ঢাকা, Thursday 28 October 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ওই বুঝি তোর বৈশাখী ঝড় আসে…

প্রকাশিত : 10:29 AM, 14 March 2021 Sunday
83 বার পঠিত

মোহাম্মদ রাছেল রানা | ডোনেট বাংলাদেশ নিউজ ডেক্স :-

ওই বুঝি তোর বৈশাখী ঝড় আসে…। হ্যাঁ, আগাম বার্তাটুকু পাওয়া হয়ে গেল। বৈশাখ আসছে। সঙ্গে করে নিয়ে আসছে বৈশাখী ঝড়। শনিবারের বিকেল প্রকৃতির এ পরিবর্তনের আভাস স্পষ্ট করল। যদিও এখন বসন্ত। ফাগুন বিদায় নিচ্ছে। তা নিচ্ছে। বসন্ত ফুরোয়নি। চৈত্রের পুরোটা বাকি। এর মাঝেই বৈশাখের রুদ্ররূপ। ঝড়ো হাওয়া। বৃষ্টি। বসন্ত যেন নেই কোথাও। বৈশাখ তার রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে।

তারও আগে পহেলা বৈশাখের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছিল বাঙালী। নতুন বছর ১৪২৮ বঙ্গাব্দকে বরণ করে নেয়ার পরিকল্পনা চলছে এখনও। করোনার কারণে গত বছর উৎসবটি করা যায়নি। এবার পরিস্থিতি কিছুটা অনুকূলে। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বৈশাখকে বরণ করে নিতে চায় ঐতিহ্যপ্রেমীরা। ছায়ানট

এবং চারুকলাও উৎসবে ফেরার ঘোষণা দিয়েছে। ব্যস্ততা বেড়েছে পোশাক কারখানায়। দিন রাত করছেন মৃৎশিল্পীরা। বৈশাখী মেলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন তারা। ঠিক তখন বৈশাখী ঝড় এসে যেন সবার সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করল। প্রকৃতিও যে তার রুটিন পরিবর্তনের পথেই হাঁটছে, স্মরণ করিয়ে দিল আবারও।

এর আগের সময়টা, গত প্রায় চার মাসের কথা যদি বলি, বৃষ্টির দেখা মেলেনি। রাজধানী ঢাকার শুকনো রাস্তায় কয়েক স্তর ধুলো জমেছিল। গাছের পুরনো পাতায় সবুজের চিহ্ন দেখা যায়নি। ধুলো-ময়লা জমে কালো হয়ে গিয়েছিল। পাতার দিকে তাকিয়ে কেবলই মনে হতো, একটু যদি বৃষ্টি হতো! হলো শেষতক। ভারি বৃষ্টি। মোটা মোটা ফোটা। বেশ কিছু সময় ধরে

চলল। তাতেই নতুনের মতো মনে হচ্ছে শহরটাকে।

বছরও প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। যাই যাই করছে ১৪২৭ বঙ্গাব্দ। যাওয়ার আগে ‘বৎসরের আবর্জনা দূর হয়ে যাক।’ পুরনো শোক, বিয়োগ ব্যথা, না পাওয়া, ইচ্ছায় অনিচ্ছায় করা ভুল, নিষ্ঠুরতা, পাপ সব নিয়ে যাক বিদায়ী বছর। বাঙালীর এমন প্রার্থনা বুঝি শুনতে শুরু করেছে বৈশাখ। এ কারণেই বৈশাখী ঝড়। এদিন ঢাকায় দুপুরের পরই আড়ালে চলে যায় সূর্য। গত বেশ কিছুদিন কী যে তাপ বিকিরণ করে চলছিল! গরমে মোটামুটি অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল রাজধানীবাসী। বিকেল চারটার আগে শুরু হয় গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি। আর পুরোদমে শুরু ৪টা ৪৭ মিনিটে। অল্প সময়েই, আবহাওয়া অফিসের হিসাব বলছে, ৩

মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে ঢাকায়। আর ঝড়ের গতিবেগ ছিল ৫২ কিলোমিটার। অনেক দিন পর বাতাসে তীব্র গতি। গাছপালা সব নড়ে চড়ে উঠেছিল। সেই কবে থেকে স্থির। স্থবির। বৈশাখী ঝড় এসে যেন ঘুম ভাঙিয়ে দিয়ে গেল।

অবশ্য বৈশাখী ঝড় বা কালবৈশাখী নিয়ে আছে দুশ্চিন্তাও। এই ঝড় প্রায়শই কাঁচা ঘর বাড়ি উড়িয়ে নিয়ে যায়। প্রাণহানি ঘটায়। ফসলের ক্ষতি করে। গাছ ইত্যাদি উপড়ে ফেলে। তাই বলে ভয় পেলে চলবে না। মনে রাখা চাই কবি গুরুর সেই অভয়বাণীও, যেখানে তিনি বলছেন, ‘ওই বুঝি কালবৈশাখী/সন্ধ্যা-আকাশ দেয় ঢাকি/ভয় কী রে তোর ভয় কারে, দ্বার খুলে দিস চারধারে…’। দ্বার খুলে দেয়ার সময়টি প্রায় চলে

এসেছে। প্রতিবারের মতো এবারও বৈশাখকে বরণ করে নেবে বাঙালী। নব প্রত্যাশায় শুরু হবে নতুন বছর। বৈশাখের আগাম ঝড় তাই ঝড় নয়, উৎসবের জন্য প্রস্তুত হওয়ার বার্তা। বার্তা বলেই ধরে নেয়া যাক।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT