালো হয়। শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, বোরো মৌসুমের জন্য দেশে সব ধরনের সারের পর্যাপ্ত মজুত আছে। সংকটের গুজব ছড়িয়ে কেউ কেউ দাম বাড়ানোর চেষ্টা করছে, ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। ডিসিরা তদারকি করবেন। কৃষি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও বিষয়টি দেখবেন। কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঢাকায় আসা কৃষিপণ্যের ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি বলেন, দিনাজপুরে কিংবা ঈশ্বরদী বা সাতক্ষীরায় চাষিরা মাঠ পর্যায়ে ফসল বিক্রি করে ১৫ টাকা পাচ্ছে প্রতি কেজিতে। ঢাকায় এসে সেটা ৪০-৪৫ টাকা হবে কেন? এটা হলো মধ্যস্বত্বভোগী বা ফড়িয়া। ট্রাকের খরচ বা কোথাও চাঁদাবাজির শিকার যদি তারা হয়ে থাকে, তাহলে কত টাকা কোথায় দিল? সেটা আমরা বের করে সমাধানের চেষ্টা করব। শান্তি মিশনে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নেওয়ার বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত : জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত অধিবেশন শেষে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কেএম আলী আজম সাংবাদিকদের বলেছেন, ওমিক্রন খুব বেশি ছড়াচ্ছে। এ বিষয়ে ডিসিদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের অংশ নেওয়ার প্রস্তাবের বিষয়ে তিনি বলেন, ইউএন মিশনের বিষয়টি নির্ভর করে যে দেশে ইউএন মিশন যাবে এবং সেখানে ইউএন-এর পক্ষ থেকে চাহিদার ওপর ভিত্তি করে। এ বিষয়ে আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এছাড়া জেলা পর্যায়ে পরিকল্পনা উন্নয়ন শাখা গঠনে আইএমইডি অনুরোধ জানিয়েছে। তাদের যেহেতু জেলা পর্যায়ে অফিস নেই, তাদের পক্ষে ডিসিরা যাতে এই কার্যক্রম মনিটর করেন। এজন্য একটি শাখা গঠন করতে হলে জনবল লাগবে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিতে হবে। স্বল্প সময়ে গঠন করতে চাইলে বর্তমান জনবল কাঠামো দিয়েই শাখা গঠনের জন্য ডিসিদের বলেছি। তৃতীয় শ্রেণির সব ধরনের পদে নিয়োগের জন্য সিলেকশন বোর্ড গঠনে ডিসিদের প্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে সচিব বলেন, তৃতীয় শ্রেণির সব ধরনের পদে নিয়োগের জন্য সিলেকশন বোর্ড গঠন করা আছে। কোনো বিভাগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নিয়োগ ছাড়া আঞ্চলিক পর্যায়ে তৃতীয় শ্রেণির যেসব নিয়োগ হবে, সেখানে বিভাগীয় সিলেকশন বোর্ড করবে। শুল্ক কমিয়ে চিকন চাল আমদানির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে : খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, শুল্ক কমিয়ে বেসরকারিভাবে চিকন চাল আমদানির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ডিসিদের প্রস্তাব অনুযায়ী আগামী বৃহস্পতিবার থেকে উপজেলা পর্যায়ে এক হাজার ৭৬০ জন ডিলারের মাধ্যমে ওএমএসে চাল ও আটা বিক্রি শুরু হবে। পাহাড় কাটা ও বনভূমি দখলদার উচ্ছেদে ব্যবস্থা নিন -পরিবেশমন্ত্রী : পরিবেশ সুরক্ষায় পাহাড় কাটা, বনভূমি দখলদারদের উচ্ছেদ ও বৃক্ষ নিধন বন্ধ করতে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে বিভিন্ন অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। এর প্রথমটি ছিল পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত। এতে মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সচিব মো. মোস্তফা কামাল, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন এবং প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। পরিবেশ ও বনমন্ত্রী বলেন, বনভূমিকে রক্ষা করা, পরিবেশ সুরক্ষা করা এবং জীববৈচিত্র্য রক্ষা করা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া থেকে রক্ষা পেতে জেলা প্রশাসকদের অনেক সহযোগিতার প্রয়োজন আছে। সেই বিষয়ে আমরা ওনাদের দিক-নির্দেশনা দিয়েছি। তিনি বলেন, পরিবেশ সুরক্ষার জন্য টিলা কাটা, পাহাড় কাটা, বৃক্ষ নিধন-এগুলোকে বন্ধ করার জন্য জেলা প্রশাসকগণ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। বনভূমি যাতে কোনো অবৈধ দখলদার দখল করতে না পারে এবং অবৈধ ইটভাটা বন্ধ করার বিষয়ে আমরা তাদের সহযোগিতা চেয়েছি। পরিবেশমন্ত্রী আরও জানান, দখল হওয়া বনভূমি উদ্ধারে ইতঃপূর্বে জেলা প্রশাসকদের আনুষ্ঠানিক চিঠি দেওয়া হয়েছে। সেখানে কোন এলাকায় কী পরিমাণ জমি বেদখল রয়েছে তার পূর্ণ তথ্য রয়েছে। তিনি বলেন, ২০২৫ সালের মধ্যে সরকারি স্থাপনায় ইটের পরিবর্তে শতভাগ ব্লক ইট ব্যবহারের লক্ষ্য রয়েছে। প্রাণী সংরক্ষণ ও জীববৈচিত্র্যের কথাও তাদের বলেছি। সবক্ষেত্রে ডিসিদের সহযোগিতার প্রয়োজন আছে। তাই আমরা তাদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছি। বনভূমি রক্ষায় জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ২০৩০ সালের মধ্যে ১৬ শতাংশ বনভূমি গড়ে তোলা। এসডিজি অর্জনের জন্য ১৬ শতাংশ আচ্ছাদিত বন আমাদের দেখাতে হবে। ১৬ শতাংশ বনায়নের জন্য আমরা ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছি। বর্তমানে ১৪ দশমিক ১ শতাংশ বন রয়েছে। সামাজিক বনায়নের ক্ষেত্রে আমরা তো ২২ শতাংশের ওপরেই আছি।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব