‘এটা বড় অর্জন’ - বর্ণমালা টেলিভিশন

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশে যখন ফোর-জি ইন্টারনেট সেবা ছিল তখন আমাদের দেশে টু-জিও ছিল না। এখন আমরা ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবার যুগে প্রবেশ করছি। যদিও খুব সীমিত পরিসরে তবু এটা বড় অর্জন এবং এতে আনন্দ ও আপ্লুত বোধ করছি।

রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে ফাইভ-জি প্রযুক্তির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় এসব কথা বলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে (বিটিআরসি) ধন্যবাদ জানিয়ে জয় বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও অল্পপরিসরে এই সেবা চালু আছে। যুক্তরাষ্ট্রে আমি যে শহরে থাকি, সেখানেও অল্প কিছু জায়গায় এই সেবা চলে। আমাদের দেশে ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবা বাস্তবায়নের

জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এজন্য তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক উন্নত, ফাইভ-জি চালুর মাধ্যমে এটি আরও ত্বরান্বিত হলো।

জয় বলেন, বিএনপির কারণেই ফোর-জির যুগেও বাংলাদেশ পিছিয়ে ছিল টু-জিতে। যখনই বাংলাদেশ এগিয়ে যায়, তখনই কিছু ষড়যন্ত্র হয়, আর এটি বেড়ে যায় দেশে নির্বাচন কাছাকাছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

প্রাথমিকভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া, ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ধানমন্ডি ৩২ নম্বর, সচিবালয়, সংসদ ভবন এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধ-এই ছয়টি এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রা শুরু হয়েছে উচ্চ গতির এই ইন্টারনেট সেবা। তবে বাণিজ্যিকভাবে গ্রাহকদের জন্য আগামী বছরের মধ্যে ২০০টি স্থানে এই সেবা

চালুর ঘোষণা দিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম অপারেটর টেলিটক।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশে যখন ফোর-জি ইন্টারনেট সেবা ছিল তখন আমাদের দেশে টু-জিও ছিল না। এখন আমরা ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবার যুগে প্রবেশ করছি। যদিও খুব সীমিত পরিসরে তবু এটা বড় অর্জন এবং এতে আনন্দ ও আপ্লুত বোধ করছি।

রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে ফাইভ-জি প্রযুক্তির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় এসব কথা বলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে (বিটিআরসি) ধন্যবাদ জানিয়ে জয় বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও অল্পপরিসরে এই সেবা চালু আছে। যুক্তরাষ্ট্রে আমি যে শহরে থাকি, সেখানেও অল্প কিছু জায়গায় এই সেবা চলে। আমাদের দেশে ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবা বাস্তবায়নের

জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এজন্য তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক উন্নত, ফাইভ-জি চালুর মাধ্যমে এটি আরও ত্বরান্বিত হলো।

জয় বলেন, বিএনপির কারণেই ফোর-জির যুগেও বাংলাদেশ পিছিয়ে ছিল টু-জিতে। যখনই বাংলাদেশ এগিয়ে যায়, তখনই কিছু ষড়যন্ত্র হয়, আর এটি বেড়ে যায় দেশে নির্বাচন কাছাকাছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

প্রাথমিকভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া, ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ধানমন্ডি ৩২ নম্বর, সচিবালয়, সংসদ ভবন এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধ-এই ছয়টি এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রা শুরু হয়েছে উচ্চ গতির এই ইন্টারনেট সেবা। তবে বাণিজ্যিকভাবে গ্রাহকদের জন্য আগামী বছরের মধ্যে ২০০টি স্থানে এই সেবা

চালুর ঘোষণা দিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম অপারেটর টেলিটক।

‘এটা বড় অর্জন’

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৩ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৯:১২ 74 ভিউ
প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশে যখন ফোর-জি ইন্টারনেট সেবা ছিল তখন আমাদের দেশে টু-জিও ছিল না। এখন আমরা ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবার যুগে প্রবেশ করছি। যদিও খুব সীমিত পরিসরে তবু এটা বড় অর্জন এবং এতে আনন্দ ও আপ্লুত বোধ করছি। রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে ফাইভ-জি প্রযুক্তির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় এসব কথা বলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে (বিটিআরসি) ধন্যবাদ জানিয়ে জয় বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও অল্পপরিসরে এই সেবা চালু আছে। যুক্তরাষ্ট্রে আমি যে শহরে থাকি, সেখানেও অল্প কিছু জায়গায় এই সেবা চলে। আমাদের দেশে ফাইভ-জি ইন্টারনেট সেবা বাস্তবায়নের

জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এজন্য তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক উন্নত, ফাইভ-জি চালুর মাধ্যমে এটি আরও ত্বরান্বিত হলো। জয় বলেন, বিএনপির কারণেই ফোর-জির যুগেও বাংলাদেশ পিছিয়ে ছিল টু-জিতে। যখনই বাংলাদেশ এগিয়ে যায়, তখনই কিছু ষড়যন্ত্র হয়, আর এটি বেড়ে যায় দেশে নির্বাচন কাছাকাছি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। প্রাথমিকভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া, ঢাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ধানমন্ডি ৩২ নম্বর, সচিবালয়, সংসদ ভবন এবং জাতীয় স্মৃতিসৌধ-এই ছয়টি এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রা শুরু হয়েছে উচ্চ গতির এই ইন্টারনেট সেবা। তবে বাণিজ্যিকভাবে গ্রাহকদের জন্য আগামী বছরের মধ্যে ২০০টি স্থানে এই সেবা

চালুর ঘোষণা দিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম অপারেটর টেলিটক।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
নিয়োগে দুর্নীতি: জীবন বীমার এমডির বিরুদ্ধে দুদকের মামলা মিহির ঘোষসহ নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবীতে গাইবান্ধায় সিপিবির বিক্ষোভ গাইবান্ধায় সেনাবাহিনীর ভূয়া ক্যাপ্টেন গ্রেফতার জগন্নাথপুরে সড়ক নির্মানের অভিযোগ এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে তারাকান্দায় অসহায় ও দুস্থদের মাঝে ছাত্রদলের খাবার বিতরণ দেবহাটায় অস্ত্র-গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার আটক -১ রামগড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারায় ভেদুর মোড় হতে নরদাশ পর্যন্ত পাকা রাস্তার শুভ উদ্বোধন সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় শার্শায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা আদায় মধুখালীতে তিন মাসে ৪৩ টি গরু চুরি গাইবান্ধায় বঙ্গবন্ধু জেলা ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন গাইবান্ধায় শীতবস্ত্র বিতরণ রাজশাহীতে পুত্রের হাতে পিতা খুন বাগমারায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার রামগড়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইউএনও ভাঃ উম্মে হাবিবা মজুমদার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসরে পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ এক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সিপিবি নেতা মিহির ঘোষসহ ৬ জন কারাগারে পিআইও’র মানহানির মামলায় গাইবান্ধার ৪ সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় প্রগতিশীল ছাত্র জোটের মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