আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো… – বর্ণমালা টেলিভিশন

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো…

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ | ১০:০২ 74 ভিউ
শেকলে বাঁধা রূপসী, বাংলা ভাষা, তুমি-আমি-দুর্বিনীত দাসদাসী/একই শেকলে বাঁধা প’ড়ে আছি শতাব্দীর পর শতাব্দী/আমাদের ঘিরে শাঁই-শাঁই চাবুকের শব্দ, স্তরে স্তরে শেকলের ঝংকার ...। বায়ান্নর রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে এই বন্দী শেকলের আবর্ত থেকে আপন শক্তিতে জেগে উঠেছিল বাংলা ভাষা। দ্রোহের অনলে শোষকের চাপিয়ে দেয়া সিদ্ধান্তকে ছারখার করে জয়ী হয়েছিল বাংলা বর্ণমালা। পরাজিত হয়েছিল পরাধীনতার শৃঙ্খলে গড়া স্বেচ্ছাচারী সরকারের সাংস্কৃতিক আগ্রাসন। সেই সুবাদে পাকিস্তানী শাসকগোষ্ঠীর ষড়যন্ত্রকে নস্যাত করে ঠিকানা খুঁজে নিয়েছিল বাংলা মায়ের মাতৃভাষা। তাই তো বাংলা ভাষা পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হবে কিনাÑএমন প্রশ্ন নিয়ে যখন বিতর্ক জন্মে, তখন সোচ্চার হয়েছিল পূর্ব পাকিস্তানের আপামর জনতা। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট দেশভাগের মধ্য দিয়ে পাকিস্তান নামের যে রাষ্ট্র জন্মেছিল তাতে বাঙালী ছিল সংখ্যাগরিষ্ঠ। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠের ন্যায্যতাকে অস্বীকার করে ভাষার প্রশ্নে বাঙালীর মতামতকে উপেক্ষা করেছিল শাসকগোষ্ঠী। তাই পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর থেকেই রাষ্ট্রভাষা বিষয়ক বিতর্কের পথ ধরে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে পূর্ব বাংলার জনগোষ্ঠী। ১৯৪৮ সালের মার্চ মাসের প্রথম সক্রিয় ভাষা আন্দোলনের নেপথ্যে সচেতনভাবে এই সংখ্যাগরিষ্ঠতার চেতনা এবং একটি বিশেষ মানবগোষ্ঠী হিসেবে স্বাতন্ত্র্যবোধ কাজ করছিল। এই ভাষা আন্দোলনের লক্ষ্য নিছক ভাষা অধিকারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। নেপথ্যে ছিল বাঙালীর অস্তিত্ব ও অধিকার আদায়ের লড়াই। সাতচল্লিশে দেশভাগের বাস্তবতায় বাংলার মূল কেন্দ্র কলকাতা পূর্ববঙ্গের বাইরে পড়ে। এই অঞ্চল থেকে বহু হিন্দু জমিদার কলকাতায় চলে যায়। অন্যদিকে ভারতের ধনাঢ্য মুসলমানরা চলে যায় পশ্চিম পাকিস্তানে। ভূমিনির্ভর ধনী মুসলমানরা বাস করত পশ্চিম পাকিস্তানেই। মুসলিম লীগের মূল নেতৃত্বেও ছিলেন তারাই। তাই অচিরেই স্পষ্ট হয়, রাষ্ট্রভাষা উর্দু হলে চাকরির ক্ষেত্রে বেকায়দায় পড়বে বাঙালীরাই। পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার আগে পূর্ব বাংলায় সরকারী চাকরিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের আধিপত্য ছিল। দেশবিভাগের পর অধিকাংশ হিন্দু কর্মকর্তা-কর্মচারী চলে যান ভারতে। সে সময় ইংরেজ আধিপত্যেরও অবসান হয়। কিন্তু দেশবিভাগ কার্যকর হওয়ার পর শুধু রাজনীতির ক্ষেত্রেই নয়, চাকরির ক্ষেত্রেও উদর্ুুভাষীদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত হয়। তারা বাঙালীদের চেয়ে উন্নততরÑএই মনোভাব প্রকাশ পায় তাদের আচরণে। স্বভাবতই চাকরিসহ নানা ক্ষেত্রে বাঙালী সুবিচার পাবে নাÑএমন আশঙ্কা ঘনীভূত হয়। তাই ভাষার প্রশ্নটি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের মানুষের মনে প্রগাঢ় হয়ে দেখা দিয়েছিল। একইসঙ্গে শোষণের পশ্চাদভূমি হয়ে উঠেছিল পূর্ব বাংলা। নতুন রাষ্ট্র পাকিস্তানের বেশিরভাগ মানুষের বাস ছিল পূর্ব বাংলায়। ১৯৫১ সালের আদমশুমারিতে দেখা যায় পাকিস্তানের বিভিন্ন ভাষাভাষী জনগোষ্ঠীর মধ্যে বাঙালী ছিল ৫৪.৬ শতাংশ, পাঞ্জাবী ২৮.৪ শতাংশ, উর্দুভাষী ৭.২ শতাংশ। নিরঙ্কুশভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠ ছিল বাঙালী। অন্যদিকে পাকিস্তানের আঞ্চলিক ভাষাগুলোর মধ্যে বাংলাভাষাই ছিল সবচেয়ে সমৃদ্ধ। এসব ছিল বাংলা ভাষার পক্ষে বড় যুক্তি। স্বভাবতই পূর্ব বাংলার সাধারণ মানুষ আশা করেছিল এ অঞ্চলের উন্নয়নে সচেষ্ট হবে পাকিস্তানী শাসকরা। কিন্তু সেটা হয়নি। রাজধানী হওয়ার পাশাপাশি ব্যবসা-বাণিজ্য, অফিস আদালত সবই পশ্চিমাঞ্চল ঘিরেই বেড়ে উঠল। পূর্ব বাংলার ক্রমশ অভ্যন্তরীণ উপনিবেশে পরিণত হওয়ার শঙ্কা দেখা দেয় এ অঞ্চলের মানুষের। সে কারণে ভাষা আন্দোলন হয়ে উঠেছিল পূর্ব পাকিস্তানের মানুষের অস্তিত্বের লড়াই এবং অধিকার আদায়ের আন্দোলন।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:



































