ঢাকা, Sunday 26 September 2021

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ইআরকিউ অ্যাকাউন্ট থেকে দেয়া যাবে বিদেশি কর্মীর বেতন

প্রকাশিত : 11:02 AM, 17 September 2020 Thursday
185 বার পঠিত

রাছেল রানা | বগুডা

বর্তমানে দেশে কর্মরত বিদেশি কর্মীরা মূল বেতনের সর্বোচ্চ ৭৫ শতাংশ নিজ দেশে নিতে পারেন রেমিট্যান্স হিসেবে। এখন থেকে রফতানি প্রত্যাবাসন কোটা (ইআরকিউ) অ্যাকাউন্ট থেকে বিদেশি কর্মীদের বৈদেশিক মুদ্রা (এফসি) অ্যাকাউন্টে বেতন জমা করতে পারবেন। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যাংকে থাকা এফসি হিসাবের মাধ্যমে বিদেশি কর্মীরা নিজ দেশে অর্থ নিতে পারবেন। ব্যাংকের এডি শাখাগুলো বিদেশি কর্মীদের থাকা এফসি হিসাবের মাধ্যমে বেতনের সমপরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা পাঠাতে পারবে।

এ ক্ষেত্রে অবশ্যই রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানের ইআরকিউ হিসাবে জমা থাকা বৈদেশিক মুদ্রার পরিমাণ দেখতে হবে। শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি থাকা বিদেশি কর্মীদের

বেতনই এফসি হিসাবের মাধ্যমে দেয়া যাবে। ব্যাংককে যাচাই করে দেখতে হবে কতজন বিদেশি কর্মীর অনুমোদন রয়েছে রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানের। এর আগে গত জুনে এক নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়, বিদেশি কর্মীদের বেতন অবশ্য এফসি (বৈদেশিক মুদ্রার হিসাব বা ফরেন কারেন্সি অ্যাকাউন্ট) হিসাবের মাধ্যমে দিতে হবে।

এ হিসাব থেকেই তারা নিজ দেশে অর্থ পাঠাতে পারবেন। বিদেশি কর্মীরা এ হিসাবের বিপরীতে ডেবিট অথবা প্রিপেইড কার্ড নিতে পারে। এ ডেবিট কার্ডের টাকা দিয়ে ভ্রমণ সম্পর্কিত ব্যয় করতে পারবেন বিদেশিরা।

তাদের অ্যাকাউন্টে গচ্ছিত ও টিকিট কেনার টাকাগুলো বাংলাদেশের রেমিট্যান্স হিসেবে বিবেচিত হবে। যে টাকা তারা নিজ দেশে পাঠাবে সেগুলো আউট ওয়ার্ড রেমিট্যান্স হিসেবে

বিবেচিত হবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ডোনেট বাংলাদেশ'কে জানাতে ই-মেইল করুন- donetbd2010@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

ডোনেট বাংলাদেশ'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© 2021 সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। ডোনেট বাংলাদেশ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT