“আকাশে উড়াল দিল পাখি,জেলে গেল ব্যবসায়ী”

২৮ অক্টোবর ২০১৭, ৪:০২ অপরাহ্ণ  -->| নিউজটি পড়া হয়েছে : 221 বার

মুক্তির স্বাদ পেল ৮২টি পাখি,গত বৃহঃপতিবার সন্ধ্যায় নওগাঁর মহাদেবপুরে বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে ৪/৫টি বস্তা ভর্তি ৮৮টি পাখিসহ পেশাদার পাখি ব্যবসায়ী আব্দুস সাত্তার (৪৫)কে আটক করে মহাদেবপুর থানা পুলিশ। পাখিগুলো মধ্যে ছিল আবাবিল,বাটানসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখি।

বিবিসিএফ সদস্য সংগঠন প্রাণ-প্রকৃতির সভাপতি কাজি নাজমুল জানান,অনেক সময় বস্তায় আটকে থাকার কারণে অসুস্থ হয়ে ৫টি পাখি মারা গেছে,খাঁচা এনে বস্তা থেকে পাখিদের বের করে খাবার ও পানি দিয়ে প্রাথমিক সুস্থ করার চেষ্টা করছে আমাদের সংগঠনের ফরহাদ হেসেন,পলাশ   মোল্লা, সিহাব হাসান,সাগর হেসেন, আসিকুর লেমন, খোরসেদ মোল্লাসহ অন্যান্য সদস্যরা।


বাংলাদেশ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ ফেডারেশন(বিবিসিএফ) এর সভাপতি এস,এম ইকবাল বলেন,

শীত মৌসুমের শুরুতেই কতিপয় পাখি শিকারীরা বিভিন্ন প্রকার অতিথি পাখি শিকার করে বিক্রি ও বাড়িতে নিয়ে গিয়ে চলে ভুড়িভোজ। তারা অভিনব কায়দায় এসব পাখি শিকার করে।

এতে অনেক প্রজাতির পাখি বিলুপ্ত হচ্ছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে পাখি শিকার বন্ধ ও নিরাপদ আশ্রয়স্থল সংরক্ষণ করতে হবে। পাশাপাশি বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের সঠিক প্রয়োগ করে পাখি শিকার বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

পাখিসহ সকল বন্যপ্রাণী শিকার বন্ধে স্বেচ্ছায় প্রচারনা এবং বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছে বিবিসিএফ এর সদস্য সংগঠনগুলো।

শুক্রবার বিকালে মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ মোবারক হোসেনকে সাথে নিয়ে উপজেলা চত্তরে পাখিদের অবমুক্ত করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন মহাদেবপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মিজানুর রহমান,থানা প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম রসুল বাবু,সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন,থানা প্রেসক্লাবের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য আব্দুল আজিজ, বিবিসিএফ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হেফজুল হোসেন,বিবিসিএফ সদস্য মুনসুর সরকার,বিবিসিএফ সদস্য সংগঠন প্রান ও প্রকৃতির সদস্যরাসহ প্রমূখ।

পরে পাখি ব্যবসায়ী আব্দুস সাত্তারের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করে সেই মামলায় গ্রেরেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জলেহাজতে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য,বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে বাংলাদেশ সরকার বন্যপ্রাণী( সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা)আইন- ২০১২ অনুযায়ী-পাখি শিকার,হত্যা,আটক ও ক্রয়-বিক্রয় করলে,যার সর্বোচ্চ শাস্তি ২ কারাদন্ড এবং ২ লক্ষ টাকা জরিমানা এবং বন্যপ্রাণী আটক,হত্যা,শিকার এবং ক্রয়-বিক্রয় করলে,যার সর্বোচ্চ শাস্তি ১২ বছর কারাদন্ড এবং ১৫ লক্ষ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
ডোনেট স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আর্ত মানবতার সেবা মূলক প্রতিষ্ঠান। ডোনেট স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম, সরকার ও রাষ্ট্ররিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোন মন্তব্য না করার জন্য বর্নমালা টেলিভিশনের পাঠক ও সুভাকাঙ্খিদের বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোন ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।
পাঠকের মন্তব্য
Advertisement
সম্পাদকীয়

যাহা করিবার এখনই করিতে হইবে

গ্রিনহাউস গ্যাসের জন্য ক্রমশ উত্তপ্ত হইয়া উঠিতেছে এই ধরিত্রী—ইহার স্বপক্ষে প্রকাশ পাইতেছে নিত্যনূতন তথ্য। গ্রিনহাউস গ্যাসের মধ্যে সবচাইতে বেশি উচ্চারিত নামটি হইল কার্বন ডাই-অক্সাইড। সমপ্রতি... বিস্তারিত
জনমত জরিপ

সংবিধান মোতাবেক নীতিমালা প্রণয়ন করে সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতি নিয়োগের দাবি জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। আপনি কি এ দাবির সঙ্গে একমত?

Loading ... Loading ...
Developed By : Donet IT