শীর্ষ সংবাদ:
বেনাপোল সীমান্তে সচল পিস্তলসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসী গ্রেফতার নির্মাণসামগ্রীর দাম চড়া, উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি কলম্বোতে কারফিউ জারি টিকে থাকার লড়াইয়ে ছক্কা হাকাতে পারবেন ইমরান খান? করোনায় আজও মৃত্যুশূন্য দেশ, শনাক্ত কমেছে ‘ততক্ষণ খেলব যতক্ষণ না আমার চেয়ে ভালো কাউকে দেখব’ এবার ইয়েমেনে পাল্টা হামলা চালাল সৌদি জোট স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু সাড়ে ১১ হাজার কোটি টাকার অস্ত্র রপ্তানি করেছে মোদি সরকার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দেওয়া নিয়ে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, এলাকা রণক্ষেত্র ইউক্রেনকে বিপুল ক্ষেপণাস্ত্র ও মেশিনগান দিয়েছে জার্মানি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে নারীকে ধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩ ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের ‘লাল-সবুজের পতাকা বিশ্বজুড়ে আনবে একতা‘-শীর্ষক সভা বঙ্গবন্ধু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নওগাঁর নওহাঁটায় স্থাপনের দাবিতে মানববন্ধন । ভূরুঙ্গামারীতে ব্যাপরোয়া অটোরিকশা কেরে নিল শিশুর ফাহিম এর প্রাণ ভূরুঙ্গামারী কিশোর গ‍্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আহত যশোরিয়ান ব্লাড ফাউন্ডেশন এর ৬ তম রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন বেনাপোলে পৃথক অভিযানে ৫২ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক-২ বেনাপোল স্থলপথে স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমন নিষেধ গেরিলা যোদ্ধা অপূর্ব