ঢাকা, Thursday 28 October 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

উৎসবে ফেরাবে বৈশাখ, বাঙালীর প্রতি প্রাণে নতুন আশা

প্রকাশিত : 09:58 AM, 11 March 2021 Thursday
58 বার পঠিত

মোহাম্মদ রাছেল রানা | ডোনেট বাংলাদেশ নিউজ ডেক্স :-

বাঙালীর নববর্ষ আসছে। এখনই চলে আসছে- এমন নয়। তবে আসছে। আর মাত্র কয়েকদিন। তারপরই ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। পহেলা বৈশাখ নতুন বছরকে বরণ করে নেয়া হবে। এই বরণ অনুষ্ঠান কী যে আনন্দের! কত যে বর্ণাঢ্য! গোটা দেশ এক হয়ে যায়। ধর্ম বর্ণের পার্থক্য ভুলে অসাম্প্রদায়িক উৎসবে মাতে সবাই। আবারও সে সময়ের খুব কাছাকাছি বাংলাদেশ। উৎসব সামনে হৃদয়ে যে দোলা, সেটি একটু একটু করে স্পষ্ট হচ্ছে। ভেতরে ভেতরে চলছে প্রস্তুতিও। ‘ভেতরে’ ‘ভেতরে’ বলার কারণ, এখনও করোনার বাধা দূর হয়নি। গতবছর আরও অনেক কিছুর মতো বৈশাখী সব আয়োজন গিলে খেয়েছিল সংক্রমণ ব্যাধি। প্রাদুর্ভাব বাড়ার আশঙ্কায় বর্ষবরণের সকল আনুষ্ঠানিকতা বাদ

দিতে হয়েছিল। পহেলা বৈশাখের ভোরে, ভাবতে এখনও খারাপ লাগে, রমনা বটমূলে সমবেত হওয়ার সুযোগ পায়নি রাজধানীবাসী। গানে কবিতায় নববর্ষকে বরণ করে নেয়া সম্ভব হয়নি। মঙ্গল শোভাযাত্রা তুলে রাখতে হয়েছে। বাড়ির মেয়েরা নতুন পোশাক পরে ঘরের ছাদে বারান্দায় পায়চারী করে কাটিয়েছে পহেলা বৈশাখ! এর চেয়ে বেদনার হতাশার আর কী হতে পারে?

তবে এ পর্যায়ে এসে বদলে গেছে অনেক কিছু। গোটা দুনিয়াই স্বাভাবিক হওয়ার চেষ্টা করছে। বাংলাদেশ অতিমারী মোকাবেলায় স্পষ্টত এগিয়ে। পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় প্রায় সবকিছুই এখন চলমান। ভ্যাকসিনও নিচ্ছে মানুষ। অনুকূল পরিবর্তনের ফলে এবার সীমিত পরিসরে হলেও পহেলা বৈশাখ উদ্যাপন করা সম্ভব হবে। হবে বলেই আশা করা

হচ্ছে। বিভিন্ন সেক্টরে কাজ হচ্ছে এখন।

এরই মাঝে উৎসবে ফেরার কথা জানিয়েছে ছায়ানট ও চারুকলা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রাথমিক প্রস্তুতিও গ্রহণ করছে দুই প্রতিষ্ঠান। ছায়ানটের পক্ষ থেকে রমনা বটমূলে মঞ্চ তৈরির অনুমতি চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। প্রভাতী অনুষ্ঠানের জন্য গান নির্বাচন করে চলছে রিহার্সাল। মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করারও প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এদিকে, পহেলা বৈশাখ উদ্যাপনের প্রধানতম অনুষঙ্গ পোশাক। নারীরা লাল সাদা রঙের শাড়ি থ্রিপিস ফতুয়া গায়ে জড়িয়ে ঘর থেকে বের হবেন। পুরুষের গায়ে থাকবে একই রঙের পাঞ্জাবি ফতুয়া। শিশু বৃদ্ধ সকলেই নতুন পোশাকে সাজবে। তাই উৎসবের পোশাক তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেছে আরও আগে

থেকে। দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো যে যার মতো করে থিম সাজাচ্ছে।

ফ্যাশন হাউস ‘সাদাকালো’র কর্ণধার আজহারুল হক আজাদ বলছিলেন, পহেলা বৈশাখ বাঙালীর প্রতি প্রাণে নতুন আশার সঞ্চার করে। সেই আশার জায়গাটাকে আমরা ধরার চেষ্টা করছি। একটু চ্যালেঞ্জ তো আছেই। তবু উৎসব আনন্দের সঙ্গী হতে চাই। সেভাবেই কাজ করছি। অন্যান্যবারের মতো বিপুল বিনিয়োগ করার সুযোগ হয়ত নেই। তবে চাহিদা মাথায় রেখেই কাজ করা হচ্ছে।

বৈশাখ ঘিরে ব্যস্ততা বেড়েছে নারায়ণগঞ্জে অবস্থিত বিসিক জামদানি পল্লীতেও। পল্লীর স্বনামধন্য শিল্পী সবুজ মিয়া বলছিলেন, গত বৈশাখের আগে আগে করোনার ভয়ে সব তাঁত বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। বিপদে পড়ে অনেকে অর্ধেক দামে জামদানি বিক্রি করেছেন।

এবারের বৈশাখ কিছুটা ভাল যাবে বলে আশা। তাই এখন প্রায় ২০০০ তাঁত সচল রয়েছে। আমরা অর্ডার পাচ্ছি। অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে। বৈশাখী মেলাগুলো আয়োজন করা গেলে উৎসব আরও জমিয়ে তোলা যাবে বলে মনে করেন তিনি।

মৃৎশিল্পীরাও মূলত বৈশাখী মেলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন। বিভিন্ন অঞ্চলের শিল্পীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা গেছে, দিন রাত কাজ করছেন তারা। অনেকের স্ত্রী সন্তানও কাজে হাত লাগিয়েছে। মাটি দিয়ে টেপা পুতুল শখের হাঁড়ি বিভিন্ন খেলনা গড়ছেন তারা।

কথা হচ্ছিল রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী শখের হাঁড়ির শিল্পী মৃত্যুঞ্জয় পালের সঙ্গে। বর্তমানে সোনারগাঁ লোক ও কারুশিল্প জাদুঘর আয়োজিত মেলায় শখের হাঁড়ি বিক্রি করছেন তিনি। বলছিলেন, কত সুন্দর একটি

মেলা। লোকজন আগ্রহ নিয়ে আসছেন। আমাদের পণ্য কিনছেন। বৈশাখেও এমন মেলা আয়োজনের পরামর্শ দেন তিনি। বলেন, আমরা আমাদের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। সম্প্রতি এবং আগে বানানো পণ্যে ঘর ভর্তি। এখন পহেলা বৈশাখের আয়োজনগুলোর দিকে তাকিয়ে আছেন বলে জানান তিনি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT