কয়রা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ছাড়াই চলছে শিশু রোগীর চিকিৎসা – বর্ণমালা টেলিভিশন

কয়রা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ছাড়াই চলছে শিশু রোগীর চিকিৎসা

আবুল হাসান উপজেলা প্রতিনিধি কয়রা
আপডেটঃ ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ | ১১:০০ 52 ভিউ
খুলনার উপকূলীয় অঞ্চল কয়রায় জ্বর, নিউমোনিয়া, অ্যাজমা ও শ্বাসকষ্টজনিত রোগে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিমহিমশিম খাচ্ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। আক্রান্ত শিশুদের অধিকাংশের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ভর্তির পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তাররা। তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোন শিশু বিশেষজ্ঞ না থাকায় মেডিকেল অফিসার দিয়েই চলছে চিকিৎসা সেবা। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশু বিশেষজ্ঞ না থাকায় অধিকাংশ অভিভাবক শিশুকে নিয়ে ছুটছেন ১’শ কিলোমিটার দূরে খুলনা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে। ফলে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে জরুরি রোগী ও অভিভাবকেরা। দুই মাসের শিশুকে ডায়রিয়া জনিত কারণে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসেছেন উপজেলার কয়রা গ্রামের নুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, সপ্তাহে একদিন খুলনা থেকে একজন শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ সারাফাত হোসেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে রোগী দেখেন। তার কাছে চিকিৎসা নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করেছি। কিন্তু এখানে কোন শিশু বিশেষজ্ঞ নাই। খাদিজা আক্তার বাগালি ইউনিয়নের বগা গ্রাম থেকে তার সন্তানের ডায়রিয়া জনিত কারণে এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছেন। তার বাচ্চার শারীরিক অবস্থা আগের থেকে উন্নতি হয়েছে তবে এখানে কোন শিশু বিশেষজ্ঞ না থাকায় চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে তাকে। মাহমুদা আক্তার তার বাচ্চার ডায়রিয়া জনিত কারণে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছেন। তিনি মহারাজপুর ইউনিয়নের শিমলার আইট গ্রাম থেকে এক সপ্তাহ ধরে তার বাচ্চাকে নিয়ে রয়েছেন। এখানে কোন শিশু বিশেষজ্ঞ না থাকায় তার বাচ্চার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়নি। তাই সে খুলনা থেকে আসা শিশু বিশেষজ্ঞ শারাফাত হোসেনকে দেখিয়ে হাসপাতালে রেখেছেন। তাকেও চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদীপ বালা খুলনা গেজেটকে বলেন, শিশু বিশেষজ্ঞ না থাকায় আমরা মেডিকেল অফিসার দিয়ে শিশুদের সেবা দিচ্ছি। তবে শিশুদের জটিল কোন সমস্যা হলে খুলনাতে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। সে ক্ষেত্রে অভিভাবকদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তবে আমি আমার উদ্ধতন কতৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি এখানে শিশু বিশেষজ্ঞ দেওয়ার জন্য। তারাও চেষ্টা করছে। খুলনা জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ সুজাত আহম্মেদ বলেন, প্রতিটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশু বিশেষজ্ঞ দেওয়ার চেষ্টা করছি। দ্রুত শিশু বিশেষজ্ঞ দেওয়া হবে। তবে আমাদের যারা শিশুদের উপর প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত আছে তাদেরকে দিয়ে শিশুদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব